ঢাকা, মঙ্গলবার 24 July 2018, ৯ শ্রাবণ ১৪২৫, ১০ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

চলন্তিকা যুব সোসাইটির সম্পত্তি থেকে গ্রাহকদের অর্থ ফেরত দাবি

খুলনা অফিস : চলন্তিকা যুব সোসাইটি ৫০ সহস্রাধিক গ্রাহকের শতাধিক কোটি টাকা আত্মসাত করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ক্ষতিগ্রস্ত গ্রাহকরা এতে বিক্ষুব্ধ হয়ে অন্তত ৪০টি মামলা দায়ের করেছেন। খুলনা প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলনে চলন্তিকা গ্রাহক সংগ্রাম পরিষদের সদস্য সচিব আলমগীর হোসাইন এ সব তথ্য জানান।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ২০০৪ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত বটিয়াঘাটা, চালনা ও ফুলবাড়ী এলাকায় চলন্তিকা যুব সোসাইটির মাঠকর্মীরা দৈনিক ও মাসিক সঞ্চয়, পিএস/পিএসসি’র মাধ্যমে অন্তত আট কোটি টাকা গ্রহণ করে। গত ২৫ মার্চ থেকে সকল কার্যক্রম বন্ধ হওয়ায় চলন্তিকার কর্মকর্তারা আত্মগোপন করে। এছাড়া ফুলতলা, রূপসা, ডুমুরিয়া, ফকিরহাট, রামপাল, নড়াইল, কালিয়া, গোপালগঞ্জ, সাতক্ষীরা ও বাগেরহাট থেকে একশ’ কোটি টাকা আত্মসাত করেছে। গ্রাহকদের টাকায় চলন্তিকা যুব সোসাইটি নামে বিভিন্ন স্থানে সম্পত্তি ক্রয় করে।
গ্রাহকদের এসব অর্থ ফেরত না দেয়ায় চলন্তিকা যুব সোসাইটির চেয়ারম্যান খবিরুজ্জামান, নির্বাহী পরিচালক সরোয়ার হোসেনসহ অন্যদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। সর্বশেষ রোববার ৮ কোটি টাকার মানিসুট মামলা দায়ের করা হয়েছে আদালতে। অবিলম্বে সাধারণ গ্রাহকদের অর্থে ক্রয়কৃত সমস্ত সম্পত্তি, ভবন, ব্যাংকে সঞ্চিত অর্থ ও তাদের স্ত্রী-কন্যাসহ নিকট আত্মীয়-স্বজনদের নামে ক্রয়কৃত সম্পদ বিক্রয় বন্ধের দাবি জানিয়েছেন। একই সাথে ক্ষতিগ্রস্ত গ্রাহকদের অর্থ ফেরতের দাবি জানানো হয়। সাংবাদিক সম্মেলনে অর্ধশতাধিক ক্ষতিগ্রস্ত গ্রাহক উপস্থিত ছিলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ