ঢাকা, রোববার 29 July 2018, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৫, ১৫ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

চৌহালীর সড়ক সেতুর সংস্কার নেই জনসাধারণের নিত্যদুর্ভোগ

চৌহালী (সিরাজগঞ্জ) : বাবলাতলা মোড় থেকে মিটুয়ানী পর্যন্ত রাস্তার বেহালদশা -সংগ্রাম

চৌহালী (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা : ভাঙ্গা সংলগ্ন বেইলী সেতুর দু’পাশে মাটি না থাকায় বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে মারাত্মক ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে শিক্ষার্থী ও পথচারীরা। দীর্ঘ দিনের এ দুর্ভোগ লাঘবে কেউ এগিয়ে আসেনি। এ দুরবস্থার চিত্র যমুনা বিধ্বস্ত চৌহালী উপজেলার বাবলাতলা থেকে মিটুয়ানী সকড়ের একমাত্র বেইলী সেতুর দু’পাড়ের।
রেহাইপুখুরিয়া গ্রামের ব্যবসায়ী আজিজুল হাকিম, স্কুল ছাত্র মাহমুদুর রহমান ও নার্গিস খাতুন জানান, সড়কটি নিয়ে কারও মাথাব্যথা নেই। যত ভোগান্তি শিক্ষার্থী ও চলাচলকারীদের। ভাঙাচোরা সডকের কারণে অটোরিকশায় সময়ও বেশি লাগে আর বাডতি ভাড়াও গুনতে হয় । এদিকে সড়কের নিয়মিত চলাচলকারী বাঘুটিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কাহহার সিদ্দিকী বলেন, এ সড়ক দিয়ে দক্ষিণাঞ্চলের চরনাকালিয়া, বিনানই, চরছলিমাবাদ, ঘুশুরিয়া, চৌবাড়িয়া, হাটাইল ও উমারপুর ইউনিয়নের  অর্ধলক্ষাধিক মানুষ উপজেলা সদরে নিয়মিত চলাচল করে। এ সেতুর দু’পাড়ের অবস্থা খুবই নাজুক। যে কোন সময় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।
স্থানীয় খাসপুখুরিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ সরকার জানান, বাবলাতলা মোড় থেকে মিটুয়ানী পর্যন্ত প্রায় আড়াই কিলোমিটার সড়ক বেহাল। ৭বছর আগে মোকার ভাঙ্গা সংলগ্ন  সড়কটি যমুনায় বিলীন হয়ে যায়। এরপর যাতায়াতের সমস্যা নিরসনে বেইলি সেতুটি স্থাপন করা হলেও, ঠিকাদারের গাফিলতিতে সেতুটি মুল সড়ক থেকে ৪-৫ ফুট নিচু হওয়ায় যানবাহন ও পথচারীদের চলাচলে মারাক্তক দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। দ্রুত সড়কটি সংস্কারের দাবি জানাই। তবে এ প্রসঙ্গে উপজেলা সহকারী প্রকৌশলী শহিদুল ইসলাম বলেন, দীর্ঘদিন সড়কটি উন্নয়ন নেই। বেইলি সেতুটি অপসারন করে একটি গার্ডার ব্রিজ স্থাপনে মন্ত্রনালয় থেকে অনুমোদন দেয়া হয়েছে । দ্রুত বরাদ্দ পেলে কাজ শুরু করা হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ