ঢাকা, রোববার 29 July 2018, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৫, ১৫ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

খুলনা মহানগর বিএনপির প্রতিনিধি সম্মেলনে মঞ্জুগণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে জাতীয় ঐক্য ও দলীয় ঐক্য গড়তে হবে

খুলনা অফিস : শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় রেখে, সংসদ বহাল রেখে এবং দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখে দেশে কোন সাধারণ নির্বাচন হবে না বলে জানিয়েছেন বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও খুলনা মহানগর শাখার সভাপতি সাবেক এমপি নজরুল ইসলাম মঞ্জু।
তিনি বলেন, এটি নির্বাচনের বছর এবং আগামী দুই মাসের মধ্যে তফসিল ঘোষণা হবে। মিথ্যা মামলায় পার্টির চেয়ারপারসন নির্জন কারাগারে বন্দী, তিনি বিনা চিকিৎসায় রয়েছেন।  জেল-জুলুম-হুলিয়া-হত্যা-খুন-গুমের শিকার দলের সাধারণ নেতাকর্মীরা। ভোট ডাকাতির নির্বাচনের মাধ্যমে স্থানীয় সরকার নির্বাচনে বিএনপির বিজয় ছিনিয়ে নেয়া হচ্ছে।  দেশে রাজনীতি করার পরিবেশ সীমিত। এ পরিস্থিতিতে বিএনপিকে জাতীয় নির্বাচনের প্রস্ততি নিতে হচ্ছে।
মঞ্জু বলেন, আগামী পাঁচ মাস আমাদের জন্য প্রস্তুতির মাস। আন্দোলন এবং নির্বাচন, যে কোন পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য বিএনপির সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিতে হবে। যে কোন ত্যাগ স্বীকারের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে। উদ্ভুত পরিস্থিতি মোকাবেলায় তিনি দলীয় ঐক্যের পাশাপাশি জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন।
গতকাল শনিবার সকালে খুলনা মহানগর বিএনপির প্রতিনিধি সম্মেলনের উদ্বোধন করতে গিয়ে বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও খুলনা সিটি মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা মনিরুজ্জামান মনি, নগর বিএনপির সিনিয়র সহ সভাপতি সাহারুজ্জামান মোর্ত্তজা এবং সাবেক এমপি কাজী সেকেন্দার আলী ডালিম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের খুলনা রিজিওনাল কো-অর্ডিনেটর আমিনা সুলতানা। প্রতিনিধি সম্মেলনে মডারেটরের দায়িত্ব পালন করেন নগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ফখরুল আলম।
নগরীর হোটেল সিটি ইন.এ সকাল সাড়ে ১০ টায় প্রতিনিধি সম্মেলন শুরু হয়। উন্নয়ন সংস্থা ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের আয়োজনে এবং ইউএসএইড ও ইউকেএইড এর সহায়তায় অনুষ্ঠিত প্রতিনিধি সম্মেলনে খুলনা মহানগর বিএনপি এবং থানা, ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন পর্যায়ের প্রায় তিনশ নেতাকর্মী অংশ নেন।
সম্মেলনে অংশ নেয়া নেতাকর্মীরা ২৬ টি দলে ভাগ হয়ে নির্বাচন, অভ্যন্তরীণ গণতন্ত্র, যোগ্য জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন, প্রশিক্ষিত রাজনৈতিক কর্মী এবং শান্তির জন্য বিজয়- এ পাঁচটি বিষয়ের ওপর তাদের মতামত ও প্রস্তাবনা তুলে ধরেন।
প্রস্তাবনায় দলের তৃণমূলের নেতাকর্মীরা দেশ গণতন্ত্রহীন এবং একদলীয় দুঃশাসন কায়েম হয়েছে অভিযোগ করে বলেন, লাজলজ্জা ভুলে সরকার এখন প্রকাশ্যেই ভোট ডাকাতির প্রহসন করছে। গণমাধ্যমকে পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে সরকার। ফলে ভোট কাটাকাটির এসব চিত্র সোশ্যাল মিডিয়া ছাড়া অধিকাংশ প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় প্রকাশ পাচ্ছেনা। মিথ্যা বানোয়াট নানা অভিযোগে রাজনৈতিক কর্মীদের ওপর দমন পীড়ন চালানোর পর এবার মাদক সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ এনে ক্রসফায়ারে তাদেরকে হত্যা করা হচ্ছে। জনগণের প্রতিবাদের সকল ভাষা কেড়ে নেয়া হয়েছে। প্রতিনিধি সম্মেলন থেকে বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য তৈরি করে এবং দলের অভ্যন্তরে সকল মতভেদ দূর করে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার জন্য আহবান জানানো হয়।
সবশেষে প্রতিনিধি সম্মেলনে অংশ নেয়া নেতাকর্মীদেরকে শান্তির স্বপক্ষে অবস্থান নিয়ে বিজয় অর্জনের শপথ বাক্য পাঠ করার নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ