ঢাকা,বৃহস্পতিবার 15 November 2018, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পথে ইমরান খান

সংগ্রাম অনলাইন : দুই যুগ আগে খাদের কিনারা থেকে পাকিস্তানকে তুলে বিশ্বকাপ ক্রিকেটে শিরোপা জিতিয়েছিলেন, এবার ভোটের লড়াইয়ে জিতে দেশের মসনদে বসার অপেক্ষায় আছেন ইমরান খান।

বুধবার দেশটিতে সাধারণ নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শেষে গণনা চলার মধ্যেই প্রাথমিক ফল দেখে জয়োল্লাস শুরু হয়ে গেছে ইমরান খানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই ইনসাফের (পিটিআই) শিবিরে।

বর্তমানে ক্ষমতাসীন পাকিস্তান মুসলিম লীগ (নওয়াজ) এবং অন্যতম বড় দল পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) অভিযোগ তুলেছে ভোট কারচুপির অভিযোগ তুললেও তাতে কান দেয়নি দেশটির নির্বাচন কমিশন।

পাকিস্তানের ৭১ বছরের ইতিহাসে এবার দ্বিতীয় বারের মতো নির্বাচনের মাধ্যমে একটি নির্বাচিত সরকার আরেকটি নির্বাচিত সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে যাচ্ছে। যদিও দেশটিতে বারবার রাষ্ট্র পরিচালনায় সেনা হস্তক্ষেপের ইতিহাস থাকায় ক্ষমতা হস্তান্তরের আগে কিছুই বলা যাচ্ছে না বলে মন্তব্য রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের।

বর্তমানে ক্ষমতায় থাকা নওয়াজ শরিফের দল পিএমএল-এন যেমন স্বস্তিতে দেশ পরিচালনা করতে পারেনি; তেমন পিপিপির হয়ে বেনজির ভুট্টোর সরকার পরিচালনাও নিষ্কণ্টক ছিল না।

ব্যাপক আলোচনার পাশাপাশি উদ্বেগের মধ্যেই বুধবার পাকিস্তানজুড়ে ২৭২টি পার্লামেন্টারি আসনে ভোটগ্রহণ হয়। ১০ কোটি ৬০ লাখ ভোটারের জন্য প্রস্তুত রাখা হয় ৮ হাজারের বেশি ভোটকেন্দ্র।

সারাদেশে রেকর্ড সংখ্যক প্রায় পৌনে ৪ লাখ নিরাপত্তাকর্মীর মোতায়েন করা হলেও সহিংসতা থেমে ছিল না। কোয়েটায় বোমাহামলায় নিহত হন অন্তত ৩১ জন। বেলুচিস্তান প্রদেশে একটি ভোটকেন্দ্রে গ্রেনেড হামলায় এক পুলিশ নিহত হন। মারামারি হয়েছে আরও অনেক এলাকায়।

পাকিস্তান জাতীয় পরিষদে সরাসরি নির্বাচনের মোট আসন সংখ্যা ২৭৪টি হলেও দুটি আসনে ভোট স্থগিত হওয়ায় ভোট দেন ২৭২ আসনের ভোটাররা। নারী ও সংখ্যালঘুদের জন্য নির্ধারিত বাকি ৭০টি আসন বিজয়ী দলগুলোর মধ্যে সংখ্যানুপাতে বণ্টন হবে।

সরকার গঠন করতে হলে যে কোনো দলকে ১৩৭টি আসনে জিততে হবে। কোনো সেই সংখ্যাটি অর্জন করতে পারবে না বলে প্রাথমিক ফলাফল আভাস দিচ্ছে; অর্থাৎ ঝুলন্ত পার্লামেন্টের দিকে যাচ্ছে পাকিস্তান।

দেশটির গণমাধ্যম মধ্যরাত পর্যন্ত ফলাফলের চিত্র দেখে যে আভাস দিচ্ছে, তাতে ইমরান খানের দল পিটিআই বেশি আসনে জয়ী হতে চলেছে। তবে তা একশ’র কাছাকাছি থাকবে। নওয়াজের দল জিততে পারে অর্ধশত আসন। বিলাওয়াল ভুট্টোর পিপিপি জিততে পারে ৩০টির মতো আসনে।

অর্থাৎ এগিয়ে থাকলেও ইমরান খানতে প্রধানমন্ত্রী হতে অন্য কোনো দলের দ্বারস্ত হতে হবে। সূত্র: বিডিনিউজ। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ