ঢাকা, শনিবার 28 July 2018,১৩ শ্রাবণ ১৪২৫, ১৪ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

মার্কিন সৈন্যদের দেহাবশেষ ফেরত দিচ্ছে উ. কোরিয়া

২৭ জুলাই, বিবিসি : সাড়ে ছয় দশক আগে সংঘটিত কোরীয় যুদ্ধে নিহত মার্কিন সেনাদের দেহাবশেষ ফেরত পাঠাচ্ছে উত্তর কোরিয়া। দেশটির উত্তর পূর্বের উনসেন বিমান ঘাঁটি থেকে যুক্তরাষ্ট্রের পথে থাকা দেহাবশেষ বহনকারী বিমান দক্ষিণ কোরিয়ার মার্কিন ঘাঁটিতে থামলে মার্কিন সেনারা দেহাবশেষগুলোর সম্মানে ‘অনার গার্ড’ দেয় বলে জানিয়েছে বিবিসি। সিঙ্গাপুরে ট্রাম্প-কিম শীর্ষ বৈঠকের ধারাবাহিকতায় এর আগে পুঙ্গি রি পারমাণবিক কেন্দ্র ও একটি রকেট উৎক্ষেপণ কেন্দ্র ধ্বংস করেছে উত্তর কোরিয়া।

এবার ১৯৫০-৫৩ পর্যন্ত চলা কোরীয় যুদ্ধে নিহত মার্কিন সেনাদের দেহাবশেষ ফেরত পাঠানো হচ্ছে। এর ভেতর দিয়ে নিহত সেনাদের আত্মীয়দের দীর্ঘদিনের অপেক্ষার অবসান হচ্ছে। জুনে সানতোসা দ্বীপের ঐতিহাসিক বৈঠকেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তরের শীর্ষ নেতা কিম জং উনের মধ্যে যে চারটি বিষয়ে সমঝোতা হয়েছিল দেহাবশেষ ফেরতের বিষয়টি তার মধ্যেই ছিল বলে আগেই জানিয়েছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম।

সিঙ্গাপুরের বৈঠকে দুই নেতা কোরীয় উপদ্বীপকে ‘সম্পূর্ণ পারমাণবিক অস্ত্রমুক্ত’ করার ওপর জোর দিলেও পিয়ংইয়ং কী প্রক্রিয়ায় তার অস্ত্র কর্মসূচি বন্ধ করবে তা নিয়ে আলোচনা না থাকায় বৈঠকের সাফল্য নিয়ে শঙ্কা আছে পশ্চিমা পর্যবেক্ষকদের।

সাড়ে ছয় দশক আগে দুই কোরিয়ার মধ্যে যুদ্ধবিরতিতে শেষ হওয়া লড়াইয়ের ৬৫তম বার্ষিকীতে পিয়ংইয়ং মার্কিন সেনাদের এ দেহাবশেষগুলো ফেরত দিচ্ছে। এবারের বহরে ৫৫ জনের দেহাবশেষ আছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। মৃত সৈন্যদের পরিচয় নিশ্চিতে যেসব ফরেনসিক পরীক্ষা নিরীক্ষা হবে, সেসবের ফল জানতেও বছরখানেক অপেক্ষা করা লাগতে পারে বলে জানিয়েছে বিবিসি।  দেহাবশেষ ফেরত পাঠানোয় কিম জং উনকে ধন্যবাদও দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ