ঢাকা, শনিবার 28 July 2018,১৩ শ্রাবণ ১৪২৫, ১৪ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

‘বন্দুকযুদ্ধে’ কুমিল্লাসহ ৪ জেলায় নিহত ৫

সংগ্রাম ডেস্ক : কুমিল্লা, রাজবাড়ী, টাঙ্গাইল ও সিরাজগঞ্জে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৫ জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে কুমিল্লায় ২জন এবং অন্য তিন জেলায় একজন করে নিহত হন। বৃহস্পতিবার রাত ও শুক্রবার ভোরে এসব বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে বলে দাবি করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।
কুমিল্লা অফিস : কুমিল্লায় ডাকাতির প্রস্তুতিকালে জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) শাখা পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে আল আমিন ও এরশাদ নামের ২ ডাকাত নিহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে জেলার তিতাস উপজেলার বাতাকান্দি-আসমানিয়া বাজার সড়কের নারায়নপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় ডিবি পুলিশের ২ জন এসআইসহ ৪ ডিবি পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র ও গুলীসহ ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত কিছু সরঞ্জাম উদ্ধার করেছে।
অভিযানে অংশ নেয়া ডিবির এসআই শাহ কামাল আকন্দ মুঠো ফোনে সাংবাদিকদের জানান, ডাকাতি প্রতিরোধে ডিবির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসির উদ্দিন মৃধার নেতৃত্বে জেলার তিতাস এলাকায় ডিবির একটি টিম অবস্থান করছিল। গভীর রাতে ওই উপজেলার বাতাকান্দি-আসমানিয়া বাজার সড়কের নারায়নপুর কবরস্থানের সামনের রাস্তায় ডাকাতির প্রস্তুতির খবর পেয়ে ডিবির টিমটি রাত আড়াইটার দিকে ঘটনাস্থলে পৌঁছে। তিনি আরও জানান, ডিবি পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাত দল পুলিশের উপর এলোপাতাড়ি গুলী ও ইট-পাথর নিক্ষেপ করতে থাকে। এক পর্যায়ে পুলিশও আত্মরক্ষায় ২১ রাউন্ড শর্টগানের গুলী চালায়। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ৭ ডাকাতকে আটক করা হয়। এদের মধ্যে মাথায় গুলীবিব্ধ হয়ে গুরুতর আহত আল আমিন ও এরশাদ নামের ২ ডাকাতকে তিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নেয়ার পর ডাক্তার তাদের মৃত ঘোষণা করেন। নিহত ডাকাত আল-আমিন @ কাউছার (৩০) তিতাস উপজেলার উত্তর মানিকনগর গ্রামের খোরশেদ আলমের পুত্র এবং অপর ডাকাত এরশাদ (৩২) জেলার বুড়িচং উপজেলার কংশনগর গ্রামের চরেরপাড় গ্রামের নুরুল ইসলামের পুত্র। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে ২ টি দেশী তৈরী এলজি, ৪ রাউন্ড কার্তুজ, ০৩ টি ছোরা,০৭ টি মুখোশ ও ২ টি লোহার রডের টুকরা। অভিযানের সময় ডিবির এসআই (নিঃ) মোহাম্মদ শাহ কামাল আকন্দ পিপিএম, এসআই (নিঃ) মোঃ সহিদুল ইসলাম পিপিএম, কং রুবেল মজুমদার এবং কং মোঃ সুমন আহত হয়েছে।
ডিবির ওসি নাছির উদ্দিন মৃধা জানান, নিহত ডাকাত এরশাদের বিরুদ্ধে ৯ টি এবং কাউছারের বিরুদ্ধে ৫ টি ডাকাতি মামলা বিচারাধীন এবং আটককৃত ডাকাতদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে ৩/৪ করে মামলা রয়েছে। নিহত ২ ডাকাতের মরদেহ শুক্রবার সকালে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে নেয়া হয়েছে।
পাবনা সংবাদদাতা: রাজবাড়ী জেলার পাংশা উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে পাবনার চরমপন্থি নেতা লালন হালদার নিহত হয়েছেন। নিহত লালন হালদার পাবনা জেলার সুজানগর উপজেলার গোবিন্দ পুর গ্রামের মৃত জীতেন হালদারের ছেলে। তিনি পূর্ববাংলা কমিউনিস্ট পার্টি লাল পতাকা বাহিনীর সেকেন্ড-ইন কমান্ড বলে দাবি করছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার স্লুইসগেট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
ঘটনাস্থল থেকে একটি একনলা বন্দুক, ওয়ান শুটারগান ও ছয়টি কার্তুজ উদ্ধার করার কথা জানিয়েছেন পাংশা সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার ফজলুল করিম।
তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পাংশার স্লুইসগেট এলাকায় অভিযান চালায় পুলিশ।
এ সময় চরমপন্থীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলী ছোঁড়ে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলী ছোঁড়ে।
এতে লালন আহত হন। পরে তাকে উদ্ধার করে পাংশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহতের লাশ সুরতহাল রিপোর্ট শেষে ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। তার বিরুদ্ধে হত্যা ও ডাকাতিসহ একাধিক মামলা রয়েছে বলে জানান তিনি।

উল্লাপাড়া (সিরাজগঞ্জ ) সংবাদদাতা: সিরাজগঞ্জের উ. সিরাজগঞ্জে র‌্যাবের সাথে বন্দুক যুদ্ধে হযরত আলী (৪২) নামে এক ডাকাত সর্দার নিহত হয়েছে। এসময় ২টি ওয়ান শুটারগান, ৩ রাউন্ড গুলী ও দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত ২টায় উল্লাপাড়া উপজেলার পাইকপাড়া শ্মশান ঘাট এলাকায় এই বন্দুক যুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত হযরত আলীর বাড়ি সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার পংখারুয়া গ্রামে।
র‌্যাব-১২ সূত্রে জানা যায়, উল্লাপাড়া উপজেলার পাইকপাড়া শ্মশান ঘাট এলাকায় একদল ডাকাত ডাকাতির প্র¯তুতি নিচ্ছে। এমন সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব সেখানে অভিযান চালায়। এসময় ডাকাতদল র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে র্যাবকে লক্ষ্য করে গুলী ছুড়ে। আতœরক্ষায় র‌্যাবও পাল্টা গুলী ছুঁড়ে । উভয় পক্ষের বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত সর্দার হযরত আলী গুরুতর আহত হয়। পরে র‌্যাব তাকে উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ সদর জেনারেল হাসপাতালে নিলে হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ডাঃ ফয়সাল তাকে মৃত ঘোষনা করে। নিহত ডাকাত সর্দার হযরত আলীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় হত্যা ও ডাকাতিসহ ১২ টি মামলা রয়েছে বলে র‌্যাব সূত্রে জানা যায়।
এদিকে টাঙ্গাইলেও বন্দুকযুদ্ধে একজন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত নিহতের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ