ঢাকা, বুধবার 1 August 2018, ১৭ শ্রাবণ ১৪২৫, ১৮ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আলীকদমে সেনা অভিযানে ৪টি অস্ত্রসহ সন্ত্রাসী আটক

আলীকদম (বান্দরবান) সংবাদদাতা : আলীকদম উপজেলার রোয়াম্ভু এলাকার মিরিঞ্জা পাহাড়ের পাদদেশে একটি সন্ত্রাসী আস্তানায় অভিযান চালিয়ে ৪টি আগ্নে অস্ত্রসহ সামরিক সরঞ্জাম উদ্ধার ও এক সন্ত্রাসীকে আটক করেছে সেনাবাহিনী। সোমবার (৩০ জুলাই) দিবাগত রাতে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।
জানাগেছে, আটককৃত সন্ত্রাসী সুরেশ চাকমাা বনপুর-গয়ালমারা এলাকা থেকে ইতোপূর্বে সেনা অভিযানে ধৃত ডেঙ্গা (কাজল) বাহিনীর সক্রিয় সদস্য।
 সোমবার রাতে আলীকদম জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল মাহবুবুর রহমান পিএসসি’র নেতৃত্বে উপ অধিনায়ক মেজর আবদুল কাদের ও সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার আক্তার হোসেন এই অভিযান পরিচালনা করেন।
এসময় সেনা টহল দল ১টি একটি থ্রিনট থ্রি রাইফেল, ৫টি বুলেট, ১টি এলজি-দেশিয় বন্দুক-১টি কার্তুজ ও ২টি এসবিবি এল উদ্ধার করেন। এর আগে ২৪ জুলাই জোনের উপ-অধিনায়ক মেজর আবদুল কাদের এর নেতৃত্বে লামা ছাগল খাইয়া থেকে একটি দেশীয় কাটা বন্দুক ও পোষাক উদ্ধার করে সেনা বাহিনী। এ দু’টি অভিযানে নানা ধরণের সামরিক সরঞ্জাম উদ্ধার করায় স্থানীয়রা কিছু স্বস্তির নি:শ্বাস ফেলেছেন। গত কয়েকদিন ধরে আনসার বাহিনীর সাদৃশ্য পোশাক পরা একদল উপজাতি সন্ত্রাসী উপজেলার চৈক্ষ্যং ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে চাঁদা আদায় ও ত্রাস সৃষ্টি করে আসছিল।
চাঁদাবাজ গ্রুপটি আলীকদমের চৈক্ষ্যং কলাঝিরি, বাঘেরঝিরি, সোনাইছড়ি, ভরিরমুখ, রোয়াম্ভু, দরদরী এবং লামা উপজেলার ছোট বমু, মেরাখোলা-বেগুণঝিরি, চিউনিরমুখ, কুলাইক্যাপাড়া, লুলাইন, ক্যায়াজুপাড়া, নাইক্ষ্যংমুখ ইত্যাদি স্থানে ব্যাবসায়ি ও দরিদ্র কৃষকদের কাছ থেকে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে চাঁদা আদায় করছে মর্মে সংবাদ পাওয়া যায়। সোমবার রাতে আলীকদম রোয়াম্ভু এলাকা থেকে অস্ত্র ও সন্ত্রাসী আটক হওয়ায় স্থানীয়দের মাঝে কিছুটা স্বস্তি ফিরে এসেছে। এদিকে ধৃত আসামীকে পুলিশে সোপন্দ করা হয়েছে মর্মে আলীকদম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রফিক উল্লাহ জানিয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ