ঢাকা, সোমবার 23 July 2018, ৮ শ্রাবণ ১৪২৫, ৯ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

মিডিয়ার মুখোমুখি জেমি ডে

স্পোর্টস রিপোর্টার: এশিয়ান গেমস ও সাফ চ্যাম্পিয়নশিপকে সামনে রেখে দু’দফা অনুশীলনের জন্য কাতারে যায় ফুটবল দল। দ্বিতীয়বার অনুশীলন শেষে শুক্রবার দেশে ফেরে দলটি। অনুশীলনের যাবতীয় বিষয় নিয়ে রোববার বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনে (বাফুফে) মিডিয়ার মুখোমুখি হন জেমি।

কাতার থেকে ফিরলেও ৩০ জুলাই আবার দক্ষিণ কোরিয়া যাবে ফুটবল দল। তার আগে তিনদিনের  ছুটি কাটিয়ে মঙ্গলবার বিকেএসপিতে অনুশীলনে ফিরবেন জামাল ভূঁইয়ারা। বিকাল চারটায় সংবাদ সম্মেলন থাকলেও শুরু হয়েছে সাড়ে পাঁচটার পর। পল্টন থেকে বাফুফে ভবন দশ মিনিট হাটা দূরত্ব হলেও এক ঘন্টা রাস্তায় জ্যামে আটকে পড়েছিলেন। বাংলাদেশ কাতারের একটি দলের সঙ্গে প্রীতি ম্যাচে ১-১ গোলে ড্র করে। সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ দলের মূল সমস্যা স্ট্রাইকিং ও রক্ষণভাগ। এই দু’বিভাগ সম্পর্কে জেমি ডে বলেন, ‘বাংলাদেশ লিগে আক্রমণভাগে বিদেশী ফুটবলাররাই খেলে থাকে। এতে স্থানীয়রা অনেকেই সুযোগ পায় না। জীবন, রনি, ইমন এমনকি সাদকেও আমার ভালো স্কোরার মনে হয়েছে। তারা আন্তর্জাতিক ম্যাচে গোল করতে সক্ষম।’ রক্ষণ ও গোলকিপিং নিয়ে ইংলিশ কোচের মূল্যায়ন, ‘কর্নার থেকে গোল খেয়েছি। সেটপিসে সমস্যা রয়েছে শুনেছি। সেটপিস নিয়ে কাজ করব সামনের দিনগুলোতে।’

এশিয়ান গেমসে বাংলাদেশের গ্রুপে আরেকটি দল বেড়েছে। এজন্য ইন্দোনেশিয়ায় নির্ধারিত সময়ের আগেই পৌছাতে হবে। এক দল বাড়াকে ইতিবাচক হিসেবেই দেখছেন জেমি, ‘এক ম্যাচ বেশি খেলতে পারব আমরা। অভিজ্ঞতাও বাড়বে। সাফের জন্য কাজে লাগবে।’ ২০১৪ ইনচন এশিয়ান গেমসে বাংলাদেশ আফগানিস্তানকে হারিয়েছিল। সেই জয় ছিল ২৮ বছর পর। এবার কোনো জয় সম্ভব কিনা এই প্রসঙ্গে কোচ বলেন, ‘আমরা অবশ্যই জয়ের চেষ্টা করব। প্রতিপক্ষও অনেক শক্তিশালী বিষয়টি বিবেচনা করতে হবে।’ এশিয়ান গেমসে তিনজন সিনিয়র ফুটবলার খেলতে পারবেন। প্রতি পজিশনে দু’জন করে সিনিয়র রাখা হয়েছে। গোলকিপার সোহেল রানা, মিডফিল্ড ও আক্রমণভাগে জামাল ভূইয়া ও জীবন, রক্ষণে তপু ও নাসির রয়েছেন। কাতারে দুই অর্ধে দু’দল খেলিয়েছিলেন কোচ। ফিটনেস কোচ লিনসের চোখে খানিকটা ফিটনেস ঘাটতি ধরা পড়েছে। সেই ঘাটতি গেমসের আগেই কাটানোর চেষ্টা করবেন কোচদ্বয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ