ঢাকা, রোববার 22 July 2018, ৭ শ্রাবণ ১৪২৫, ৮ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

পৃথক বন্দুকযুদ্ধে ৩ মাদক ব্যবসায়ী নিহত

সংগ্রাম ডেস্ক : তিনটি পৃথকস্থানে কথিত বন্দুকযুদ্ধে তিন মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন বলে পুলিশ জানিয়েছে। এরা হলেন, কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় শামছুদ্দীন ওরফে শ্যাম, দিনাজপুরের পার্বতীপুরে আবদুর রহীম ও কক্সবাজারের চকোরিয়ার মো. ইসমাইল।
ভেড়ামারা (কুষ্টিয়া) সংবাদদাতা : কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে উপজেলার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী শামছুদ্দীন ওরফে শ্যাম (৩৮) নিহত হয়েছে। গতকাল শনিবার দিবাগত রাত পৌনে ৩ টার দিকে ভেড়ামারা-রায়টা সড়কের ব্যাকাপুল সেতুর মুখে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনাটি ঘটে। এসময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ১টি  দেশীও ওয়ান শুটারগান,  ২ রাউন্ড গুলী ও ৫শ’ পিচ ইয়াবা উদ্ধার করেছে। সে ভেড়ামারা উপজেলার ক্ষেমিরদিয়াড় বিশ্বাসপাড়া গ্রামের মৃত কুব্বাত আলীর ছেলে।
ভেড়ামারা থানার অফিসার ইনচার্জ আমিনুল ইসলাম জানান, মাদকদ্রব্য ক্রয় বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে একদল মাদক ব্যবসায়ী ভেড়ামারা-রায়টা সড়কের ব্যাকাপুল নামক স্থানের তিন রাস্তার মোড়ে সেতুর মুখে অবস্থান করছে এমন গোপন সংবাদ পেয়ে ভেড়ামারা থানার এস আই সালাউদ্দীন, এএসআই মাসুমসহ ১টি টিম ঘটনাস্থলে অভিযান চালায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলী ছোড়ে। জবাবে পুলিশও পাল্টা গুলী চালালে বন্দুকযুদ্ধে’র এক পর্যায়ে গুলীবিদ্ধ অবস্থায় এক জনকে পড়ে থাকতে দেখে পুলিশ। পরে তাকে উদ্ধার করে ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য কপপ্লেক্সে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাক্তার আসাদুজ্জামান তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে পুলিশ জানতে পারে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ব্যক্তি ভেড়ামারা উপজেলার তালিকাভুক্ত শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী শামছুদ্দীন ওরফে শ্যাম। তার বিরুদ্ধে ভেড়ামারা থানায় প্রায় ৮টি মাদকের মামলা রয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ১টি দেশীও ওয়ান শুটারগান, ২ রাউন্ড গুলী ও ৫শ’ পিচ ইয়াবা উদ্ধার করেছে। ময়নাতদন্তের জন্য তার মৃতদেহ কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।
পার্বতীপুর সংবাদদাতা : পার্বতীপুরে পুলিশের সঙ্গে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’আব্দুর রহিম (৪৫) নামে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। গত শুক্রবার দিনগত রাত ৩টার দিকে পার্বতীপুর-সৈয়দপুর সড়কের পার্বতীপুর উপজেলার বান্নিরঘাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত আব্দুর রহিম পার্বতীপুর শহরের পুরাতন বাজার রেলগেট এলাকার মৃত গোলাম নবীর ছেলে। পার্বতীপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাবিবুল হক প্রধান জানান, রাত ৩টার দিকে বান্নিরঘাট এলাকায় দুই দল মাদক ব্যবসায়ীর মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গুলী ছোড়ে। এতে আব্দুর রহিম গুলীবিদ্ধ হলে অন্য মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় আব্দুর রহিমকে পার্বতীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। ঘটনাস্থল থেকে ১০০ পিস ইয়াবা, ৫০ বোতল ফেনসিডিল, একটি শুটারগান ও এক রাউন্ড গুলী উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত আব্দুর রহিমের নামে হত্যা, মাদকদ্রব্যসহ বিভিন্ন অপরাধে কয়েকটি মামলা রয়েছে বলেও জানান ওসি।
চকরিয়া সংবাদদাতা: কক্সবাজারের চকরিয়ায় মাদক ব্যবসায়ীর গুলীবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত ব্যক্তির নাম মো. ইসমাঈল (৫০)। পুলিশের দাবি, ইসমাইল তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী। মাদক বিক্রির টাকার ভাগ-ভাটোয়ারা নিয়ে দু’পক্ষের গোলাগুলীর ঘটনায় সে (ইসমাঈল) গুলীবিদ্ধ হয়। শনিবার  রাত পৌনে ৩টার দিকে চকরিয়া-লামা সড়কের ফাসিয়াখালী কুমারী ব্রিজ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। চকরিয়া থানার ওসি বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, শনিবার দিনগত মধ্যরাতে চকরিয়া-লামা সড়কে ফাঁসিয়াখালীর কুমারী ব্রিজ এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মাদক কারবারিদের দুই পক্ষের মধ্যে গোলাগুলীর ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে গুলীবিদ্ধ অবস্থায় তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী মো. ইসমাঈলের মৃতদেহ উদ্ধার করে। এসময় ঘটনাস্থল থেকে ১টি দেশিয় তৈরি (এলজি) বন্দুক, ২রাউন্ড তাজা কার্তুজ ও ৪৬৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়েছে। ওসি জানান, নিহত ইসমাইল চকরিয়া পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ড কোচপাড়ার মৃত আবু সালামের পুত্র। তার বিরুদ্ধে চকরিয়া থানায় মাদকদ্রব্য আইনে ৬টি মামলা রয়েছে। নিহতের মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ