ঢাকা, বুধবার 25 July 2018,১০ শ্রাবণ ১৪২৫, ১১ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

দিনের শুরু উত্থানে শেষ পতনে

স্টাফ রিপোর্টার: শেয়ারবাজারে লেনদেন শুরু হয় উত্থান দিয়ে। কিন্তু দিন শেষে পতন হয়েছে। দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সবকটি মূল্যসূচকের পতন হয়েছে। একইসাথে কমেছে লেনদেনের পরিমাণ।
গতকাল মঙ্গলবার মূল্যসূচকের বড় উত্থানে ডিএসইতে লেনদেন শুরু হয়। লেনদেন শুরুর প্রথম ১০ মিনিটেই ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স প্রায় ৩০ পয়েন্ট বেড়ে যায়। সূচকের এ ঊর্ধ্বমুখীতা প্রথম আধাঘণ্টা অব্যাহত থাকে। কিন্তু বেলা ১১টার পর টানা নিম্নমুখী হতে থাকে যা দিনের শেষ পর্যন্ত অব্যাহত ছিল। ফলে পতনের মাধ্যমেই দিনের লেনদেন শেষ হয়। পতন ঠেকাতে এদিন কোনো ভূমিকাই রাখতে পারেনি ব্যাংক খাত। বরং অন্য খাতের মতো বেশিরভাগ ব্যাংকের শেয়ারের দাম কমেছে। লেনদেনে অংশ নেয়া ব্যাংকের মধ্যে ১৪টির দাম কমেছে। বিপরীতে দাম বেড়েছে ১১টির। আর সব খাত মিলে ১১৩টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমার তালিকায় স্থান করে নিয়েছে ১৮৫টি। আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৮টির দাম।
বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের দাম কমায় ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ১২ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ৩৩৫ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। অপর দু’টি মূল্যসূচকের মধ্যে ডিএসই-৩০ আগের দিনের তুলনায় ৪ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৯১৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে। তবে ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক ৫ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ২৬৮ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।
এদিকে মঙ্গলবার ডিএসইতে মোট ৭১৬ কোটি ৬১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আগের দিন লেনদেন হয় ৮৭৩ কোটি ১১ লাখ টাকার শেয়ার। সে হিসাবে লেনদেন কমেছে ১৫৬ কোটি ৫১ লাখ টাকা।
টাকার অংকে ডিএসইতে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে বিবিএস কেবলসের শেয়ার। কোম্পানিটির মোট ২৯ কোটি ৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা নাহি অ্যালুমিনিয়ামের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ২৪ কোটি ৯৭ লাখ টাকার। আর ২১ কোটি ৭৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে কেডিএস এক্সেসরিজ। লেনদেনে এরপর রয়েছে- পেনিনসুলা চিটাগাং, বসুন্ধরা পেপার, আইসিটি, আমান ফিড, ড্রাগন সোয়েটার, প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল এবং মুন্নু সিরামিক।
অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সার্বিক মূল্যসূচক সিএসসিএক্স ৪৬ পয়েন্ট কমে ৯ হাজার ৯৪২ পয়েন্টে অবস্থান করছে। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৩৯ কোটি ১৬ লাখ টাকার শেয়ার। লেনদেন হওয়া ২৫০টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৭৯টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১৪৫টির। আর অপরিবর্তিত রয়েছে ২৬টির দাম।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ