ঢাকা, শুক্রবার 3 August 2018, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৫, ২০ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

খুলনায় কাগজপত্রবিহীন প্রাইভেটকারের ধাক্কায় ৮ শিক্ষার্থী-পুলিশ আহত 

খুলনা অফিস : খুলনায় পালাতে গিয়ে নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনরত আট শিক্ষার্থী ও এক ট্রাফিক পুলিশকে আহত করেছে কাগজপত্রবিহীন একটি প্রাইভেটকার (খুলনা মেট্রো-চ-১১-০২৭১)। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টার দিকে টাইগার গার্ডেনের সামনের সড়কে এ ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন-খুলনা সরকারি (খুলনা কমার্শিয়াল কলেজ) কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র মেহেদী হাসান আবু জর, বয়রা মডেল কলেজের ছাত্র মিহান, আগাখান স্কুলের ৭ শ্রেণির রাফিদ হাসান, মহসিন কলেজের ছাত্র রাজু ও ট্রাফিক পুলিশের এটিএসআই আবু সোলাইমান। এছাড়া বিকেল ৪টার দিকে খুলনা উন্নয়ন কর্তপক্ষের (কেডিএ) একটি গাড়ি শেখ পাড়া এলাকায় আন্দোলনকারী খানজাহান আলী সায়েন্স এন্ড টেকনোলজির শিক্ষার্থী মো. জাহিদ, সরকারি সুন্দরবন কলেজের আজবার রাজ, স্কুল শিক্ষার্থী রাফিদ ইসলামকে চাপা দেয়। আহতদের প্রাথমিকভাবে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। 

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ময়লাপোতা থেকে একটি প্রাইভেটকার আসছিল। সেটি থামিয়ে চালকের কাছে কাগজপত্র দেখতে চান আন্দোলকারীরা। চালক কাগজপত্র দেখাতে ব্যর্থ হন। পরে চালক গাড়ি নিয়ে পালাতে চাইলে আবার বাধা দেন শিক্ষার্থীরা। তখন চালক বেপরোয়াভাবে শিববাড়ি হয়ে যশোর রোড দিয়ে পালাতে গেলে গাড়ির ধাক্কায় পড়ে যান পাঁচ শিক্ষার্থী। আর ট্রাফিক পুলিশ রাস্তার পাশের তারকাঁটার উপর পড়ে আহত হন। 

পরে শিক্ষার্থীরা ক্ষিপ্ত হয়ে মোটরসাইকেল নিয়ে প্রায় ১০ কিলোমিটার ধাওয়া করে ফুলবাড়িগেট এলাকা থেকে কারটিকে আটক করেন। তবে গাড়ি রেখে পালিয়ে যান চালক। 

এছাড়া বিকেল ৪টার দিকে ভূমি অফিসের একটি গাড়ি শেখপাড়া এলাকায় আন্দোলনকারী কলেজ শিক্ষার্থী মো. জাহিদকে চাপা দেয়। তাকে তাৎক্ষণিকভাবে কিউর হোম ক্লিনিকে নিয়ে ভর্তি করা হয়।

ঢাকায় আন্দোলনরত ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের উপর পুলিশের হামলার প্রতিবাদ এবং নিরাপদ সড়কের দাবিতে খুলনায় সাধারণ শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করছেন। মহানগরীর শিববাড়ি মোড়ে বৃহস্পতিবার দুপুর ১টা থেকে সাধারণ শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন, বিক্ষোভ, সমাবেশ করেন। যা বিকেল ৫টার দিকে শেষ হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ