ঢাকা, মঙ্গলবার 24 July 2018, ৯ শ্রাবণ ১৪২৫, ১০ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আলজিয়ার্সে মোসাদের গুপ্তহত্যার শিকার ২ ফিলিস্তিনী বিজ্ঞানী

নিহত দুই বিজ্ঞানী মোহাম্মদ আলবানা এবং ৩৪ বছর বয়সী সুলাইমান আল ফারা

২৩ জুলাই, হারেৎজ : আলজেরিয়ার একটি অ্যাপার্টমেন্টে দুই ফিলিস্তিনী চিকিৎসা বিজ্ঞানীর লাশ পাওয়া গেছে। তাদের মৃত্যুর কারণ এখনো স্পষ্ট নয়। তবে, সন্দেহ করা হচ্ছে তাদের নিহতের পিছনে ইসরাইলের গোয়েন্দা সংস্থা ‘ মোসাদ’ জড়িত থাকতে পারে। গত রোববার গাজার কয়েকটি গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে এতথ্য জানানো হয়েছে।

নিহতরা হলেন, গাজা উপত্যকর খান ইউনিসের বাসিন্দা ৩৫ বছর বয়সী মোহাম্মদ আলবানা এবং ৩৪ বছর বয়সী সুলাইমান আল ফারা।

আলজেরিয়ার রাজধানী আলজিয়ার্সের শহরতলি জেরাল্ডায় আল ফারা’র অ্যাপার্টমেন্টে তাদের মৃত অবস্থায় পাওয়া যায় বলে রিপোর্টে বলা হয়েছে। রিপোর্ট অনুযায়ী, আলজেরিয়ায় ফিলিস্তিনী দূতাবাস নিহতদের একজনের পরিবারকে জানিয়েছে, তারা গ্যাস ইনহেলেশন বা শর্ট সার্কিটের কারণে মারা যেতে পারেন।

অনেক ফিলিস্তিনী মনে করছেন, তাদেরকে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে এবং এর জন্য ইসরাইলের গোয়েন্দা সংস্থা ‘ মোসাদ’কে তারা দায়ী করছেন। তবে, আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের মৃত্যুর কারণ সম্পর্ক নিশ্চিত করে কিছু বলা হয়নি।

রবিবার আলবানা’র ভাই গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমাদের কাছে বিস্তারিত কোনো তথ্য নেই। সেখানে কি ঘটেছে তা জানাতে আলজেরিয়া এবং ফিলিস্তিনী দূতাবাস কর্তৃপক্ষ প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ গ্রহণ করবে বলে আমি আশা করি।’

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বিশ্বজুড়ে বেশ কয়েকজন ফিলিস্তিনী বিজ্ঞানী ও বিশেষজ্ঞ গুপ্ত হত্যার শিকার হয়েছেন। এসব হত্যাকা-ের পিছনে ইসরাইলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের গুপ্তচরদের হাত রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

গত এপ্রিল মাসে মালয়েশিয়ার একটি মসজিদে প্রবেশের সময় হামাসের একজন সদস্য ইঞ্জিনিয়ার ফাদি আল-বাথকে হত্যা করা হয়। নিহতের পরিবার এবং ফিলিস্তিনী কর্তৃপক্ষ এই হত্যার জন্য মোসাদ দায়ী করে। মালয়েশিয়া কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল, তার হত্যার পিছনে ‘বিদেশী এজেন্ট’ জড়িত ছিল।

দুই বছর আগে হামাসের ড্রোন বিশেষজ্ঞ মোহাম্মদ জাওয়াহিরিকে তিউনিশিয়ায় হত্যা করা হয়েছিল। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ