ঢাকা, রোববার 22 July 2018, ৭ শ্রাবণ ১৪২৫, ৮ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

জামায়াতের রাজশাহী মহানগরী নায়েবে আমীর এড. সেলিম গ্রেফতার

রাজশাহী অফিস : রাজশাহী মহানগরী জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমীর এডভোকেট আবু মোহাম্মদ সেলিমকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত শুক্রবার রাত ১০টায় নগরীর কলাবাগানের বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করে বোয়ালিয়া থানা পুলিশ। এছাড়া মতিহার থানা জামায়াতের আমীর ওয়ালিউল ইসলাম টিপুকেও (৪৭) গ্রেফতার করা হয়।
জানা গেছে, এড. আবু মোহাম্মদ সেলিম রাতে বাড়িতে ছিলেন। হঠাৎ করে বোয়ালিয়া থানা পুলিশের একটি দল তাকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায়। অন্যদিকে টিপুর বাড়ি নগরীর ডাশমারী এলাকায়। রাতে মতিহার থানা পুলিশ তাকে মিজানের মোড় থেকে গ্রেফতার করে। পরে তাকে থানায় নেয়া হয়। রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) মুখপাত্র  সিনিয়র সহকারী কমিশনার (সদর) ইফতে খায়ের আলম এসব তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, জামায়াত নেতা সেলিমের বিরুদ্ধে জেলার পুঠিয়া থানায় দুটি নাশকতার মামলা রয়েছে। গ্রেফতারের পর তাকে পুঠিয়া থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। আর টিপুর বিরুদ্ধে আরএমপির কাটাখালী থানায় দুটি নাশকতার মামলা রয়েছে। গ্রেফতারের পর তাকে সেখানকার থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। শনিবার সকালে জামায়াতের এই দুই নেতাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।
ওয়ার্ড বিএনপি’র সভাপতি আটক : রাজশাহী নগরীর ৬নং ওয়ার্ড বিএনপি’র সভাপতি গোলাম নবী গোলাপকে আটক করেছে রাজপাড়া থানা পুলিশ। গতকাল শনিবার দুপুরে তার নিজ বাড়ি থেকে তাকে আটক করা হয়। রাজপাড়া থানার পুলিশ জানায়, গোলাম নবী গোলাপ এজাহারভুক্ত আসামী। শনিবার দুপুরে অভিযান চালিয়ে নাশকতার মামলায় তাকে আটক করা হয়। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।
জামায়াতের প্রতিবাদ : জামায়াতে ইসলামী রাজশাহী মহানগরীর নায়েব আমীর এড. আবু মোহাম্মাদ সেলিমকে রাতে নিজ বাড়ী থেকে গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা জানিয়ে গতকাল শনিবার এক বিবৃতি দেন জামায়াতে ইসলামী রাজশাহী মহানগরীর আমীর প্রফেসর আবুল হাশেম ও সেক্রেটারি সিদ্দিক হোসেন। নেতৃদ্বয় বলেন, বিনা কারণে কোন মামলা ছাড়া রাত সাড়ে ১০টায় নিজ বাড়ী থেকে বোয়ালিয়া থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে নাটক সাজিয়ে পুঠিয়া থানার নাশকতা মামলায় জড়িয়ে রাতেই পুঠিয়া থানা পুলিশের নিকট হস্তান্তর করা অমানবিক। তাঁর বিরুদ্ধে যে অভিযোগ দেয়া হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা, ভিত্তিহীন বানোয়াট ও সাজানো নাটক। আমরা সরকারের পুলিশ বাহিনীর এ সব কর্মকাণ্ডে তীব্র নিন্দা জানাই। নেতৃদ্বয় আরো বলেন, রাজশাহী সিটি নির্বাচনে এক তরফা নৌকার ভোট কেটে নেয়ার জন্য জামায়াত শিবিরের সকল পর্যারের নেতা কর্মীদের গ্রেফতার করা হচ্ছে। নেতৃদ্বয় সরকারের পুলিশ বাহিনীর এই আচরণের তীব্র নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে জামায়াত শিবিরের নেতা-কর্মীদের মুক্তি দাবি করেন।
মতিহার থানার নিন্দা : জামায়াতে ইসলামী রাজশাহী মহানগরীর মতিহার থানা আমীর ওলিউল ইসলাম টিপুকে গ্রেফতারের  তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন জামায়াতের মতিহার থানার নায়েবে আমীর, সেক্রেটারি ও থানা কর্মপরিষদ সদস্যবৃন্দ। নেতৃবৃন্দ বলেন, বিনা কারণে কোনো মামলা ছাড়া নিজ এলাকায় নির্বাচনী গণসংযোগকালে রাত সাড়ে ৮টায় তাকে গ্রেফতার করা অমানবিক। এই আচরণের তীব্র সমালোচনা করে অবিলম্বে তারা জামায়াত নেতার মুক্তি দাবি করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ