ঢাকা, রোববার 5 August 2018, ২১ শ্রাবণ ১৪২৫, ২২ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বিএনপি-জামায়াত অরাজনৈতিক শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে সহিংসতায় রূপ দিয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, রাজনৈতিক অপশক্তি আন্দোলনে অনুপ্রবেশ ঘটিয়ে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে পুঁজি করে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে হামলা করেছে। বিএনপি-জামায়াত অরাজনৈতিক শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে সহিংসতায় রূপ দিয়েছে।
গতকাল শনিবার বিকেলে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এসব কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। বিকেলে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে হামলার অভিযোগ পাওয়া যায়। এর পরিপ্রেক্ষিতে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক সম্মেলন করেন।
এর আগে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থী ও আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের মধ্যে দফায় দফায় পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের একটি অংশ আওয়ামী লীগের ধানমন্ডির কার্যালয়ে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। পরে আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীরা শিক্ষার্থীদের ধাওয়া দেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ অবস্থান নেয়। এ ছাড়া আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারাও ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি শান্ত করেন।
সম্মেলনে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি-জামায়াত ৯ বছরে আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে সর্বশেষ কোমলমতি শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে পুঁজি করেছে। বিএনপি-জামায়াত শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে অনুপ্রবেশ ঘটিয়ে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরি করতে চাচ্ছে। তিনি অভিযোগ করেন, বিএনপি-জামায়াত একটি অরাজনৈতিক আন্দোলনকে সহিংসতায় রূপ দিচ্ছে। এমনকি স্কুল-কলেজের পোশাক পরিয়ে ভুয়া পরিচয়পত্র সংগ্রহ করে সহিংসতা করার জন্য লোক পাঠানো হয়েছে, এ খবরও পাওয়া গেছে।
দলীয় কার্যালয়ে হামলাকারীরা শিক্ষার্থী নয় দাবি করে ওবায়দুল কাদের বলেন, যারা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে তেড়ে এসেছে, তারা শিক্ষার্থী নয়। তারা রাজনৈতিক দুর্বৃত্ত। শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার সময় আওয়ামী লীগের ১৭ জন নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন। তাঁরা একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ ছাড়া শিক্ষার্থীদের ছোড়া ইটপাটকেল নিক্ষেপের কারণে দলীয় কার্যালয়ের জানালার কাচ ভেঙে গেছে। তিনি প্রশ্ন করেন, ‘কারা এই উসকানি দিচ্ছে? কারা আইডি বানিয়ে অনুপ্রবেশ করছে? তাদের নাশকতার পরিকল্পনা আছে, এ খবর আমাদের কাছে আছে।’
নাশকতার বর্ণনা দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেছেন হামলাকারীদের হাতে আগ্নেয়াস্ত্র ছিল। হামলাকারীরা নাশকতার কর্মকান্ডে অভ্যস্ত এবং প্রশিক্ষিতরাই এই হামলা চালিয়েছে। এ সময় সচেতন দেশবাসীর কাছে তিনি আহ্বান জানান, কোমলমতি শিক্ষার্থীদের ব্যবহার করে, তাদের হাতিয়ার বানিয়ে কেউ যেন কোনো ন্যক্কারজনক ঘটনা ঘটাতে না পারে, এ জন্য সবাইকে প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানান।

আন্দোলনে রাজনৈতিক অনুপ্রবেশ ঘটেছে : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, যৌক্তিক একটি আন্দোলনের মধ্যে যখন রাজনৈতিক অপশক্তির অনুপ্রবেশ ঘটে, তখন উদ্বিগ্ন হতে হয়। এই আন্দোলনে এই পর্যন্ত বারবার খবর পাওয়া যাচ্ছে, এখানে রাজনৈতিক অনুপ্রবেশ ঘটেছে। গতকাল শনিবার দুপুরে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের সম্পাদকমন্ডলীর সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের এ মন্তব্য করেন।
ওবায়দুল কাদের বলেন, যারা শিক্ষার্থীদের অরাজনৈতিক আন্দোলনে রাজনৈতিক রং চড়াতে চায়, তাদের ব্যাপারে নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সতর্ক থাকতে হবে।
আন্দোলনে ঢাকা কলেজ ছাত্রদলের এক সহসভাপতির ছবি দেখিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, সন্ধ্যার পর কোমলমতি ছাত্রছাত্রীরা যখন বেশি থাকে না, তখন এদের মধ্যে এই অনুপ্রবেশকারীরা ঢুকে যায়। তখন তাদের বাস ভাঙচুরের উসকানি দেওয়া হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ