ঢাকা, মঙ্গলবার 31 July 2018, ১৬ শ্রাবণ ১৪২৫, ১৭ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বর্ষায় চলনবিল ফিরে পেয়েছে চিরচেনা রূপ

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ): চলনবিলে ছুটে চলেছে পালতোলা নৌকা

শাহজাহান তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) থেকে: বর্ষায় চলনবিল ফিরে পেয়েছে তার চিরচেনা রূপ। প্রয়োজনের তাগিদেই ভাসমান মানুষ ডিঙ্গি নৌকায় ছুটে চলেছেন দিগিবিদিক। দ্বীপের মতো গ্রামগুলো যেন একেকটা ভাসমান বাজার। বর্ষায় এক গ্রাম থেকে অন্য গ্রাম, এক পাড়া থেকে অন্য পাড়া, স্কুল-কলেজ-হাটবাজারসহ যোগাযোগের সব জায়গায় ভাসমান মানুষের নিত্যসঙ্গী ঐতিহ্যবাহী ডিঙ্গি নৌকা। বর্ষা এলেই চারদিক জলে ডুবে যায় মাঠঘাট-রাস্তাসহ বিস্তীর্ণ এলাকা। তখনই দেখা যায় চলনবিলের ঐতিহ্য বাহারি সব ডিঙ্গি নৌকা। কোনোটা পাল উড়িয়ে, কোনোটা ঠেলা নৌকা, আবার কোনোটা স্টিলের তৈরি ইঞ্জিনচালিত নৌকা। চলনবিল এলাকার অধিকাংশ রাস্তাঘাট (সাবমার্সেবল) বর্ষা এলেই পানির নিচে ডুবে যায়। তখন ডিঙ্গি নৌকাই হয় যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম। তাই বর্ষা এলেই বেড়ে যায় এসব ডিঙ্গি নৌকার ব্যাপক চাহিদা। স্থানীয় বাজারগুলোতে বেড়ে যায় কাঠমিস্ত্রিদের ব্যস্ততা। সকাল থেকে শুরু হয় তাদের কর্মব্যস্ততা।
সরেজমিন মঙ্গলবার চাঁচকৈড় হাট ঘুরে দেখা গেছে, প্রায় ১ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে বসেছে নৌকা বিক্রির হাট। পাশাপাশি প্রায় ১৫-২০টি কারখানায় চলছে নৌকা তৈরির কাজ। কাঠহাট মোড় থেকে চৈতালীহাট মোড় হয়ে শিক্ষা সংঘ পর্যন্ত পাকা সড়কের দুপাশে নৌকাগুলো সারি সারি করে রাখা হয়েছে বিক্রির জন্য। ক্রেতারা ইচ্ছা মতো দেখেশুনে কিনছেন নৌকা। আশপাশের প্রায় ১০টি উপজেলা থেকে ক্রেতারা এসেছেন নৌকা কিনতে। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত চলছে নৌকা বেচাকেনা। এখানকার তৈরি নৌকা স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে যাচ্ছে বিভিন্ন জেলাতেও।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ