ঢাকা, শুক্রবার 3 August 2018, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৫, ২০ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সিংড়ায় গ্রামীণ সড়কের বেহাল দশা ॥ ভোগান্তি চরমে

নাটোরের সিংড়া উপজেলার বেশ কিছু গ্রামীণ সড়কের বেহাল দশা। দীর্ঘদিন যাবত সড়কগুলো মেরামত না করায় গত কয়েক দিনের ভারী বর্ষণে এখন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে সড়কগুলো। ছবিতে জামতলী-বামিহাল সড়কের দৃশ্য

মো. আবু জাফর সিদ্দিকী, সিংড়া (নাটোর) : নাটোরের সিংড়া উপজেলার বেশ কিছু গ্রামীণ সড়কের বেহাল দশা। দীর্ঘদিন যাবত সড়কগুলো মেরামত না করায় গত কয়েক দিনের ভারী বর্ষণে এখন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে সড়কগুলো। সড়কগুলোর বিভিন্ন স্থানে কার্পেটিং উঠে খানাখন্দে পরিণত হয়েছে। কোন কোন সড়কের দু’পাশ ভেঙে ভারী যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। এতে সাধারণ মানুষ, ছাত্র-ছাত্রী ও ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষকে প্রতিনিয়ত চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। 

ক্ষতিগ্রস্ত সড়কগুলোর মধ্যে জনগুরুত্বপূর্ণ নাটোর-বগুড়া মহাসড়কের সিংড়া হতে বাঁশের ব্রীজ, জামতলী-বামিহাল সড়ক, রাতাল-বিয়াস সড়ক, বিনগ্রাম-খোলাবাড়িয়া সড়ক, রাণীপুকুর-শালমারা সড়ক, বালুয়া বাসুয়া-চলনবিলের সড়কের কিছু অংশ, শেরকোল ইউনিয়নের তেলীগ্রাম-বারৈহাটি সড়ক, ছাঁতারদিঘী ইউনিয়নের বেশ কিছু গ্রামীণ সড়কসহ আরো বিভিন্ন গ্রামের পাকা সড়ক এখন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। 

উজ্জল রায় নামের এক ব্যবসায়ী জানান, নাটোর-বগুড়া মহাসড়কটি জনগুরুত্বপূর্ণ। এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন বিভিন্ন রুটের হাজার হাজার যানবাহন চলাচল করে। দীর্ঘদিন যাবত মেরামত না করায় বিভিন্ন স্থানে কার্পেটিং উঠে খানাখন্দে পরিণত হয়েছে। যার কারণে ঝুঁকি নিয়েই চলাচল করতে হচ্ছে। 

বিপ্লব হোসেন নামের এক ব্যবসায়ী জানান, জামতলী-বামিহাল সড়ক দিয়ে তিনটি ইউনিয়নের হাজারও লোকজন যাতায়াত করে। কিন্তু এ সড়কটি দীর্ঘদিন যাবত মেরামত না করায় বৃষ্টির পানিতে রাস্তায় খানাখন্দে পরিণত হয়েছে। এ অঞ্চলের কৃষকদের কৃষি পণ্য পরিবহনে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

জামতলীর মানিকদিঘী গ্রামের কলেজ ছাত্র এনামুল হক বলেন, দীর্ঘদিন যাবত সড়কগুলো মেরামত না করায় কয়েকদিনের বৃষ্টিতে এ রাস্তা চলাচলের অনুপযোগী হয়েছে। আমরা দ্রুত এ পরিস্থিতির অবসান চাই।

বৃষ্টির মৌসুম চলে গেলে উপজেলার গ্রামীণ সড়কগুলো সংস্কার করা হবে বলে জানান উপজেলা প্রকৌশলী হাসান আলী।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ