ঢাকা, রোববার 22 July 2018, ৭ শ্রাবণ ১৪২৫, ৮ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

মাধবদীর নওপাড়ায় প্রি-পেইড মিটার অপসারণের দাবিতে প্রতিবাদ সভা ও স্মারকলিপি প্রদান

মোঃ আল আমিন, মাধবদী (নরসিংদী) : নরসিংদী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর বিদ্যুতের পুরাতন মিটার বদলে দিয়ে নতুন প্রি-পেইড মিটার স্থাপন করায় গ্রাহকদের ভোগান্তি বেড়ে যাওয়ায় সংযোগকৃত প্রি-পেইড মিটার অপসারণ করে পুরাতন মিটার স্থাপনের দাবি জানিয়ে গত ১৮ জুলাই মাধবদী থানার নওপাড়া এলাকায় প্রি-পেইড মিটার গ্রাহকদের উদ্যোগে এক প্রতিবাদ সভায় পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএম, সভাপতি ও নূরালাপুর ইউপি চেয়ারম্যান বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন এলাকার শত শত বিদ্যুৎ গ্রাহক। নওপাড়া এলাকার প্রি-পেইড মিটারের শত শত ভুক্তভোগী গ্রাহকের অভিযোগ পূর্বের মিটারের চেয়ে প্রি-পেইড মিটারে অনেক সুবিধা বুঝিয়ে ও কোন কোন ক্ষেত্রে ভয়ভীতি দেখিয়ে বিদ্যুৎ অফিসের লোকজন পুরাতন মিটার খুলে নিয়ে নতুন প্রি-পেইড মিটার স্থাপন করে দিয়েছে যা সাধারণ গ্রাহকদের জন্য ভোগান্তির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। তারা তাদের স্মারকলিপিতে সমস্যার কথা তুলে ধরে বলেন পূর্বের মিটারের তুলনায় প্রি-পেইড মিটারে প্রায় দ্বিগুন বিল বেশী আসে যা ভৌতিক বিল বলে উল্লেখ করেন। এই মিটার সংযোগের পর ভোল্টেজ কম থাকায় পাখা, ফ্রিজ, এসি সহ অন্যান্য ইলেক্টনিক্স জিনিস চলে না বললেই চলে যা অনেক ক্ষেত্রে নস্ট হয়ে যাচ্ছে। অনেক ক্ষেত্রে মিটারে টাকা রিচার্জ করলেও সঠিক ব্যালেন্স দেখাচ্ছে না বরং উল্টো ঋন নেয় হয়েছে দেখাচ্ছে। কোন প্রকার কারণ ছাড়াই হঠাৎ বিদ্যুৎ বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। তখন মিটার চেক করলে সঠিক কোন তথ্য দিচ্ছে না। 

মিটারে অটো রিচার্জ দেখায় যা গ্রাহকের অজান্তেই বিদ্যুৎ অফিসের নিকট ঋন হয়ে থাকে। পল্লি বিদ্যুতের সাবেক সভাপতি মোঃ খালিদ সরকারের সঞ্চলনায় গ্রাহক প্রতিনিধি মোঃ আবু তালেব মাস্টারের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে নূরালাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ খাদেমুল ইসলাম ফয়ছল বলেন আমি নিজেও এই প্রি-পেইড মিটারের ভুক্তভোগী। পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির ডিজিএম ও চেয়ারম্যানকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন অভিলম্বে এসব প্রি-পেইড মিটারের ভোগান্তি লাগবের ব্যবস্থা নিন। অনথ্যায় এ মিটার অপসারন করে পুরাতন মিটার সংযোগ করুন এবং আজকের পর থেকে নওপাড়া গ্রামে আর একটিও প্রি-পেইড মিটার সংযোগ দিবেন না। এ অবস্থা চলতে থাকলে বর্তমান সরকারের বদনাম হবে। আমাদেরকে কঠিন আন্দোলনে নামতে বাধ্য করবেন না। এসময় নরসিংদী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর সভাপতি মোঃ জাহাঙ্গীর আলম অভি ও ডিজিএম আলতাফ গওহার চৌধুরী এলাকার উত্তেজিত গ্রাহকদের উদ্দেশ্যে বলেন, নওপাড়া গ্রামে বিশেষ টিম দেয়া হবে এবং যার যে সমস্যা আছে তা অবিলম্বে সমাধান করা হবে। 

এ ব্যাপারে উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে আমরা আলাপ করব কিভাবে মিটারগুলো পরিবর্তন করা যায়। এখন থেকে আর কোন প্রি-পেইড মিটার লাগানো হবেনা। ইতি পূর্বে যে মিটারগুলো লাগানো হয়েছে সেগুলো কিভাবে পরিবর্তন করা যায় আমরা আলোচনা করছি। আপনাদের সবাইকে ধৈর্য্যধারণ করার আহ্বান জানাচ্ছি। সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন সহকারী জেনারেল ম্যানেজার মোঃ জহিরুল ইসলাম, নুরালাপুর ইউপির সদস্য আব্দুল করিম, মোঃ আমজাদ হোসেন, মাহবুবুর রহমান, আলমগীর হোসেন, মোস্তফা মিয়াসহ ভুক্তভোগী গ্রাহকবৃন্দ। ভুক্তভোগী গ্রাহকরা জানান, নরসিংদী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ গত ২ মাস যাবৎ বিভিন্ন এলাকায় পুরাতন মিটার খুলে নতুন করে প্রি-পেইড মিটার স্থাপন করছে। এই সময়ের মধ্যে প্রায় ৫ হাজার প্রি-পেইড মিটার স্থাপন করা হয়েছে। প্রি-পেইড মিটার স্থাপন করতে গিয়ে গ্রাহকদের সাথে সমিতির লাইনম্যানদের বিভিন্ন বাঁধার সম্মুখীন হতে হয়েছে। বাঁধা দেয়ার পরও সরকারি নির্দেশনা ও মিটারের বিভিন্ন সুবিধার কথা বুঝিয়ে গ্রাহকদের প্রি-পেইড মিটার লাগাতে বাধ্য করেছে। ভুক্তভোগীরা জানান গত দুই মাসে গ্রাহকদের সুবিধাতো দূরে থাক প্রি-পেইড মিটার তাদের জন্য একটি অভিশাপ হয়ে দাড়িয়েছে। সভায় প্রি-পেইড মিটারের ভুক্তভোগী গ্রাহক মোঃ স্বপন মিয়া জানান এই মিটার লাগানোর পর থেকে আমাদের ভোল্টেজ কমে গেছে, যার ফলে আমার একটি মটর পুড়ে গেছে। শাহাবুদ্দিন বলেন আমার যে বিল মাসে গড়ে ৭০০ টাকা আসত এখন সে জায়গায় আমার ২৮০০ টাকা খরচ হয়ে গেছে। নারগিছ বেগম বলেন আমার মিটার লাগিয়ে অন্যায় ভাবে ২০০ টাকা নিয়েছে এবং আমি ১ সপ্তাহের মধ্যে ১ হাজার টাকা রিচার্জ করার পরও আরো ৫০০ টাকা ঋণ দেখাচ্ছে। হালিমা বেগম বলেন আমরা গ্রামের অশিক্ষিত মানুষ যার জন্য মিটারের কিছুই বুঝিনা।

 আমরা কিভাবে এই মিটার চালাবো? এছাড়াও শাহাবুদ্দিন, মোস্তফা, বাছেদ মিয়া, গিয়াসউদ্দিন, মনির হোসেন, শাহীন, কুলসুম বেগমসহ উপস্থিত গ্রাহকরা বলেন এই মিটারে বিল বেশি খরচ হয়, ভোল্টেজ কম, এসি, ফ্যান ও ফ্রিজ চলেনা বললেই চলে। আমরা এই মিটার চাইনা। আমাদের পুরাতন মিটার ফিরিয়ে দেয়া হউক। পরে নুরালাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ খাদেমুল ইসলাম ফয়ছল, নরসিংদী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর সভাপতি মোঃ জাহাঙ্গীর আলম অভি, ডিজিএম আলতাফ গওহার চৌধুরীর হাতে গ্রাহকদের পক্ষ থেকে প্রি-পেইড মিটার অপসারণ ও পুরাতন মিটার স্থাপনের দাবীতে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ