ঢাকা, বুধবার 1 August 2018, ১৭ শ্রাবণ ১৪২৫, ১৮ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

শুদ্ধ বিতর্ক চর্চা সৃজনশীল মেধা বিকাশে সহায়ক ভূমিকা পালন করে

বিতর্ক প্রতিযোগিতায় পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন -সংগ্রাম

মিরসরাই (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা : চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ের আলোচিত স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন দুর্বার প্রগতি সংগঠনের উদ্যোগে আয়োজিত দুর্বার বিতর্ক উৎসবের ফাইনাল, পুরস্কার বিতরণী, গুণীজন ও আগামীর দুর্বারদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান শুক্রবার (২৭ জুলাই) মিরসরাই উপজেলা জেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এম.পি। প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী বলেন, বিভিন্ন স্কুল-কলেজে নিয়মিত বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন করতে হবে, চর্চা বাড়াতে হবে। তাহলে আমাদের নতুন প্রজন্মরা মেধাবী হয়ে গড়ে উঠবে। বিভিন্ন বিষয়ভিত্তিক বস্তুনিষ্ঠ শুদ্ধ বিতর্ক চর্চা সৃজনশীল মেধা বিকাশে সহায়ক ভূমিকা পালন করে। এসময় মন্ত্রী এমন একটি শিক্ষামূলক অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য আয়োজকদেরকে ধন্যবাদ জানান। অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের ডিএমডি (পিআরএল) এম. এ কাইয়ূম। প্রধান আলোচক ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের অধ্যাপক ও নাহার এগ্রো লিমিটেডের পরিচালক ড. মোহাম্মদ সামসুদ্দোহা। বিশেষ অতিথি ছিলেন মিরসরাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) ইয়াছমিন আক্তার কাকলী, নোয়াখালী জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের সহকারী-পরিচালক মো. জসীম উদ্দিন ও মিরসরাই উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ফেরদৌস হোসেন আরিফ। অনুষ্ঠানে সংগঠন কর্তৃক ২০১৮ সালে মনোনীত তিন গুণীজনকে স্ব-স্ব ক্ষেত্রে অবদান রাখায় সম্মাননা স্বরূপ ‘দুর্বার প্রগতি পদক’ প্রদান করা হয়। পদকপ্রাপ্তরা হলো মাদকের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলে সামাজিক অবক্ষয়রোধে অবদান রাখায় মুক্তি ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি শেখ আতাউর রহমান, সমাজসেবায় সফিউল্লাহ চৌধুরী ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা কামরুল ইসলাম চৌধুরী ও নারীর অগ্রযাত্রায় জোরারগঞ্জ মহিলা কলেজের সভাপতি রাশেদা আক্তার মুন্নি। ফাইনাল বিতর্কে বিচারক প্যানেলে সভাপতিত্ব করেন দৈনিক আজাদীর ফিচার সম্পাদকও না্যঁজন প্রদীপ দেওয়ানজী, বিচারক ছিলেন চ্যানেল আইয়ের চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান ও চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ, দৈনিক পূর্বদেশের সহকারী সম্পাদকও চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের অর্থ সম্পাদক দেবদুলাল ভৌমিক ও দৈনিক সমকালের স্টাফ রিপোর্টার ও চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের প্রচার-প্রকাশনা সম্পাদক আহমেদ কুতুব। সংগঠনের সাধারন সম্পাদক ইমাম হোসেন চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সমাজসেবক মীর্জা জসীম উদ্দিন, শান্তিনীড় সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার আশরাফ উদ্দীন, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তানভীর হোসেন তপু, মিরসরাই উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাসেল ইকবাল চৌধুরী, সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হাসান মো. সাইফ উদ্দীন, সিনিয়র সহ-সভাপতি মহিবুল হাসান সজীব, আয়োজক পরিষদের আহবায়ক নাহিদুল আনসার ও অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি আশিষ দাশ।
উল্লেখ্য, মিরসরাই ও সীতাকুন্ড উপজেলার ৮ টি কলেজ নিয়ে এ বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। যুক্তির তোড়ে পাল্টা যুক্তি উপস্থাপন করে শেষ পর্যন্ত ফাইনাল রাউন্ডে ডিবেট চ্যাম্পিয়ন হন বারইয়ারহাঁ ডিগ্রী কলেজ ও রানার্স আপ হন সীতাকুন্ডের বিজয় স্মরণী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ। ফাইনাল রাউন্ডে ‘তথ্য প্রযুক্তির উৎকর্ষতা যতটা না আশির্বাদ তার চেয়ে বেশি অভিশাপ’ এ বিষয়ের উপর বিতর্ক অনুষ্ঠিত হয়। শ্রেষ্ঠ বিতার্কিক নির্বাচিত হন বারইয়ারহাট ডিগ্রী কলেজের দ্বিতীয় বক্তা জান্নাত আরা প্রীতি। এছাড়া উপজেলার ৭০ টি স্কুল-মাদ্রাসা থেকে বাছাইকৃত এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ প্রাপ্ত মেধায় অনন্য-আর্থিকভাবে অসচ্ছল এরূপ ৩৫ শিক্ষার্থীকে সংবর্ধনা, শিক্ষাবৃত্তি ও শিক্ষা সামগ্রী প্রদান করা হয়। তাদের উচ্চ শিক্ষার স্বপ্ন পূরণে সবসময় পাশে থাকবে এ সংগঠন। এছাড়া সংগঠন কর্তৃক প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হাসান মো. সাইফ উদ্দীনকে প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকে সফল নেতৃত্বে সংগঠনের অগ্রযাত্রায় অবদান স্বরূপ ‘দুর্বার রতœ’ অ্যাওয়ার্ড় প্রদান করা হয় ও নির্বাচিত শ্রেষ্ঠ ২০১৬-২০১৮ কার্যকরি পরিষদের অর্থ সম্পাদক আলী হায়দার চৌধুরীকে প্রেসিডেন্ট এ্যাওয়ার্ড, শ্রেষ্ঠ সদস্য মেজবাহ উদ্দীন ও ইমরুল হাছান পলিন, উত্তম সদস্য রিয়াজ উদ্দীন রাকিব ও অনিক ভৌমিককে অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ