ঢাকা, মঙ্গলবার 24 July 2018, ৯ শ্রাবণ ১৪২৫, ১০ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

নরসিংদী-২ (পলাশ) আ’লীগে মনোনয়ন প্রত্যাশী ৩ বিএনপি জামায়াত ও জাপা একক

পলাশে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনী হালচাল

পলাশ (নরসিংদী), মোঃ মোবারক হোসেন: চারটি ইউনিয়ন ও সদর উপজেলার তিন ইউনিয়ন ও একটি প্রথম শ্রেণীর পৌর সভা নিয়ে গঠিত শিল্প শহর নরসিংদী-২  পলাশ নির্বাচনী আসন। এ আসনের বর্তমান স্বতন্ত্র¿ সাংসদ কামরুল আশরাফ খান পোটন। তিনি দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে এ আসন থেকে এমপি নির্বাচিত হয়েছেন। তারই আপন বড় ভাই পলাশ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ডাঃআনোয়ারুল আশরাফ খান ২০০৮ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের টিকেটে এমপি নির্বাচিত হয়েছিলেন। পরবর্তীতে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারী নির্বাচনে তিনি আওয়ামী লীগের থেকে টিকিট পাননি। ফলে তার ছোট ভাই কামরুল আশরাফ খাঁন পোটন স্বতন্ত্র প্রার্থী হলে ভেতরে ভেতরে রক্তের টানে ভাইকেই সমর্থন করেছিলেন বলে আভাস পাওয়া গিয়েছিল। এবার বর্তমান সাংসদ সাবেক সাংসদকেই সমর্থন করবে বলে জানা গেছে। তবে উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় দুই ভাইয়েরই দুইটি গ্রুপ আছে বলে সূত্রে  জানা যায়। যার যার গ্রুপের লোকজন তাকেই এমপি হিসেবে দেখতে চায় বলে মনে করেন নাম প্রকাশ না করার শর্তে আওয়ামী লীগের একধিক নেতা। এ আসনের ২০১৪ সালে আওয়ামী লীগের টিকিট নিয়ে নির্বাচন করেছিলেন ১৪ দলিয় জোটের অন্যতম শরীক জাসদের জেলা সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির আর্ন্তজাতিক বিষয়ক সম্পাদক জায়েদুল কবির মিয়া এবারও তিনি টিকিট নিতে মরিয়া । বিভিন্ন সভা সমাবেশ মিছিল শো-ডাউন করে এমনকি বাংলাদেশ জাসদের সভাপতি ও তথ্য মন্ত্রী হাসানুল হক ইনুকে এলাকায় এনেও সভা সমাবেশ করছেন এমনটিই দেখা গেছে। এদিকে পলাশ তথা বাংলাদেশের গর্ব ব্রিটিশের ২২ পরিবারের এক পরিবারের সন্তান দৈনিক সংবাদের প্রতিষ্ঠাতা আহম্মদুল কবির ( মনু মিয়ার) সুযোগ্য উত্তর সুরি আলতামাশ কবির (মিশু) তিনিও ঈদের শুভেচ্ছা ও ঘরোয়া মিটিং মিছিল করে নির্বাচন করবেন বলে জানান দিয়েছেন। আওয়ামী লীগের টিকিটে তিনি নির্বাচন করবেন বলে নৌকার পোষ্টার ব্যানার করে ভোট চাইছেন।এনিয়ে জনমনে বিভ্রান্তি,শেষ পর্যন্ত আঃলীগের টিকিটে কে হবেন নৌকার মাঝি কেইবা ধরবেন নৌকার হাল সেটিই এখন দেখার বিষয়।এলাকার জনগণের মুখ থেকে আরও জানা যায় পলাশে আঃলীগ এখন এক পরিবারে জিম্মি, তাই জিম্মি দশা থেকে আঃলীগ তথা শেখ হাসিনার নৌকাকে মুক্ত করতে আঃলীগের প্রবীণ ত্যাগী নেতাসহ সাধারণ জনগন ঐক্যমত্যের ভিত্তিতেই কাজ করবে  এবার।
পলাশে বিএনপির শক্ত ঘাটি হিসেবে পরিচিত রয়েছে সেই ১৯৭৭ সাল থেকেই, তখন প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ঘনিষ্ট সহচর বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য এবং তৎকালীন সফলখাদ্য মন্ত্রী তথা নরসিংদীর গর্ব মরহুম আবদুল মোমেন খান এর সুযোগ্য উত্তরসুরী হেভীওয়েট তিন বারের সফল এমপি স্থায়ী কমিটির সদস্য সাবেক মন্ত্রী ডঃ আবদুল মঈন খান ২০০৮ সালে ফকরউদ্দিন মঈনুদ্দিনের তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে আঃলীগ সমর্থিত নৌকার প্রার্থীর কাছে পরাজিত হন। তারপর থেকে তিনি এলাকায় সভা, সমাবেশ মিটিং করতে গিয়ে কিছুটা বাধা বিপত্তির শিকার হলেও এখন আর সেই পরিস্থিতি নেই বল্লেই চলে, প্রায়ই তিনি এলাকায় আসেন নেতা কর্মীদের  সাথে যোগাযোগ গণ সংযোগ এবং সভা সমাবেশ করছেন। প্রবীন সাধারণ জনগণ বলছেন মঈন খান সৎচরিত্র, সুশিক্ষিত, ধার্মিক, ন্যায়পরায়ণ এবং তার বাবাও মন্ত্রী ছিলেন সেই হিসেবে তিনি মন্ত্রির ঘরের মন্ত্রী। আমরা তাকেই ভোট দিয়ে আবারও পূর্ণ মন্ত্রী হিসাবে দেখতে চাই এমনটিই প্রত্যাশা অনেকের।
পলাশ উপজেলা বিএনপির সভাপতি এরফান আলী ও সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর সাইফুল হক বলেন, পলাশে এখনও বিএনপির শক্ত ঘাঁটি রয়েছে।অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন হলে দেখা যাবে এর প্রমাণ এবং  ডঃ আবদুল মঈন খান দলীয় একক প্রার্থী বলে জানা যায়। তবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ব্যাপারে ডঃ আবদুল মঈন খানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, দেশের এবং আমাদের এই পরিস্থিতিতে আমরা নির্বাচনে যাবো কিনা সেটি এখন প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে। পরিবেশ পরিস্থিতি বিবেচনা করে দলীয় ভাবে আমরা সিদ্ধান্ত নেবো। এদিকে এরশাদের সহচর  আজম খান জাতীয় পার্টির একক প্রার্থী ঃআশির দশকে জাতীয় পার্টির যখন ভরা যৌবন তখন এ আসন থেকে এম.পি নির্বাচিত হয়েছিলেন এডভোকেট দেলোয়ার হোসেন খান। পলাশে রাজনৈতিক মাঠে জাতীয় পার্টি ছিল শক্ত অবস্থানে। দুঃখ জনক হলেও সত্য যে, কিছু সাংগঠনিক দুর্বলতা অধিকাংশ নেতা কর্মী ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের সঙ্গে লিয়াজু রাখায় কিছু কিছু নেতা কর্মীরা নানাবিধ কারনে এখন আর সেই অবস্থানে নেই। প্রেসিডিয়াম সদস্য ও এরশাদের ঘনিষ্ঠ সহচর সংগ্রামী ও সাহসী নের্তৃত্বে আবার সেই অবস্থানে যেতে আজম খান এ আসন থেকে নির্বাচন করার ঘোষনা দেওয়ায় নেতা কর্মীদের মাঝে প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে। তিনি জানান জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেঈন মোহাম্মদ এরশাদ এর নির্দেশে পলাশে জাতীয় পার্টির একক প্রার্থী হিসেবে তিনি এ আসন থেকে নির্বাচন করবেন। পলাশ উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি জাকির হোসেন মৃধা ও যুব সংহতির সভাপতি সাংবাদিক মঞ্জুর হোসেন খান বলেন সব বাধা বিপত্তি কাটিয়ে আজম খানের নের্তৃত্বে জাতীয় পার্টি আবারও শক্ত অবস্থানে ফিরে আসবে এই প্রত্যাশা সচেতন মহলের।
বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর একক প্রার্থী উপাধ্যক্ষ মাওলানা আমজাদ হোসাঈন: বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীকে ক্ষমতাসীন দল চক্ষুসূল মনে করলেও প্রকৃত পক্ষে এ দলটিকে জনগণের কাছ থেকে দূরে সরাতে পারেনি। এ অবস্থার মধ্যেও পলাশে জামায়াতে ইসলামির শক্ত অবস্থান রয়েছে বলে মনে করেন উপজেলা জামায়াতের নের্তৃবৃন্দ। সুষ্ঠ নির্বাচন হলে এর প্রমাণ মিলবে। এ আসন থেকে ত্যাগী নেতা নরসিংদী জেলা জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারী উপাধ্যক্ষ মাও: আমজাদ হোসাঈন দলীয় সিদ্ধান্তে জামায়াতের একক প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবেন বলে জানা গেছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ