ঢাকা, বৃহস্পতিবার 26 July 2018,১১ শ্রাবণ ১৪২৫, ১২ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আধ্যাত্মিক রাজধানী পূণ্যভুমি সিলেটের পবিত্রতা রক্ষায় টেবিল ঘড়িতে ভোট দিন -এডভোকেট জুবায়ের

সিলেটের শীর্ষস্থানীয় ওলামা-মাশায়েখদের নেতৃত্বে নগরীর বন্দরবাজার এলাকায় টেবিল ঘড়ি মার্কার সমর্থনে গণসংযোগ করছেন নাগরিক ফোরাম মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী এডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়ের

সিলেট ব্যুরো : সিলেট সিটি নির্বাচনে সিলেট নাগরিক ফোরাম মনোনীত মেয়র প্রার্থী এডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়ের বলেছেন, সিলেট হচ্ছে দেশের আধ্যাত্মিক রাজধানী। এখানে চিরনিদ্রায় শায়িত আছেন হজরত শাহজালাল (র.), হজরত শাহপরাণসহ (র.) ৩৬০ আউলিয়া। সিলেট নগরীতে বিগত দিনে বিভিন্ন ক্ষেত্রে কিছুটা অবকাঠামোগত উন্নয়ন হলেও নগরীর পবিত্রতা রক্ষায় তেমন উদ্যোগ চোখে পড়েনি। নগরীতে মাদক ও অবৈধ ব্যবসা যুব সমাজকে নৈতিক অবক্ষয়ের দিকে নিয়ে যাচ্ছে। আধ্যাত্মিক ও পর্যটন নগরী গড়ে তুলতে হলে মাদক ও অবৈধ ব্যবসাকে নির্মূল করতে হবে। সিলেটের মানুষ ধর্মপরায়ণ। তাই জাতির কা-ারী আলেম উলামাদের নিয়ে আধ্যাত্মিক নগরীর পবিত্রতা রক্ষায় আমার সর্বাত্মক প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে ইনশাআল্লাহ।
তিনি গতকাল বুধবার টেবিল ঘড়ি মার্কার সমর্থনে উলামা-মাশায়েখদের নেতৃত্বে নগরীর বন্দরবাজার থেকে জিন্দাবাজার, চৌহাট্রা আম্বরখানাসহ বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগকালে উপরোক্ত কথা বলেন। এসময় সিলেটের শীর্ষ স্থানীয় উলামা মাশায়েখগণ উপস্থিত ছিলেন। তারা সৎ, যোগ্য ও নীতিবান মানুষ হিসেবে সিসিক নির্বাচনে মেয়র পদে এডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়েরেক টেবিল ঘড়ি মার্কায় ভোট দিয়ে বিজয়ী করার জন্য নগরবাসীর প্রতি আহ্বান জানান।
গণসংযোগকালে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- বিশিষ্ট আলেমে দ্বীন প্রিন্সিপাল মাওলানা লুৎফুর রহমান হুমায়দী, ইসলামী ঐক্যজোটের কেন্দ্রীয় সহকারী মহাসচিব প্রিন্সিপাল মাওলানা জহুরুল হক, নেজামে ইসলাম পার্টি সিলেট জেলা সভাপতি ক্বারী আবু ইউসুফ চৌধুরী, আনজুমানে খেদমতে কুরআন সিলেটের সেক্রেটারি হাফিজ মিফতাহুদ্দীন, আলেমে দ্বীন মাওলানা আবুল কাশেম চৌধুরী, মাওলানা সৈয়দ নাসির উদ্দিন, প্রিন্সিপাল মাওলানা সাদিক সিকান্দার, মাওলানা মাহমুদুর রহমান দিলাওয়ার, মাওলানা মুজিবুর রহমান বলাউড়ী, হাফিজ মাওলানা বদরুল হক, হাফিজ মাওলানা মুজিবুর রহমান, মাওলানা ড. এএইচএম সুলায়মান, মাওলানা ওলীউর রহমান সিরাজী, মাওলানা জামাল আহমদ, মাওলানা জয়নাল আবেদীন, মাওলানা আব্দুন নুর, মুফতী মাওলানা আব্দুল হক, মাওলানা আনিসুর রহমান, মাওলানা শামসুল ইসলাম, ক্বারী আহমেদুর রহমান প্রমুখ।

গণসংযোগকালে আরিফুল হক
১৭ বছর নয়, ইচ্ছা থাকলে দুই
বছরেও নগরবাসীর সেবা করা যায়
সিলেট ব্যুরো : বিএনপি মনোনীত মেয়রপ্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী বলেছেন, উন্নয়নের জন্যই নগরীবাসী আমাকে মেয়র নির্বাচিত করেছিলেন। কিন্তু তিনটি বছর আমার থেকে কেড়ে নেওয়া হল। যার কারণে নগরীর সার্বিক উন্নয়ন পুরোপুরি নিশ্চিৎ করা যায়নি। তবুও যেটুকু সময় পেয়েছি নগরীর উন্নয়ন করেছি। আমি আমার কাজের মাধ্যমে প্রমাণ করেছি, প্রবল ইচ্ছা ও আন্তরিকতা থাকলে ১৭ বছর নয়, দুই বছরেও নগরবাসীর সেবা করা যায়।
গতকাল বুধবার সকালে নগরীর আরামবাগস্থ আমান উল্লাহ কনভেনশন সেন্টার হয়ে খরাদি পাড়া, মণিপুরী পাড়া, শিবগঞ্জস্থ লামাপাড়া, গোলাপবাগ, সবুজবাগ, টিলাগড়স্থ শাপলাবাগ, রাজপাড়া, বোরহান উদ্দিন রোড এবং গোপাল টিলায় গণসংযোগকালে তিনি এ কথা বলেন।
গণসংযোগে অংশ নেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. সাখাওয়াত হাসান জীবন, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা আব্দুল মালিক চৌধুরী, মহানগর সভাপতি মাওলানা খলিলুর রহমান, সহ সভাপতি প্রিন্সিপাল মাওলানা মাহমুদুল হাসান, মহানগর খেলাফত মজলিসের সহ সভাপতি আব্দুল হান্নান তাপাদার, সিলেট মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি সুদীপ রঞ্জন সেন বাপ্পু, মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক মুফতি নেহাল উদ্দিন, সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির পরিচালক আমিরুজ্জামান চৌধুরী। ডা. সাখাওয়াত হাসান জীবন বলেন, আরিফুল হক চৌধুরী নগরবাসীর উন্নয়নে যা করেছেন, তিনি যদি তাঁর দায়িত্বকালের পাঁচটি বছর পেতেন তবে সিলেট নগরীর চেহারা একেবারে পাল্টে দিতেন। অল্প সময়ে এমন উন্নয়ন দেশের ইতিহাসে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। তাঁর কাজের মাধ্যমে মানুষের ভালোবাসা অর্জন করেছেন। তাঁেক আপনারা আবার নির্বাচিত করে আপনাদের সেবা করার সুযোগ করে দিবেন বলে আমাদের প্রত্যাশা। ইতোমধ্যে তাঁর প্রতি আপনাদের ভালোবাসা আমাকে সেই বিশ্বাস দিয়েছে। এছাড়া রাজপাড়ায় এবং গোপালটিলায় গণসংযোগকালে আরিফুল হক চৌধুরী’র সাথে জাতীয়তাবাদী সামাজিক সাংস্কৃতিক সংস্থা (জাসাস)-এর কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন। ধানের শীষের সমর্থনে মাঠে নামেন বিশিষ্ট চিত্র পরিচালক ও বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা গাজী মাজহারুল আনোয়ার, জাসাস-এর সাধারণ সম্পাদক চিত্রনায়ক হেলাল খান, সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন রোকন, সহ সভাপতি চিত্রনায়িকা শাহরিয়ার ইসলাম শায়লা, চিত্রনায়িকা শাহিনূর, শেখ রুনা, মহানগর জাসাস-এর সাধারণ সম্পাদক তাজ উদ্দিন মাসুম, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ হারুন, এ এস এম আব্দুল্লাহ আরিফ, জহির হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক রায়হান এইচ খান, জেলা সেক্রেটারি জয়নাল আহমদ রানু প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ