ঢাকা, মঙ্গলবার 24 July 2018, ৯ শ্রাবণ ১৪২৫, ১০ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

নিখোঁজের একদিন পর মেঘনায় প্রাপ্তির লাশ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সংবাদদাতা: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ উপজেলার মেঘনা নদীতে সেলফি তোলার সময় নিখোঁজ হওয়া ঢাকার নটরডেম বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থীর মধ্যে তানজিবা বিনতে তানভীর প্রাপ্তির-(২১) লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গত রোববার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মেঘনা নদীর জিটিসিএলের কাছ থেকে ভাসমান অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করা হয়। তবে এখনো অপর শিক্ষার্থী ইশরাকুল মেহরাবের-(২২)  কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি। নিহত প্রাপ্তি ঢাকার লক্ষ্মীবাজার এলাকার তানভীর আহমেদের মেয়ে। তিনি নটরডেম বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। আশুগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মেজবাহ্ আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, সকাল থেকেই ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল নিখোঁজ দুই শিক্ষার্থীর সন্ধ্যানে নদীতে নামে। পরে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে আশুগঞ্জের জিটিসিএল এবং ভৈরব কাঠপট্টি এলাকার মাঝামাঝি স্থান থেকে ভাসমান অবস্থায় প্রাপ্তির লাশ পাওয়া যায়। এর আগে গত শনিবার সকালে ঢাকা থেকে প্রাপ্তি ও ইশরাকুলসহ নটরডেম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাত শিক্ষার্থী কিশোরগঞ্জে ভৈরবে ঘুরতে আসেন। সারাদিন তারা ভৈরব রেলসেতু ও আশপাশ এলাকা ঘুরে বিকেলে নৌকা নিয়ে আশুগঞ্জের মেঘনা নদীর চরসোনারামপুর চরে যান। সেখানে গিয়ে নদীতে নেমে সেলফি তোলার সময় প্রাপ্তি ডুবে যায়। তাকে বাঁচাতে ইশরাকুলও নদীতে নেমে ডুবে যান। এ সময় তাদের অন্যান্য সহপাঠিরা তাদের উদ্ধারের চেষ্টা করছিলেন। তবে  তারা কেউ সাঁতার না জানার কারণে পানিতে নামেননি। খবর পেয়ে ভৈরব ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দলের সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসে পাঁচ শিক্ষার্থীকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে যায় এবং নিখোঁজ দুই শিক্ষার্থীকে উদ্ধার অভিযান শুরু করেন রাত ৮টার দিকে নদীতে  প্রবল স্্েরাতের কারনে উদ্ধার অভিযান বন্ধ রাখা হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ