ঢাকা, শুক্রবার 3 August 2018, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৫, ২০ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ছড়া

পাখি সংসার

শাহিদ উল ইসলাম

 

দুইটি চড়ুই ভালোবেসে

বাঁধলো যে ঘর ঘরের কোনে

এই বরষায়;

নতুন নতুন স্বপ্নগুলো 

মেলবে ডানা উড়বে হাওয়ায়

এই ভরসায়!

চলছিলো বেশ কাটছিল বেশ

পাখির পাতা সংসার

ছানা হলো পোনা হলো

সুরে নতুন ঝংকার।

কিন্তু বিপদ আসলো তেড়ে

হুররে রেরে রেরে

দুষ্ট ছেলে ছানাগুলো

নিলো যে আজ কেড়ে।

করলে এমন পাখিগুলো

বাঁধবে যে ঘর ঘরের কোনে

কোন দেশেতে?

পাখিশূন্য ভোর হবে যে

থাকবে না আর পাখপাখালী

সব শেষেতে।

 

 

অভিমানের গান

আতিফ আবু বকর

 

খুঁজলে আমায় পাবে না মা

লুকোবো ওই তারার দেশে,

চুপটি করে দেখবো তোমায়

উড়ে-উড়ে অচিন বেশে।

 

আড়ি তোমায় দেবো নাকো 

যতই তুমি রাগতে থাকো

অভিমানে অনেকগুলো

দাও যদি মা বকা,

আমি শুধু দেখব চেয়ে

তুমি আমার খোঁজ না পেয়ে

করছে কেমন শেষে!!

 

মা ওগো মা ওমা তুমি

কেন এতো রাগো

এতো এতো নিয়ম মানা

হয় না আমার মাগো।

 

হঠাৎ তুমি উঠলে কেঁদে

পড়বে দেয়াল আমার জেদে

সব অনুযোগ ভুলে গিয়ে

ফিরবো তোমার কোলে,

মুখ লুকোলে ঐ আঁচলে

পড়বে আদর গলে গলে

আমায় ভালোবেসে।।

 

 

বাদলদিনে 

শেখ বিপ্লব হোসেন

 

গ্রীষ্ম শেষে বর্ষা এসে

ভরায় মাটির প্রাণ, 

দূরে বনে কদম-কেয়া

ছড়ায় মধুর ঘ্রাণ ।

 

ভরদুপুরে টিনের চালে

বৃষ্টিনূপুর বাজে,

মাতাল হাওয়া তারই কথায়

জাগায় হিয়ার মাঝে।

 

কলার ভেলায় পুতুল বিয়ে

আরো অনেক স্মৃতি,

ফেলে আসা দিনগুলি হায়

বাড়ায় মনে প্রীতি! 

 

রুনুঝুনু  ময়না-মতি 

কোথায় গেলি ওরে,

আজকের এই বাদলাদিনে

তোদের মনে পড়ে।

 

 

বর্ষা মানে

কাজী আবুল কাশেম রতন

 

বর্ষা মানে দিন-দুপুরে 

কদম ফুলের গন্ধ,

কবির মনে নতুন ছড়া

গান কবিতার ছন্দ।

 

বর্ষা মানে হঠাৎ করে

টাপুর-টুপুর বৃষ্টি,

আকাশজুড়ে মেঘে মেঘে 

নেয় ছিনিয়ে দৃষ্টি।

 

বর্ষা মানে রয় লুকিয়ে 

লম্বা কলো সাপটা,

চুপটি করে ব্যাঙের দলে 

হঠাৎ মারে ঝাপটা।

 

বর্ষা মানে চলতে গেলে 

এই ভাবনা হরদম,

পিছলা পথে আছাড় খেলে 

লাগবে গায়ে কর্দম।

 

বর্ষা মানে মেঘের জলে 

হঠাৎ পুকুর ভরবে,

চতুর্দিকে জলে জলে

শুধুই খেলা করবে।

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ