ঢাকা, বৃহস্পতিবার 26 July 2018,১১ শ্রাবণ ১৪২৫, ১২ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ইসির সাথে আ’লীগের বৈঠক

স্টাফ রিপোর্টার : আগামী ৩০ জুলাই তিন সিটির নির্বাচন নিয়ে কমিশনের (ইসি) সাথে বৈঠকে করেছে আওয়ামী লীগের একটি প্রতিনিধি দল। এ সময় প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমাম বলেছেন, নির্বাচন কমিশনকে সহায়তা করতে এসেছি। গতকাল বুধবার বিকেল সাড়ে ৩ টায় আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদার কার্যালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
সিইসির সাথে অনুষ্ঠিত বৈঠকে এ সময় উপস্থিত ছিলেন নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার, মো. রফিকুল ইসলাম, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদাত হোসেন চৌধুরী ও ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ। আওয়ামী লীগের পাঁচ সদস্যের প্রতিনিধি দলের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন-এইচ টি ইমাম, রশিদুল আলম, ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, ড. হাসান মাহমুদ ও এডভোকেট এবিএম রিয়াজুল কবীর কাওছার।  প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমাম বলেন, নির্বাচন কমিশনের (ইসি) ভাবমূর্তি যেন সমুন্নত থাকে, সে বিষয়ে সরকারের পক্ষ থেকে সহায়তা করতে আমরা ইসিতে এসেছি। তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে ইসি শক্তিশালী হয়েছে। এই কমিশন গঠিত হয়েছে আমাদের আমলে। ফলে আমাদের ওপর দায়িত্ব অনেক বেশি। আমরা চাই, ইসির ভাবমূর্তি সমুন্নত থাকুক, আরো উঁচু হোক। এ বিষয়ে সহায়তা করতেই আমরা ইসিতে এসেছি। নির্বাচন সুষ্ঠু ও অবাধ করতে আমরা আর কী কী করতে পারি, তা ইসিকে বলেছি। ইসি সরকারের আচরণে সন্তুষ্ট।
এইচটি ইমাম বলেন, আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কো-চেয়ারম্যান হিসেবে গাজীপুর ও খুলনা সিটি নির্বাচন নিয়ে ভুল তথ্য দেওয়ায় এর প্রতিবাদ জানিয়ে আমার সই করা চিঠি পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে সতর্ক থাকার জন্য ইসিকে বলেছি। তিনি বলেন, খুলনা ও গাজীপুর সিটির নবনির্বাচিত দুই মেয়র সিটি নির্বাচনে প্রচারণায় অংশ নিয়ে আচরণবিধি লঙ্ঘন করেননি। কারণ এখনও তারা মেয়র হিসেবে শপথ নেননি। আবার শপথ নিলেও তারা কার্যভার গ্রহণ করেননি। ফলে তারা মেয়র নন।
তারা মেয়র হিসেবে নির্বাচিত সেই গেজেট হয়েছে। কিন্তু তারা কার্যভার নিয়েছেন এমন কোনো গেজেট হয়নি। তিনি আরো বলেন, আমি গর্ব করে বলতে পারি আমাদের নির্বাচন কমিশন অত্যন্ত সুন্দর, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন আয়োজন করছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বারবার আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদেরও মেসেজ দিয়েছেন, যেন প্রতিটি নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়।
গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশন নিয়ে ইলেকশন ওয়ার্কিং গ্রুপের বক্তব্যের প্রসঙ্গ টেনে এইচটি ইমাম বলেন, তারা একটি কথা বলে বসলেন। তার ওপর ভিত্তি করে মার্কিন যুক্তরাষ্টের  রাষ্টদূত যে উক্তি করেছেন, তার কোনো পরিসংখ্যান নেই। গাজীপুর ও খুলনায় মাত্র চার দশমিক তিন শতাংশ ভোটকেন্দ্রে অনিয়ম হয়েছে। গাজীপুরে ১১ লাখ ৩৬ হাজার ভোটারের মধ্যে মাত্র ২ জন ভোটার ভোট দিতে পারেননি। আবার এই দুই সিটি নির্বাচনে কোনো ধরনের সহিংসতাও হয়নি। নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে হয়েছে। তারপরও একটি দল এসব কিছু নিয়ে অপপ্রচার চালিয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ