ঢাকা, বুধবার 1 August 2018, ১৭ শ্রাবণ ১৪২৫, ১৮ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

৩৬তম বিসিএসের গেজেট প্রকাশ

স্টাফ রিপোর্টার : ৩৬তম বিসিএস পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের প্রায় ৩৭ মাস পর নিয়োগের প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকার।
গতকাল মঙ্গলবার বিকালে এ গেজেট প্রকাশ করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশন (পিএসসি) যে সুপারিশ করেছিল সেখান থেকে ১২১ জন প্রার্থী চূড়ান্ত প্রজ্ঞাপনে বাদ পড়েছে।
পিএসসি সূত্র জানায়, গত বছরের ১৭ অক্টোবর ২ হাজার ৩২৩ জনকে বিভিন্ন ক্যাডারে নিয়োগের জন্য সুপারিশ করে পিএসসি। কিন্তু গতকাল প্রকাশিত প্রজ্ঞাপনে দেখা যায়, ২ হাজার ২০২ জন প্রার্থীকে নিয়োগের সুপারিশ করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। ফলে এতে ১২১জন প্রার্থী চূড়ান্ত নিয়োগ থেকে বাদ পড়েছেন।
৩৬তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয় ২০১৫ সালের ৩১ মে। ২ লাখের বেশি পরীক্ষার্থী এতে অংশ নেন। পরের বছরের সেপ্টেম্বরে লিখিত পরীক্ষা হয়। মৌখিক পরীক্ষা শেষ হয় ২০১৭ সালের জুনে।
এ বিষয়ে বাদ পড়া বেশ কয়েকজন প্রার্থী জানান, তারা নিয়ম অনুযায়ী কাজ করেছেন। তারপরও কেন বাদ পড়েছেন তা বুঝতে পারছেন না। এখন এ বিষয়ে তারা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কথা বলবেন।
এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা ৫ই অক্টোবর ডেন্টালে ৯ই নভেম্বর : আগামী ২০১৮-২০১৯ শিক্ষা বর্ষের এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা হবে ৫ই অক্টোবর।  ডেন্টাল ভর্তি পরীক্ষা হবে ৯ই নভেম্বর। গতকাল মঙ্গলবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত আগামী শিক্ষা বর্ষের এমবিবিএস ও বিডিএস ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত সভায় এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী  মোহাম্মদ নাসিম এতে সভাপতিত্ব করেন।
এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য অনলাইনে আবেদন গ্রহণ শুরু হবে ২৭শে আগস্ট এবং আবেদন জমার শেষ সময় ১৮ই সেপ্টেম্বর। বিডিএস ভর্তি অনলাইন আবেদন জমা দেওয়ার সময়সীমা ১৬ই অক্টোবর থেকে ২৭শে অক্টোবর।
শিগগিরই এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি পত্রিকায় প্রকাশ করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে সভায়। সভায় অতীতের ন্যায় কঠোর নিরাপত্তা ও সর্বোচ্চ স্বচ্ছতার সঙ্গে ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন করার জন্য সংশ্লিষ্টদের সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, সরকার গত চার বছর যাবত মেডিকেল শিক্ষার মান উর্ধ্বে রাখতে যে অবস্থান বজায় রেখেছে তার ব্যত্যয় আগামীতেও ঘটবে না। বিশেষ করে চিকিৎসা শিক্ষায় ভর্তি পরীক্ষার ক্ষেত্রে পূর্বের ন্যায় কঠোর নজরদারি এবারও থাকবে। একটি স্বচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার মধ্য দিয়ে এবারও মেধাবীরা এমবিবিএস ভর্তির সুযোগ পাবেন বলে এসময় তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব জি এম সালেহ উদ্দিন, চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ডা. ইসমাইল খান, বিএমডিসির পরিচালক অধ্যাপক ডা. সহিদুল্লা, বিএমএ সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, স্বাচিপ সভাপতি অধ্যাপক ডা. ইকবাল আর্সালান, বেসরকারি মেডিকেল কলেজ সমিতির সভাপতি হাজী মকবুল আহমেদ, এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা ওভারসাইট কমিটির সদস্য বিএফইউজের বিদায়ী সভাপতি মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল, আমাদের অর্থনীতি সম্পাদক নাইমুল ইসলাম খান, প্রথম আলোর যুগ্ম সম্পাদক আব্দুল কাইয়ুম প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ