ঢাকা, বুধবার 25 July 2018,১০ শ্রাবণ ১৪২৫, ১১ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

দু’স্থানে বন্দুকযুদ্ধে তিনজন নিহত

যশোর সংবাদদাতা : যশোরের মণিরামপুরে গুলীবিদ্ধ অজ্ঞাত দুই ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার রাত দুইটার দিকে পুলেরহাট-রাজগঞ্জ সড়কের গাঙ্গুলিয়া জামতলা রাস্তার দুই পাশ থেকে মনিরামপুর থানার পুলিশ লাশ দুইটি উদ্ধার করে। মঙ্গলবার ভোর ছয়টার দিকে পুলিশ লাশ দু’টি যশোর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।
ঘটনাস্থল থেকে চারটি দা, দুটি রশি ও একটি করাত উদ্ধারের দাবি করে পুলিশ বলছে, দুই দল ডাকাতের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধে এরা নিহত হয়েছেন।
নিহত দুইজনের মধ্যে একজনের বয়স ৫৫ বছর। তার পরনে শার্ট প্যান্ট রয়েছে। অপরজনের বয়স হবে ৪৫ বছর। তার পরনে আছে শার্ট-লুঙি। এদের মাথায় একটি করে গুলীর চিহ্ন রয়েছে।
মণিরামপুর থানার ওসি মোকাররম হোসেন বলেন, ‘রাত দুইটার দিকে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা সাতক্ষীরাগামী একটি বাস পুলিশ পাহারায় পার করে দিয়ে আসার পর গাঙ্গুলিয়া আমতলা মোড়ে এলে গুলীর শব্দ শুনতে পান খেদাপাড়া ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই আইনুদ্দিন। তখন তিনি রোহিতা বাজারের দিকে খানিকটা এগিয়ে দেখেন কিছু লোক পালিয়ে যাচ্ছে। এসময় ঘটনাস্থলে রাস্তার দুই পাশে দুটি লাশ পড়ে থাকতে দেখে আমাকে বিষয়টি জানান আইনুদ্দিন। পরে থানা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে লাশ দুটি উদ্ধার করে সকাল ছয়টার দিকে মর্গে পাঠিয়েছে।’
ওসি মোকাররমের দাবি, ঘটনাস্থল থেকে চারটি দা, দুটি রশি ও একটি করাত উদ্ধার হয়েছে। দুই দল ডাকাতের মধ্যে গোলাগুলীতে এরা নিহত হয়েছেন বলে ওসির ধারণা।
এরআগে চলতি মাসের ১১ তারিখ সকালে একই স্থান থেকে যশোরের হাশিমপুরের বাবলুর রহমান বাবলা (২৬) নামের এক যুবকের লাশ উদ্ধার হয়েছিল।
সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) সংবাদদাতা ঃ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার চেঙ্গাকান্দি গ্রামে মঙ্গলবার ভোরে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে আলমগীর হোসেন নামে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। এ সময় দুই র‌্যাবের সদস্য আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র গুলী ও ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করেছে র‌্যাব।
র‌্যাব ১১ এর এএসপি বিল্লাল হোসেন জানান, মঙ্গলবার ভোরে মাদক বিরোধী অভিযান চালানোর সময় সোনারগাঁয়ের পিরোজপুর ইউনিয়নের চেঙ্গাকান্দি গ্রামের মাথায় ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের পাশে পরিত্যক্ত স’মিল থেকে মাদক ব্যবসায়ী আলমগীর ও তার সহযোগীরা র‌্যাবের উপর হামলা ও গুলী চালায়। তখন র‌্যাবও পাল্টা গুলী ছুড়লে ঘটনাস্থলেই নিহত হয় আলমগীর। এসময় র‌্যাবের ১১ এর হাবিলদার হাবিবুর রহমান ও কনস্টেবল মিজান তালুকদার আহত হন।
তিনি আরো জানান, নিহত আলমগীর উপজেলার কাঁচপুর ইউনিয়নের বেপারীপাড়া এলাকার মৃত মানিক মিয়ার ছেলে। সে পুলিশ ও র‌্যাবের তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে সোনারগাঁ ও সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় বিভিন্ন অপরাধে ১৮ টি মামলা রয়েছে। এর মধ্যে ১০টি মাদকের মামলা রয়েছে। এ সময় কাছ থেকে ১টি বিদেশী পিস্তল, দুই রাউন্ড গুলী ও ১৫শ পিছ ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়েছে।
এ ঘটনায় সোনারগাঁ থানা বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ