ঢাকা, শুক্রবার 3 August 2018, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৫, ২০ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

মাদারীপুরে অনির্দিষ্টকালের জন্যে দূরপাল্লার পরিবহন বন্ধ রেখেছে পরিবহন মালিক-শ্রমিকরা

মাদারীপুর সংবাদদাতা : ঢাকায় পরিবহন ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের অভিযোগ এনে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে অনির্র্দিষ্টকালের জন্যে মাদারীপুরে দূরপাল্লার পরিবহন চলাচলা বন্ধ রেখেছে পরিবহন মালিক-শ্রমিকরা। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছে সাধারণ যাত্রীরা। তবে অভ্যন্তরীণ রুটে পরিবহন চলাচল করছে।

পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের দাবী, ঢাকায় বিভিন্ন পরিবহন ভাংচুর করছে শিক্ষার্থীরা। এতে শ্রমিক ও মালিকদের জানমালের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। এই কারণে মাদারীপুর থেকে ছেড়ে যাওয়া সকল ধরণে দূরপাল্লার পরিবহন বন্ধ রাখা হয়েছে। এছাড়ও এই ঘটনায় নৌপরিবহন মন্ত্রী ও শ্রমিক ফেডারেশনের কার্যকরী সভাপতি শাজাহান খানের সম্পূক্ত না থাকা সত্বেও তার পদত্যাগ দাবী করা হচ্ছে। যা সম্পূর্ণ অযৌক্তিক। এরই প্রতিবাদে যানবাহন চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। এসময় নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খানের পারিবারিক ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান ‘সার্বিক পরিবহন’ বন্ধ রাখা হয়েছে। এসব সমস্যার সমাধান না হওয়া পর্যন্ত পরিবহন বন্ধ থাকারও হুমকি দেন মালিক-শ্রমিকরা। কোন ঘোষণা ছাড়া দূরপাল্লার পরিবহন বন্ধ রাখায় দুর্ভোগে পড়েছে সাধারণ যাত্রীরা।  একাধিক যাত্রী জানান, কোন পূর্ব ঘোষণা ছাড়া পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের খামখেয়ালির রোষানলে পড়ে অবর্ণীয় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এতে ঢাকাসহ অন্য কোথাও যাতায়াত করা যাচ্ছে না। অনেকের জরুরী কাজ থাকা সত্বেও দূরে যেতে পারছে না।  এব্যাপারে নৌ-পরিবহন মন্ত্রীর পারিবারিক প্রতিষ্ঠান ‘সার্বিক পরিবহন’ এর ম্যানেজার মোসলে উদ্দীন জানান, ‘আমরা পরিবহন ভাংচুরের হাত থেকে রেহাই পেতে পরিবহন বন্ধ রেখেছি। আন্দোলন যতদিন বন্ধ না হবে, ততদিন আমাদের পরিবহনও বন্ধ থাকবে।’ এব্যাপারে মাদারীপুর সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি ফাইজুল শরীফ জানান, ‘আমরা নিয়মতান্ত্রিক উপায়ে দূরপাল্লার সকল পরিবহন বন্ধ রেখেছি। আমাদের ছাত্রদের উপর কোন ক্ষোভ নেই তবে তারা যে পরিবহন ভাংচুর করছে, তা সমর্থন করি না। তাদের দাবী দাওয়া থাকতে পারে, তবে পরিবহন ভাংচুর, শ্রমিকদের মারধর করে নয়। যতক্ষণ এই সমস্যার সমাধান না হবে, ততদিন পরিবহন বন্ধ থাকবে।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ