ঢাকা, বৃহস্পতিবার 20 September 2018, ৫ আশ্বিন ১৪২৫, ৯ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

সিলেট ও বরগুনায় সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত ১১

সংগ্রাম অনলাইন : জেলার ওসমানীনগরে ট্রাকের সাথে মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে চারজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো সাতজন। বৃহস্পতিবার বিকাল সোয়া ৪টার দিকে উপজেলার ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ইলাশপুরে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

ওসমানীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলী মাহমুদ বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, দুর্ঘটনাস্থলে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছেন। হতাহতদের পরিচয় এখনো জানা যায়নি।

ওসমানীনগর ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার ফজলুল হক জানান, ট্রাকটি সিলেটের দিকে যাচ্ছিল। আর মাইক্রোবাসটি সিলেট থেকে ঢাকায় যাচ্ছিল। পথে ইলাশপুরে গাড়ি দুটির মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। গুরুতর আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তাদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

এ দিকে বরগুনার আমতলী উপজেলার মানিকঝুড়ি এলাকায় বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় যাত্রীবাহী বাস ও যাত্রীবাহী মাহেন্দ্রর মুখোমুখি সংঘর্ষে ৭ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছে কমপক্ষে ৩ জন।

নিহতদের মধ্যে ঘটনাস্থলে ৬ জন ও হাসপাতালে নেয়ার পথে একজন মারা যায়। আহতদের স্থানীয় আমতলী, পটুয়াখালী ও বরিশাল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহতদের মধ্যে আমতলীর তারিকাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষিক সালমা আক্তার (৩৫), বগী এলাকার শানু হাওলাদার (৪০) ও চান মিয়ার (৫৫) নাম জানা গেছে।

এছাড়া নিহতদের মধ্যে তিন মাসের এক শিশু, ৪০ থেকে ৪৫ বছরের দুজন পুরুষ রয়েছেন। তাদের নাম জানা যায়নি। নিহত শিশুর মা আহত মফাহিমাকে বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আমতলী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নূরুল ইসলাম বাদল জানিয়েছেন, কুয়াকাটা থেকে ছেড়ে আসা আল্লাহ ভরসা পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস আমতলী উপজেলার মানিকঝুড়ি নামক স্থানে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি যাত্রীবাহী মাহেন্দ্রকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে ছয়জন ও পরে হাসপাতালে নেয়ার পথে একজন মারা যায়। হতাহতরা সবাই মাহেন্দ্রের যাত্রী ।

নিহতদের মরদেহ স্থানীয় আমতলী উপজেলা হাসপাতালে রাখা হয়েছে। ঘটনার পরপরই পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা আহত ও নিতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। সূত্র: ইউএনবি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ