ঢাকা, সোমবার 23 July 2018, ৮ শ্রাবণ ১৪২৫, ৯ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রাজস্থানে গরু পাচারকারী সন্দেহে মুসলিম যুবককে পিটিয়ে হত্যা ॥ গ্রেফতার ৩

নিহত আকবর খান

২২ জুলাই, ইন্টারনেট : ভারতের বিজেপিশাসিত রাজস্থানে গরু পাচারকারী সন্দেহে আকবর খান (২৮) নামে এক মুসলিম যুবককে গণপিটুনি দিয়ে হত্যা করা হয়েছে। পুলিশ এ ব্যাপারে ধর্মেন্দ্র যাদব, পরমজিৎ সিং এবং রমেশ শর্মা নামে তিনজনকে গ্রেফতার করেছে। রমেশ শর্মাকে গতকাল রোববার গ্রেফতার করা হয়েছে। 

গত শুক্রবার রাতে রাজস্থানের রামগড় জেলায় নিহত আকবর খানের বাড়ি হরিয়ানাতে। তার সঙ্গে থাকা আসলাম নামে অন্যজন ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যেতে সমর্থ হওয়ায় প্রাণে রক্ষা পেয়েছেন।

আকবর খান মৃত্যুকালীন জবানবন্দীতে বলেন, তিনি এবং আসলাম হরিয়ানার কোলগাঁও গ্রামের বাসিন্দা। দু’টি গরু কিনে শুক্রবার রাতে বাড়ি ফিরছিলেন। রামগড়ের লালাওয়ান্ডি গ্রামের কাছে তাদের উপরে আক্রমণ করে পাঁচ গ্রামবাসী। তাদেরকে কিল, চড়, লাঠি, ঘুষির পাশাপাশি বাঁশ ও লাঠি দিয়ে মারধর করা হয়।

নিহত আকবর খানের বাবা সুলেমান খান তার ছেলের হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার করে সুবিচারের দাবি জানিয়েছেন। ক্ষুব্ধ গ্রামবাসীরা আকবর খানের লাশ নিয়ে জাতীয় সড়ক অবরোধ করে দোষীদের গ্রেফতার করার দাবিতে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। অপরাধীরা গ্রেফতার না হওয়া পর্যন্ত তারা আকবর খানের লাশ দাফন করবেন না বলে জানান। রাজস্থান সরকারের পুলিশ কর্মকর্তারা উপযুক্ত পদক্ষেপ নেয়ার আশ্বাস দিলে অবশেষে তারা লাশ দাফনে সম্মত হন। 

রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজে ওই ঘটনার নিন্দা করে অপরাধীদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেয়া হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন।

গত বছর ২০১৭ সালের এপ্রিলে রাজস্থানের আলওয়ারে স্বঘোষিত গো-রক্ষকরা পহেলু খান নামে (৫৫) এক মুসলিম দুধ ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে হত্যা করেছিল।  

গত বছর ২০১৭ সালে নভেম্বরে রাজস্থানের আলওয়ার জেলার গোবিন্দগড়ে স্বঘোষিত গো-রক্ষকদের গণপিটুনিতে নিহত হয়েছিলেন ওমর খান নামে এক ব্যক্তি।

‘মোদি শাসনের চার বছর গণপিটুনি রাজ’

মজলিশ ই ইত্তেহাদুল মুসলেমিন (মিম) প্রধান ব্যারিস্টার আসাদউদ্দিন ওয়াইসি (এমপি) কেন্দ্রীয় মোদি সরকারের সমালোচনা ও কটাক্ষ করে বলেছেন, ‘গরুদের সংবিধানের ২১ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী বাঁচার মৌলিক অধিকার আছে এবং এক মুসলিমকে হত্যা করা যেতে পারে কারণ তার জীবনের মৌলিক অধিকার নেই। মোদি শাসনের চার বছর গণপিটুনি রাজ।’

রাজস্থানে সাম্প্রতিক গণপিটুনির নিন্দা করে রাজস্থান কংগ্রেস নেতা শচীন পাইলট বলেছেন, ‘বিজেপিশাসিত রাজ্যগুলোতে সন্দেহের বশে মানুষকে মারাটা নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছে।’

কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী অর্জুন রাম মেঘওয়াল অবশ্য এসব ঘটনার নেপথ্যে বিরোধী ইন্ধনের ইঙ্গিত দিয়ে বলেছেন, ‘মোদির জনপ্রিয়তা যত বাড়বে, এসব ঘটনা তত আরো বাড়বে। বিহারে নির্বাচনের সময় পুরস্কার ফেরত,  উত্তর প্রদেশে নির্বাচনের সময় গণপিটুনি, এবার ২০১৯ সালে আরও কিছু হবে।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ