ঢাকা, বুধবার 25 July 2018,১০ শ্রাবণ ১৪২৫, ১১ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কেশবপুরে এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ

কেশবপুর (যশোর) সংবাদদাতা : কেশবপুরে এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনা ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে ওই গৃহবধূর গলায় ওড়না পেচিয়ে ঘরের আড়ার সাথে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা করেছে বলে স্বামীর পরিবারের পক্ষ থেকে এলাকায় প্রচারণা চালানো হচ্ছে । পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে।
জানা গেছে, উপজেলার বরনডালি গ্রামের আকাম দপ্তরির মেয়ে রহিমা খাতুন (২৫) প্রায় তিন চার বছর ঢাকাতে একটি গার্মেন্টসে চাকরি করতেন। চাকরি করাকালীন সময়ে প্রায় তিন বছর পূর্বে একই গ্রামের মৃত মাওলা বক্সের ছেলে রুস্তম আলী ওই মেয়ের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। এরপর বিয়ের কথা বলে রুস্তম আলী ওই মেয়ের কাছ থেকে কৌশলে তার বেতনের টাকা আত্মসাত করে নেয়। এ ঘটনা জানাজানি হলে মেয়ে পক্ষের চাপে গত প্রায় ছয় মাস পূর্বে তাদের বিবাহ হয়। বিয়ের পর থেকেই রুস্তম আলী বিভিন্ন সময়ে রহিমা খাতুনের উপর নির্যাতন চালিয়ে আসছে। নির্যাতন সহ্য করতে না পেয়ে রহিমা খাতুন তার দেয়া টাকা ফেরৎ চাইতে থাকে। একপর্যায়ে সোমবার রাতে রুস্তম আলী রহিমা খাতুনকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। ঘটনা ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে ঘরের আড়ার সাথে লাশ ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা করেছে বলে এলাকায় প্রচারণা চালানো হয়। খবর পেয়ে পুলিশ মঙ্গলবার সকালে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্যে মর্গে প্রেরণ করেছে। এ বিষয়ে কেশবপুর থানার ওসি তদন্ত শাহজাহান আহমেদ জানান, ওই গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তাঁর গলায় রক্ত জমাট বদ্ধছিল। মৃত্যু সন্দেহজনক হওয়ায় লাশ মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ গঠনায় থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ