ঢাকা, শনিবার 28 July 2018,১৩ শ্রাবণ ১৪২৫, ১৪ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ভারতে দুই পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যুদণ্ড

২৭ জুলাই, টাইমস অব ইন্ডিয়া : মায়ের জন্য উপহার হিসেবে চার হাজার টাকা নিয়ে যাচ্ছিল ভারতের এক দিনমজুর। এরপর পুলিশ তাকে আটক করে সেই টাকা ছিনিয়ে নেয় ও চুরির অভিযোগ দেয় তার বিরুদ্ধে। এরপর তাকে থানা থেকে ছেড়ে দেওয়া হলেও সে টাকার দাবিতে থানা ত্যাগ করতে অস্বীকার করে। শেষ পর্যন্ত তাকে থানাতেই হত্যা করে পুলিশ। উদয়ের মা প্রভাবতী ১৩ বছর ধরে মামলা লড়ার পর শেষ পর্যন্ত ছেলে হত্যার বিচার পেলেন।

ভারতের কেরালা রাজ্যের এ ঘটনায় বিশেষ আদালত পুলিশ হেফাজতে সেই আসামিকে হত্যার অভিযোগে দুই পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যুদণ্ডের রায় হয়েছে। হত্যার ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টার জন্যও আদালত তিন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে তিন বছরের জেল দিয়েছে।

চুরির অপরাধে ২৬ বছর বয়সী দিনমজুর উদয় কুমারকে গ্রেপ্তারের পর নির্যাতন করে হত্যার ঘটনায় ওই দুই পুলিশ দোষী সাব্যস্ত  করা হয়। এ ঘটনায় জিতকুমার ও শ্রীকুমার নামে দুই পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যুদ-াদেশ দিয়েছে আদালত। কেরালায় পুলিশ হেফাজতে আসামির মৃত্যুর জন্য মৃত্যুদ-ের রায় এটিই প্রথম।

উদয়কে ২০০৫ সালের ২৭ সেপ্টেম্বরে চুরির সন্দেহে আটক করে পুলিশ।

 তার কাছে ৪ হাজার রুপি ছিল। পুলিশ তার কাছ থেকে রুপি নিয়ে তাকে ছেড়ে দেয়। কিন্তু উদয় জানায় সে মাকে উপহার দেবে বলে কথা দিয়েছে। তাই রুপি না নিয়ে চলে যেতে সে অস্বীকৃতি জানায়। এরপর সন্ধ্যাতেই থানা থেকে হাসপাতালে তার লাশ পাঠানো হয়।

এরপর ছেলে হত্যার বিচার দাবিতে অনড় ছিলেন তার মা প্রভাবতী। নানা প্রতিকূলতা অতিক্রম করে শেষ পর্যন্ত তিনি মামলা চালিয়ে যান। প্রায় একযুগ পরে সে ঘটনার রায় হলো।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ