ঢাকা, বুধবার 25 July 2018,১০ শ্রাবণ ১৪২৫, ১১ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ও’ইন্ডিজ সফর দিয়ে জাতীয় দলে নিয়মিত হতে চান আরিফুল

স্পোর্টস রিপোর্টার : বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলে এখনও নিজের জায়গাটি পাকাপোক্ত করতে পারেন নি তরুণ টাইগার অলরাউন্ডার আরিফুল হক। টেস্ট, ওয়ানডেতে এখনও ডাক পাননি। তবে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে কয়েকটি ম্যাচ খেলেছেন। কিন্তু ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ততম এই সংস্করণেও নির্বাচকদের আস্থার প্রতীক হয়ে উঠতে পারেননি। গেল ফেব্রুয়ারিতে ঘরের মাঠে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে আরিফুলের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয়। সবশেষ খেলেছেন গত মে মাসে দেরাদুনে, আফগানিস্তানের বিপক্ষে। স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আসন্ন টি-টোয়েন্টি সিরিজে তাকে নির্বাচকরা দলে ডেকেছেন। আর এই সিরিজ দিয়েই জাতীয় দলে নিজের জায়গাটি স্থায়ী করে নিতে চাইছেন এই টাইগার মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান। ‘আমি এখনো জাতীয় দলে নিয়মিত ক্রিকেটার হতে পারিনি। তাই আসন্ন সিরিজে পারফর্ম করে জাতীয় দলে জায়গা পাকা করার চেষ্টা থাকবে।’ গতকাল মঙ্গলবার মিরপুরে হোম অব ক্রিকেট তিনি এ প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে তার দলে জায়গা পাওয়া মোটেও সহজ ছিল না। নিজের সামর্থ্যরে প্রমাণ দিতে হয়েছে শতভাগ। সদ্য সমাপ্ত 'এ' দলের ওয়ানডে সিরিজে তিনি কিছুটা দেখিয়েছেনও। গেল ১৭ জুলাই সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সফরকারী লঙ্কানদের বিপক্ষে ২২ বলে করেছেন ৪৭ রান। বল হাতে উইকেটও পেয়েছেন ২টি। এমন পারফরম্যান্সই ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে খেলার পথটি সুগম করেছে বলে মত আরিফুলের। ‘শ্রীলঙ্কা দলের দিকে তাকালে দেখবেন ওদের দলে বেশীরভাগ ক্রিকেটার জাতীয় দলে খেলে এসেছে। তাই এমন দলের সাথে ভালো খেলাতে নিজের আত্মবিশ্বাস বেড়েছে। এই জন্যই আমি মনে করি আমাকে সুযোগ দিলে আমি আমার সেরাটা দিতে পারব।' আরিফুল নিজেকে প্রমাণ করে তবেই আসন্ন এই সিরিজের দলে ডাক পেয়েছেন এবং একাদশে সুযোগ পেলে নিজের সেরাটি দিয়ে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দিতে চান। কিন্তু ক্রিস গেইলদের বিপক্ষে আসলেই কাজটি কঠিন। এমন প্রশ্নে বেশ আত্মবিশ্বাসী তিনি। আত্মবিশ্বাসটা পেয়েছেন তিনি দলটির বিপক্ষে মাশরাফিদের প্রথম ওয়ানডের জয় দেখে। 'টি- টোয়েন্টিতে বিশ্বের অন্যতম সেরা দল ওয়েস্ট ইন্ডিজ, এতে কোন সন্দেহ নেই। কিন্তু এটা ক্রিকেট, আমরা অনেকে চিন্তাও করি নি প্রথম ওয়ানডে ম্যাচে এত বড় জয় পাব। আসলে ক্রিকেটে সব কিছুই সম্ভব। যেদিন যে ভালো খেলবে সেদিন সে জিতবে। আমাদেরও একই রকম চিন্তা থাকবে, আমরা যদি দিনটা নিজেদের করে নিতে পারি তাহলে অবশ্যই ওদের হারিয়ে দিতে পারব।’ আগামি ৩১ জুলাই ওয়ার্নার পার্কে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে মোকাবিলা করবে স্বাগতিক ও সফরকারী দুই দল। দ্বিতীয়টি ৪ আগস্ট ফ্লোরিডার সেন্ট্রাল ব্রোওয়ার্ড রিজিওনাল পার্কে। ৫ আগস্ট একই ভেন্যুতে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ