ঢাকা, বৃহস্পতিবার 2 August 2018, ১৮ শ্রাবণ ১৪২৫, ১৯ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

দুই শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনা তদন্তে হাইকোর্টের কমিটি গঠন

স্টাফ রিপোর্টার: রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে দুই বাসের রেষারেষিতে দুই শিক্ষার্থীর প্রাণহানির ঘটনা তদন্তে কমিটি গঠন করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটির সদস্যরা হলেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) অ্যাক্সিডেন্ট রিসার্চ ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক মিজানুর রহমান, অধ্যাপক মো. হাদিউজ্জামান ও নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন।
কমিটি দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধান, দুর্ঘটনার জন্য কার কতটুকু দায় তা নিরূপণ করবে বলে জানিয়েছেন রিটকারী আইনজীবী ব্যারিস্টার রুহুল কাজল।
রিটকারী বিষয়টি আদালতে উপস্থাপন করার পর গতকাল বুধবার বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন।
পরে ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল সাংবাদিকদের বলেন, তিতুমীর কলেজের ছাত্র দুর্ঘটনায় হাত হারানোর পর মারা যাওয়া রাজীবের ঘটনা তদন্তে গঠিত কমিটিকেই দুই শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনা তদন্তের দায়িত্ব দিয়েছেন। এই কমিটি দুই মাসের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করবে।
এর আগে গত ৩০ জুলাই রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের অদূরে বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় নিহত শিক্ষার্থী নিহত দিয়া আক্তার মিম ও আবদুল করিমের পরিবারকে তাৎক্ষণিকভাবে পাঁচ লাখ টাকা করে দেওয়ার নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। এক সপ্তাহের মধ্যে পাঁচ লাখ টাকা করে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে বাসচাপায় আহতদের চিকিৎসার সব ব্যয় বহন করতে জাবালে নূরের মালিক ও বিআরটিএ কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
এ ছাড়া রুলে নিহত দুই শিক্ষার্থীর পরিবারকে দুই কোটি টাকা করে ক্ষতিপূরণ কেন দেওয়া হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়েছে।
একই সঙ্গে যাত্রীসাধারণের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়েছেন আদালত। এ ছাড়া কোন যোগ্যতার ভিত্তিতে বিআরটিএ বাস-ট্রাকচালকদের লাইসেন্স প্রদান করে, রুলে তাও জানতে চাওয়া হয়েছে।
গত রোববার দুপুরে রাজধানীর কুর্মিটোলায় বিমানবন্দর সড়কে বাসের চাপায় দুই কলেজ শিক্ষার্থী নিহত হয়। নিহতরা হলো শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী দিয়া খানম মীম ও দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আবদুল করিম।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ