ঢাকা, বৃহস্পতিবার 26 July 2018,১১ শ্রাবণ ১৪২৫, ১২ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বিজিএমইএ শ্রমিকদের মজুরি অবিলম্বে ১৬ হাজার টাকা ঘোষণার দাবি

স্টাফ রিপোর্টার: বিজিএমইএ শ্রমিকদের মজুরি নিয়ে তালবাহানা বন্ধ করে অবিলম্বে ১৬ হাজার টাকা মজুরি ঘোষণার দাবি  গার্মেন্ট শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধির আন্দোলনে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ গার্মেন্ট শ্রমিক ঐক্য পরিষদ। গতকাল বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে গার্মেন্ট শ্রমিকদের জাতীয় প্লাটফর্ম বাংলাদেশ গার্মেন্ট শ্রমিক ঐক্য পরিষদের উদ্যোগে মানববন্ধনে এ আহ্বান জানানো হয়।
বাংলাদেশ গার্মেন্ট শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সমন্বয়ক মাহাতাব উদ্দিন সহিদের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন-পরিষদের কেন্দ্রীয় নেতা আমিরুল হক আমিন, শ্রমিক নেতা তৌহিদুরহমান, বিলসের নির্বাহী পরিচালক সৈয়দ সুলতান উদ্দিন আহমদ, গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক জলি তালুকদার গার্মেন্ট শ্রমিক অধিকার আন্দোলনের সমন্বয়কারী অ্যাডভোকেট মাহবুবুর রহমান ইসমাইল, বাংলাদেশ গার্মেন্ট শ্রমিক শিল্প রক্ষা সমন্বয়কারী আবুল হোসাইন প্রমুখ।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, গত ১৬ জুলাই গার্মেন্ট শ্রমিকদের মজুরি পুননির্ধারণের জন্য গঠিত নিম্নতম মজুরি বোর্ডের সভায় মালিক প্রতিনিধি কর্তৃক ৬৩৬০ টাকার শ্রমিক প্রতিনিধি কর্তৃক ১২০২০ টাকা প্রস্তাব পেশ করায় হতবাক  বিস্মিত হয়েছি। ২০১৩ সালে তৎকালীন মজুরি ঘোষণার পরে প্রতি বছর ৫ ভাগ হারে মজুরি ইনক্রিমেন্ট হওয়ার কথা সে হারে ইতোমধ্যে ৪ বছরে ২০ ভাগ মজুরি ইনক্রিমেন্ট হয়ে থাকলে বর্তমানে ৭ম গ্রেডের শ্রমিকদের ৬৪০০ টাকা মজুরি উন্নীত হয়েছে।
বক্তারা বলেন, কিসের ভিত্তিতে  যুক্তিতে মালিকপক্ষ এই প্রস্তাব পেশ করলো আমাদের কাছে বোধগম্য নয়। অপরদিকে দেশেরপ্রায় অধিকাংশ জোটর  সংগঠনের ১৬ হাজার টাকার দাবিকে পাশ কাটিয়ে শ্রমিক প্রতিনিধি ১২০২০ টাকার প্রস্তাব পেশ করে দেশের শ্রমিকদের সঙ্গে প্রতারণা করেছে। পরিষদ আজকের এই কর্মসূচি থেকে উভয়ের প্রস্তাব ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করছে।
শ্রমিক নেতারা অবিলম্বে ১৬ হাজার টাকা মজুরি ঘোষণার দাবি জানিয়ে বলেন, এই শিল্প্রে শ্রমিকদের কোনো রকম অসন্তোষ দেখা দিলে মালিক পক্ষ দায়ী থাকবে। দেশের সব শ্রমিক সংগঠনকে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানাই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ