ঢাকা, সোমবার 23 July 2018, ৮ শ্রাবণ ১৪২৫, ৯ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কিছু গণমাধ্যমে ছাত্রশিবিরকে জড়িয়ে মিথ্যা ভিত্তিহীন খবর প্রকাশের তীব্র নিন্দা

দৈনিক কালের কণ্ঠ, সমকাল, বাংলাদেশ প্রতিদিনসহ কিছু গণমাধ্যমে ‘সিলেটে হঠাৎ সশস্ত্র শিবির’ উল্লেখ করে ছাত্রশিবিরকে জড়িয়ে মিথ্যা ও বানোয়াট খবর প্রকাশের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির সিলেট মহানগরী শাখা।
গতকাল রোববার দেয়া যৌথ প্রতিবাদ বার্তায় ছাত্রশিবির সিলেট মহানগরী সভাপতি নজরুল ইসলাম ও  সেক্রেটারি ফরিদ আহমদ বলেন, আসন্ন সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে 'সিলেট নাগরিক  ফোরাম' মনোনীত মেয়র প্রার্থী, সিলেট মহানগর জামায়াতের আমীর এডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়েরের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। যা দেশ ও ইসলাম বিদ্ধেষীদের অন্তর্জালা সৃষ্টি করেছে। তাই সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের আমেজকে বিনষ্ট করার জন্য পরিকল্পিত ভাবে উসকানিমূলক সিন্ডিকেট অপপ্রচার শুরু করেছে কালের কণ্ঠ, সমকাল ও বাংলাদেশ প্রতিদিনের মত কিছু গণমাধ্যম। এ প্রতিবেদনগুলো যে বানোয়াট ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত তা তাদের পরস্পর বিরোধী বক্তব্যেই বুঝা যায়।
তারা বলেন, বাংলাদেশ প্রতিদিনের প্রতিবেদনে উল্লেখিত রেষ্টুরেন্টের মালিক যুবলীগ নেতা এম এ হান্নান বলেছেন, রেস্টুরেন্টে ভাংচুরের চেষ্টা করা হয়েছে। অথচ কালের কন্ঠ, সমকালে তাকেই উদ্ধৃত করে বলা হয়েছে হোটেলে সশস্ত্র হামলা ও ভাংচুর করা হয়েছে। তাহলে সত্যি কোনটি? তাছাড়া শিবিরের ৭ নং ওয়ার্ড সভাপতির নামও উল্লেখ করা হয়েছে উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবে। ওয়ার্ড সভাপতি দূরে থাক এ ঘটনার সাথে ছাত্রশিবিরের কারো দূরতম সম্পর্ক নেই। বিদ্ধেষমূলক অনৈতিক মনোভাব থেকেই কোন সুনির্দিষ্ট তথ্য প্রমাণ ছাড়া ঢালাওভাবে প্রতিবেদনে সংশ্লিষ্টদের শিবির ক্যাডার বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এই জঘন্য মিথ্যাচারের পক্ষে প্রতিবেদকরা কোন বিশ্বাসযোগ্য তথ্য প্রমাণ দিতে পারেননি। বরং নির্বাচনে শান্তিপূর্ণ প্রচার কাজে নিয়োজিতদের অনৈতিক ও কান্ডজ্ঞানহীন ভাবে ক্যাডার বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এসব পত্রিকার কান্ডজ্ঞানহীন ভাষ্য অনুযায়ী নির্বাচনে প্রচার-প্রচারণা যদি ক্যাডারদের কাজ হয় তাহলে সিলেটে সকল প্রচারণাই সন্ত্রাসীমূলক কর্মকান্ড হয়ে যায়। আসলে পরিকল্পিত বানোয়াট প্রতিবেদনের আড়ালে জামায়াত-শিবিরকে জড়িয়ে কুরুচীপূর্ণ বিদ্ধেষ ছড়ানোর অপচেষ্টা করা হচ্ছে। এ গণমাধ্যমগুলো কোন বিশেষ এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে পরিকল্পিত অপপ্রচার ও কুৎসা রটনা করে সিলেটের নির্বাচনী পরিবেশকে বিনষ্ট করতে চাইছে তাতে কোন সন্দেহ নেই। আমরা দৃঢ়ভাবে বলতে চাই, এ ঘটনার সাথে ছাত্রশিবিরের দূরতম কোন সম্পর্ক নেই। উসকানি দিয়ে পরিস্থিতি ঘোলাটে করে ঘৃণ্য রাজনৈতিক স্বার্থ হাসিল করতেই প্রতিবেদকরা এমন ভারসাম্যহীন প্রতিবেদন প্রকাশ করেছেন। এমন ঘৃন্য মিথ্যাচার কোন সাংবাদিকতার মধ্যে পড়েনা বরং এগুলো ভারসাম্যহীন নি¤œ মানের বিকৃত চিন্তার বহিঃপ্রকাশ।
নেতৃদ্বয় বলেন, সাংবাদিকতার মত একটি পবিত্র ও দায়িত্বশীল পেশাকে বরাবরই প্রশ্নবিদ্ধ করছে কিছু দলীয় মনোভাবপন্ন একপেশে সাংবাদিক। যা কোনভাবেই প্রত্যাশিত নয়। এসব সাংবাদিক নামধারীদের বুঝা উচিৎ, গণমাধ্যম থেকে জনগণ সত্য জানতে চায়, বিদ্ধেষ বা কুৎসা রটনা নয়।
নেতৃদ্বয় সত্য প্রকাশের স্বার্থে এ ধরণের মিথ্যা ও ভিত্তিহীন প্রতিবেদন প্রকাশ থেকে বিরত থাকতে সংশ্লিষ্ট প্রতিবেদক ও গণমাধ্যমের প্রতি আহ্বান জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ