ঢাকা, বৃহস্পতিবার 2 August 2018, ১৮ শ্রাবণ ১৪২৫, ১৯ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রংপুরে পুরাতন সদর হাসপাতাল ক্যাম্পাসে বছরে ৬০ লাখ ওরস্যালাইন তৈরি হচ্ছে

মোহাম্মদ নুরুজ্জামান, রংপুর অফিস : রংপুর নগরীর সদর হাসপাতালে অবস্থিত উত্তরাঞ্চলের একমাত্র সরকারি খাবার স্যালাইন উৎপাদন ও সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানটি প্রতি বছর ৬০ লাখের বেশি খাবার স্যালাই উৎপাদন এবং বিনামূলে সরবারাহ করছে।  রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের হাসপাতাল ও স্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলোর জন্য জনস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট এর ব্যাবস্থাপনায় এসব খাবার স্যালাইন তৈরী এবং সরবরাহ করা হচ্ছে। খাবার স্যালাইন তৈরী করে উত্তরাঞ্চলের ১৬ জেলার স্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলোতে পাঠানো হয় বলে জানা গেছে। 

এই প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের নিরলস শ্রমের ফলে রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের ১৬টি জেলার সরকারি এবং স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানে প্রতি বছর বিনামূলে চাহিদা অনুযায়ী এই স্যালাইন সরবরাহ করা হচ্ছে। এই প্রতিষ্ঠানের সুপার ভাইজার জানান, স্যালাইন উৎপাদনে কোন ঘাটতি নেই। এখান থেকে প্রতি বছর ৬০ লাখের বেশি স্যালইন উৎপাদন হয়। জানা গেছে, রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠান ছাড়াও বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানে যেখানে স্বাস্থ্য সেবা চালু আছে সেখানে এ সব খাবার স্যালইন সরবরাহ করা হচ্ছে । সাধারনত ঃ জুন মাসে খাবার স্যালইনের চাহিদা বৃদ্ধি পায়। তবে সংকট যাতে না হয় সেজন্য আগে থেকেই স্যালাইনের রিজার্ভ বৃদ্ধি করা হয়। জানা গেছে, চাহিদার তুলায় এখানে বেশি স্যালাইন উৎপাদন হচ্ছে। এই স্যালাইনগুলো রাখার মত তেমন বড় ধরনের কোন সংরক্ষণাগাড় বা স্টোর নেই। এখানে একটি অত্যাধুনিক সংরক্ষণাগার নির্মাণের জরুরী প্রয়োজন।

উল্লেখ্য, ১৯৮০ সালে রংপুর পুরাতন সদর হাসপাতালের পরিত্যক্ত ভবনে এই খাবার স্যালইন উৎপাদন ও সরবরাহকারি প্রতিষ্ঠানটির যাত্রা শুরু হয়। ১৯৯০ সাল পর্যন্ত এখানে প্রতিবছর মাত্র ৪/৫ লাখ প্যাকেট খাবার স্যালাইন উৎপাদিত হতো। বর্তমানে এই প্রতিষ্ঠানটিতে স্যালাইন উৎপাদন বেড়ে বছরে ৬০ লাখের বেশি প্যাকেটে দাঁড়িয়েছে। উৎপাদিত এসব খাবার স্যালাইন রংপুর বিভাগের রংপুর, কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, ঠাকুরগাঁও, পঞ্চগড়, গাইবান্ধা এবং নীলফামারী জেলা ও রাজশাহী বিভাগের ৩টি সরকারি হাসপাতাল, সদর হাসপাতাল, সিভিল সার্জনের ১৬টি রিজার্ভ সেন্টার, ২টি সিটি করপোরেশনসহ বিভিন্ন পৌরসভা, পুলিশ ট্রেনিং সেন্টার ও হাসপাতাল এবং কেন্দ্রীয় কারাগারে সরবরাহ করা হচ্ছে। রংপরের সিভিল সার্জন ডাক্তার জাকিরুল ইসলাম জানান, এই প্রতিষ্ঠান চাহিদা অনুযায়ী বিনামূলে স্যালাইন সরবরাহ করছে । এখানে প্রতি বছর ৬০ লাখের বেশি প্যাকেট খাবার স্যালাইন উৎপাদন হচ্ছে। এখানকার উৎপাদিত খাবার স্যালাইন সংরক্ষণের জন্য একটি আধুনিক সংরক্ষণাগার নির্মাণ প্রয়োজন। এ জন্য স্বাস্থ মন্ত্রণালয়ে আবেদন করা হয়েছে ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ