ঢাকা, বুধবার 1 August 2018, ১৭ শ্রাবণ ১৪২৫, ১৮ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

খুলনায় খয়রাতির চাল নিয়ে চালবাজি

খুলনা অফিস : খুলনার দাকোপের কালাবগী এলাকায় ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে ঈদের খয়রাতি চাল আত্মসাতের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এলাকাবাসীর সহায়তায় পুকুর থেকে পুলিশ চাল উদ্ধার করেছে। সম্প্রতি এই ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে মসজিদের সরকারি অনুদানের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে মসজিদ কমিটির সভাপতি আদালতে মামলা দায়ের করেছে।
দাকোপ উপজেলা প্রশাসন ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কালাবগী ৭ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আইয়ুব আলী ঢালী গত ঈদ উল ফিতরের সময় সরকার প্রদত্ত ২০ বস্তা খয়রাতি সাহায্যের চাল আত্মসাতের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছে। কালাবগী গ্রামের তালেব সরদারের বাড়ীতে ওই চাল রাখা আছে গতকাল মঙ্গলবার সকালে এমন সংবাদ ছড়িয়ে পড়ে। সচেতন এলাকাবাসী বিষয়টি দাকোপ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মারুফুল আলমকে জানায়। এরপর নলিয়ান নৌ পুলিশ ফাড়ীর ইনচার্জ মনিরুজ্জামানের নেতৃত্বে পুলিশ সদস্যরা চাল উদ্ধারে ঘটনাস্থলে যায়। কিন্তু অজ্ঞাত কারণে পুলিশ সেখানে গিয়ে উদ্ধার প্রচেষ্টা থেকে বিরত থাকে।
প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্য মতে, পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছাতে দেরি করে। এরপর সেখানে গেলে তালেব সরদারের পুকুরে চাল আছে বললে পুলিশ উপর মহলের নির্দেশ না থাকায় সেখানে তল্লাশি থেকে বিরত থাকে। দিনভর এমন নাটকের পর বিকেল ৪ টা ৫৫ মিনিটে পুলিশ স্থানীয় বিল্লাল ঢালী ও ওসমান খানকে পুকুরে নামিয়ে দিলে তারা ডুব দিয়ে বেশ কিছু পরিমাণ চাল আলামত হিসেবে উদ্ধার করে। তারা জানায়, পুকুরে বিপুল পরিমাণ চাল ছড়ানো আছে। পুলিশ উদ্ধারকৃত চাল জব্দ করে নিয়ে গেছে। এ সময় সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের মহিলা সদস্য নার্গিস বেগমসহ শত শত মানুষ উপস্থিত ছিলো।
এলাকাবাসীর অভিযোগ, প্রশাসন ইচ্ছাকৃতভাবে চাল সরানোর সুযোগ করে দিয়েছে। অভিযুক্ত ইউপি সদস্য আইয়ুব আলী ঢালী সকল অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এই চালের সাথে আমার কোন সম্পর্ক নেই একটি মহল আমাকে ফাঁসাতে ষড়যন্ত্র করছে।
এ ব্যাপারে দাকোপ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মারুফুল আলম বলেন, খবর পেয়ে আমি পুলিশকে চাল উদ্ধারের নির্দেশ দেই। বিষয়টি খতিয়ে দেখে অবশ্যই আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ