ঢাকা, বুধবার 1 August 2018, ১৭ শ্রাবণ ১৪২৫, ১৮ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আমাদের টি-টোয়েন্টি সিরিজ জেতার সামর্থ্য আছে : সাকিব

স্পোর্টস রিপোর্টার : ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে আজ মাঠে নামছে বাংলাদেশ। এই সফরে টেস্ট সিরিজে হার দিয়ে বাংলাদেশ শুরু করলেও ওয়ানডে সিরিজ জিতে টাইগাররা বেশ খোশ মেজাজেই আছে। এবার বাংলাদেশের সামনে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়ের টার্গেট। আর এই টার্গেট নিয়েই টি- টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে আজ মাঠে নামবে বাংলাদেশ। দুই দলের সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি অনুষ্ঠিত হবে আজ বাংলাদেশ সময় সকাল সাড়ে ৬টায়। পরের দুই টি-টুয়েন্টি হবে যুক্তরাষ্ট্রের  ফ্লোরিডায়। ম্যাচ দুটি হবে ৪ ও ৫ আগস্ট। এপর্যন্ত বাংলাদেশ ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে মাত্র ২টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ জিতেছে। 

সবমিলে ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে ৬টি টি-টোয়েন্টি খেলেছে বাংলাদেশ। সর্বশেষ জয় ২০১১ সালে। প্রথম জয়টি ২০০৭ দক্ষিণ আফ্রিকা বিশ্বকাপে। তার উপর ক’দিন আগে দেরাদুনে আফগানিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচে টি-টোয়েন্টি সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয় টাইগাররা। তাই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ মোটেও সহজ হওয়ার কথা নয়। কারণ টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ওয়েস্ট ইন্ডিজ যে কোনো দলের জন্যই ভীতির নাম। ক্রিকেটের সবচেয়ে ছোট ফরম্যাটে দলটা অনন্য। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ও সর্বাধিক দুইবারের চ্যাম্পিয়ন তারা। সেই দলের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ টাইগারদের। টেস্টের হতাশা ওয়ানডে সিরিজে কাটাতে পারলেও টি-টোয়েন্টি নিয়ে ভয় থাকছেই। তবে বাংলাদেশ দলের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের বিশ্বাস, ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে সিরিজ জেতার সামর্থ আছে টাইগারদের। ক্যারিবীয় সফরে বাংলাদেশের শুরুটা ছিল দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ দিয়ে। যেখানে ২-০ তে হোয়াইটওয়াশ হয় টাইগাররা। শুধু তাই নয়, ৪৩ রানে অল আউট হওয়ার মতো লজ্জাও আছে সেখানে। কোনো ম্যাচে নূন্যতম প্রেিরাধও গড়তে পারেনি বাংলাদেশ। তবে ওয়ানডে সিরিজে বদলে যায় দলের চিত্র। ৫০ ওভারের ক্রিকেটে বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা দলের সঙ্গে  যোগ দিতেই দলে অন্য রূপ। বাংলাদেশ সিরিজ জিতেছে ২-১ ব্যবধানে। দ্বিতীয় ম্যাচে নাটকীয়ভাবে ৩ রানে না হারলে স্বাগতিকদের হোয়াইটওয়াশের স্বাদ দিতে পারতো বাংলাদেশ। ওয়ানডে সিরিজে ছন্দ ফিরে পাওয়াটাই আত্মবিশ্বাসী করছে টি-টুয়েন্টি অধিনায়ক সাকিব আল হাসানকে। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার তাই বলছেন, ‘আমরা জানি ওয়েস্ট ইন্ডিজ অনেক শক্তিশালী দল, বিশেষ করে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে। এটি তাদের সবচেয়ে প্রিয় ফরম্যাট আর আমাদের জন্য সবচেয়ে কঠিন। কিন্তু আমি বিশ্বাস করি আমাদের নিজেদের সেরাটা দেওয়ার এবং সিরিজ জেতার সামর্থ আছে।’ টেস্ট সিরিজে দুঃস্বপ্নের শুরু। দুই টেস্টেই নাকাল হয়ে হোয়াইটওয়াশ বাংলাদেশ। এমন পারফরম্যান্সের পর ওয়ানডে সিরিজ নিয়ে আশাবাদি হতেও যেন ভয় করছিল টাইগার সমর্থকদের, ওয়ানডেতে বাংলাদেশ তুলনামূলক ভালো দল জেনেও। তবে ভয়কে জয় করেছে মাশরাফির দল। ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে দাপুটে ক্রিকেট  খেলেই ২-১ ব্যবধানে ওয়ানডে সিরিজ জিতেছে সফরকারিরা, যে সিরিজটা হতে পারতো ৩-০'ও। তবে ওয়ানডে সিরিজের পর এবার টি-টোয়েন্টি সিরিজে ভালো করার পালা টাইগারদের। অবশ্য দুর্দান্ত একটি ওয়ানডে সিরিজ কাটানোর পর টি- টোয়েন্টি নিয়ে তো আশাবাদি হতেই পারে বাংলাদেশ! অধিনায়ক সাকিব আল হাসানও মনে করছেন, ওয়ানডে সিরিজ থেকে পাওয়া আত্মবিশ্বাসই বড় রসদ হবে টি-টোয়েন্টিতে। সাকিব বলেন, ‘আমরা টি- টোয়েন্টি সিরিজটা নিয়ে অনেক আশাবাদি। এর বড় কারণ হলো, আমরা ওয়ানডেতে বেশ ভালো করলাম। দেশের বাইরে নয় বছর পর সিরিজ জিতলাম, এটা অনেক বড় অর্জন। আশা করি, এই আত্মবিশ্বাসটা কাজে লাগবে টি- টোয়েন্টি সিরিজে। আর সবাই এই আত্মবিশ্বাসটা নিয়েই খেলতে পারে। যদিও আমরা জানি ওয়েস্ট ইন্ডিজ খুবই শক্তিশালি দল, টি-টোয়েন্টিতে বিশেষ করে। তারপরও আমি বিশ্বাস করি, আমাদের সামর্থ্য আছে সিরিজটা  জেতার।’ টি-টোয়েন্টি ফরমেটে সৌম্য সরকার, আরিফুল হকের মতো তরুণরা যোগ দিয়েছেন। আছেন আবু জায়েদ রাহির মতো তরুণ পেসার। খেলাটাই যেহেতু ধুম ধারাক্কা ফরমেটের, তাই দলের তরুণরা ভালো করবে বলেই আত্মবিশ্বাসী সাকিব। এ নিয়ে তিনি বলেন, ‘ বেশ কিছু নতুন খেলোয়াড় আছে আমাদের টি-টোয়েন্টি ফরমেটে। আশা করি, অনেক ভালো করবে তারা। ওদের জন্য অনেক এক্সাইটিং একটা সময়। বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য ভালো একটা দিক যে, সুযোগ পাচ্ছি এই ফরমেটটাতে চেষ্টা করার। যেহেতু এটা নতুনদেরই খেলা, আশা করি ওরা ভালো করবে।’ বাংলাদেশের জন্য ভালো খবর হলো টি- টোয়েন্টি সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে থাকছেনা ক্রিস গেইল। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ