ঢাকা, রোববার 29 July 2018, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৫, ১৫ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন মেয়র নির্বাচন ২০১৮

রাজশাহী : গতকাল শুক্রবার রাজশাহী সিটি মেয়র নির্বাচনে (বামে) বিএনপি’র বুলবুলের জনসংযোগ ও (ডানে) আওয়ামী লীগের প্রার্থী লিটনের সাংবাদিক সম্মেলন -সংগ্রাম

ধানের শীষের গণসংযোগ
জাল ভোটের ষড়যন্ত্র চলছে পুলিশী অত্যাচার বন্ধ করুন -বুলবুল
রাজশাহী অফিস : রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপি’র মেয়র প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল অভিযোগ করেন, নৌকার প্রার্থী ভোট কারচুপি ও জাল ভোটের ষড়যন্ত্র করছে। তিনি নগরীতে বিরোধীজোটের নেতা-কর্মীদের উপর পুলিশের অত্যাচার বন্ধ করতে নির্বাচন কমিশনের নিকট দাবি জানান। 
গতকাল শনিবার তিনি নগরীর জেলগেট থেকে গণসংযোগ শুরু করে সিপাই পাড়া, ফায়ার সার্ভিসের মোড়, সাহেব বাজার এলাকার মনিচত্বর, কাঁচা বাজার, মাছ বাজার, মাস্টারপাড়া পাইকারী বাজার ও সোনাদীঘির মোড়ে গণসংযোগ করেন। গণসংযোগকালে সাংবাদিকদের বুলবুল বলেন, ধানের শীষের গণজোয়ার দেখে সরকারদলীয় প্রার্থী নিশ্চিত পরাজয় জেনে ভীত হয়ে ভোট কারচুপি ও জাল  ভোট প্রদান করার জন্য ঢাকা থেকে অতিরিক্ত ব্যালট  পেপার আনার ষড়যন্ত্র করছে। এছাড়াও রাজশাহীতে নির্বাচনকে ঘিরে কালো গাড়ির দৌরাত্ম্য বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রায় ১০টি কালো গ্লাস ওয়ালা গাড়ী সিটিতে ঘোরাফেরা করছে। ট্রাফিক দেখেও না দেখার ভান করছে। তিনি আরো বলেন, সম্পূর্ণ অবৈধভাবে নেতাকর্মীসহ নারী নেত্রীদের গ্রেফতার করছে পুলিশ। গণগ্রেফতার ও পুলিশি অত্যাচার বন্ধ করতে নির্বাচন কমিশনের নিকট তিনি দাবি জানান। বুলবুল আরো বলেন, নির্বাচন কমিশন ও পুলিশ আওয়ামী লীগের আজ্ঞাবহ হয়ে কাজ করছে। এই নির্বাচন কমিশন কোনভাবেই সুষ্ঠু নির্বাচন করতে পারবে না বলে তিনি আশংকা প্রকাশ করেন। সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে ২৮ তারিখের  মধ্যে সেনা মোতায়েনের জন্য পুনরায় জোর দাবি জানান  তিনি। তিনি আরো বলেন, বিজিবি মাঠে থাকলেও আওয়ামী লীগের অত্যাচারে সঠিকভাবে কাজ করতে পারবে না। নির্বাচনের দিন সব ধরনের বাধা ও অনিয়ম বিএনপি কঠোর হাতে দমন করবে। প্রয়োজনে রাজশাহীকে অচল করে দেয়া হবে বলেও তিনি হুঁশিয়ারী দেন। তিনি আরো বলেন, সরকার দলীয় প্রার্থীর নিকট পোলির্ং অফিসার ও প্রিজাইডিং অফিসারদের গেজেট পাঠালেও বিএনপিকে গতকাল পর্যন্ত গেজেট দেয়া হয়নি। ২৮ তারিখ বেলা ১টার মধ্যে গেজেট প্রদান করার জন্য নির্বাচন কমিশনের নিকট দাবি জানান তিনি। তিনি বলেন, ২০ দলীয় জোটের সবাই ধানের শীষের পক্ষে ঐক্যবদ্ধ আছে।
গণসংযোগে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা, সাবেক মেয়র ও এমপি মিজানুর রহমান মিনু, পুঠিয়া দুর্গাপুরের সাবেক এমপি ও বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এ্যাডভোকেট নাদিম মোস্তফা, মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. শফিকুল হক মিলন, বোয়ালিয়া থানা বিএনপি সভাপতি সাইদুর রহমান পিন্টু, তানোর পৌরসভার মেয়র মিজানুর রহমান, মহানগর যুবদলের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সুইট, জেলা যুবদলের সভাপতি মোজাদ্দেদ জামানী সুমন, সাধারণ সম্পাদক শফিকুল আলম সমাপ্ত, মহানগর সেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ আবেদুর রেজা রিপন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক ওয়ালিউজ্জামন পরাগ, মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি আসাদুজ্জামান জনি, সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রবি, যুগ্ম সাম্পাদক আকবর আলী জ্যাকি ও নাহিন আহম্মেদসহ নেতৃবৃন্দ এবং শত শত সমর্থক উপস্থিত ছিলেন।

নৌকা প্রতীকের সাংবাদিক সম্মেলন
ভোটের ফলাফল যাই হোক না কেন, মেনে নেবো -লিটন
রাজশাহী অফিস : রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন (রাসিক) নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেছেন, আমি অতীতেও বলেছি, এখনো বলছি, নির্বাচনের ফলাফল যাই হোক না কেন, মেনে নেবো। প্রতিপক্ষ প্রার্থীরও জনগণের রায় মেনে নেয়ার মানসিকতা থাকতে হবে।
গতকাল শনিবার দুপুরে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। লিটন বলেন, নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক প্রচারণার প্রথমদিন থেকেই বিএনপি বলে আসছে, নিবার্চন স্বচ্ছ হবে না, সুষ্ঠু নির্বাচনে নির্বাচন কমিশনের স্বদিচ্ছা নেই। এটি বিএনপি বাংলাদেশের সবখানেই বলে, যেকোনো নির্বাচন এলেই তারা এসব বলে। গত ১০ বছর ধরে শুনতে শুনতে কান ঝালাপালা হয়ে গেছে। তাদের এসব কথায় রাজশাহীর মানুষও বিরক্ত হয়ে গেছে। খেলতে নেমেই তারা বলছে, লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নাই। এটি বলা তাদের মুদ্রাদোষে পরিণত হয়েছে। তিনি বলেন, রাজশাহীতে শিল্পায়নের মাধ্যমে এক লাখ ছেলে-মেয়ের চাকরি ব্যবস্থা করতে চাই। কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করবো। বাড়ি বাড়ি গ্যাস সংযোগ পৌঁছে যাবে। বিএনপি’র প্রার্থী বুলবুলের অভিযোগের ব্যাপারে লিটন বলেন, নির্বাচনে পুলিশকে ব্যবহারের আমাদের প্রয়োজন নেই। কারণ ইতোমধ্যে নৌকার পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। আশা করছি ৩০ জুলাইয়ের নির্বাচনে নৌকারই বিজয় হবে। রাজশাহীতে বিএনপি’র এজেন্ট সংকটের দায় তারা বিভিন্নভাবে আমাদের ওপর চাপাচ্ছে। তবে যতই চেষ্টা করা হোক নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হবে বলে আশা করছি। যত অপপ্রচারই হোক আর যতই অপচেষ্টা চলুক, রাজশাহীর শান্তিপূর্ণ পরিবেশ নষ্ট হবে না। এসময় উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মঈনুদ্দিন মন্ডল প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ