ঢাকা, রোববার 5 August 2018, ২১ শ্রাবণ ১৪২৫, ২২ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

চারদিকে সরকার পতনের পদধ্বনি শোনা যাচ্ছে -দুদু

স্টাফ রিপোর্টার : চারদিকে সরকার পতনের পদধ্বনি শোনা যাচ্ছে মন্তব্য করে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, দেশের এই ভয়াবহ পরিণতির জন্য প্রধানমন্ত্রীকে জাতির কাছে ক্ষমা চাইতে হবে। তিনি বলেন, গত কয়েক দিনে দেশের কোমলমতি শিক্ষর্থীরা চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে দেশের সার্বিক অবস্থা কতটা ভয়াবহ। আপনার  শাসনকালে আপনি যে অন্যায়, অত্যাচার করেছেন মানুষের উপরে তার জন্য রাস্তায় নেমে শিশু-কিশোরদের কাছে ক্ষমা চান।
গতকাল শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আদর্শ নাগরিক আন্দোলন আয়োজিত ‘দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার সম্পাদক প্রকৌশলী মাহমুদুর রহমানের উপর বর্বরোচিত হামলা এবং দেশের চলমান ছাত্রছাত্রীদের ন্যায়সংগত আন্দোলনে অব্যাহত হামলা মামলার প্রতিবাদে এক নাগরিক মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্দেশ্যে শামসুজ্জামান দুদু বলেন, প্রধানমন্ত্রী আপনার উচিত হবে এই ন্যায্য দাবিতে আন্দোলনরত শিশু-কিশোরদের কাছে ক্ষমা চাওয়া, আপনার শাসনকালে আপনি যে অন্যায়, অত্যাচার করেছেন মানুষের ওপরে তার জন্য রাস্তায় নেমে শিশু-কিশোরদের কাছে ক্ষমা চান। আপনার শাসন যে কতটা হাস্যকর কতটা নির্মম নিষ্ঠুর আপনি নিজেও জানেন না।
তিনি বলেন, আমরা গত ৭ দিন ধরে ছোট ছোট ছেলে-মেয়েদের আন্দোলন করতে দেখছি, তারা রাস্তায় গাড়ি ধরে ধরে লাইসেন্স দেখছে। গাজীপুর, খুলনা, রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেট সিটি নির্বাচনে পুলিশ না থেকে যদি এই শিশুকিশোররা সুষ্ঠু নির্বাচনের আহ্বান জানাতো তা হলে সুষ্ঠু নির্বাচন হতো।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্দেশে বিএনপির এই শীর্ষনেতা আরও বলেন, আজকেও সারাদেশে ৫ জন মারা গেছে, এর জন্য দায়ি আপনার মন্ত্রী শাজাহান খান, আপনি তাকে পদত্যাগ করাতে পারছেন না। আজকে এই লাইসেন্স বিহীন মানুষগুলোই মানুষ হত্যা করছে, এরা চাদাবাজি করছে, এরা মানুষ খুন করছে। আর এরা প্রত্যেকটি মানুষ শাহজাহান খানের লোক।
তিনি বলেন, এখন মানুষের কোন নিরাপত্তা নেই। এই শাজাহান খানের লোকেরা রাস্তায় মানুষের ওপর গাড়ি উঠিয়ে দিবে, সরকার উল্লাস করবেন হাসবেন, এই হাসির পিছনে একটা ছায়া রয়েছে, সেই ছায়ার মানুষটিকে আমরা দেখতে পাই, তিনি হচ্ছেন শেখ হাসিনা। তিনি যদি সত্যিকার অর্থে বিচার চাইতেন সে দিনেই শাহজাহান খানকে পদত্যাগ করতে বাধ্য করতেন। সেটা না করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী হুমকি দিচ্ছেন, সেতুমন্ত্রী হুমকী দিচ্ছেন।
এসময় দুদু হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, আপনাদের সময় কমে আসছে। কোথায় পালাবেন ? জায়গা খুঁজে পাবেন না, শিশু-কিশোরদের আন্দোলনে আজকে মাথা খারাপ হয়ে গেছে, ছাত্ররা নামে নাই, শ্রমিকরা নামে নাই তারা নামলে তখন কই যাবেন। তাই আপনাদের বলছি সময় থাকতে, খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেন, অন্যথায় কিছুদিন পর নতুন সরকার আসবে তখন আপনাদের সকল কিছুর হিসেব দিতে হবে।
মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলার প্রসঙ্গ টেনে ছাত্রদলের সাবেক এই সভাপতি বলেন, মাহমুদুর রহমান কিছু দিন আগে কুষ্টিয়া গিয়েছিলেন মামলার হাজিরা দিতে, কিন্তু আমরা সেখানে দেখলাম তাকে পুলিশী সহায়তা না করে সন্ত্রাসীদের হাতে তুলে দিয়েছিলেন। আজকে বেশ কিছুদিন হয়ে গেলেও হামলাকারীদের বিচারের আওতায় আনা হয়নি, আমরা যখন ক্ষমতায় আসবো তাদের বিচারের আওতায় কাটগড়ায় দাঁড় করানো হবে।
আয়োজক সংগঠনের সভাপতি মাহমুদুল হাসানের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে জাতীয় পার্টি(জাফর)  প্রেসিডিয়াম সদস্য আহসান হাবীব লিঙ্কন, ন্যাপের মহাসচিব এম গোলাম মোস্তফা ভূইয়া, জিনাফের সভাপতি লায়ন মিয়া মোহাম্মাদ আনোয়ার,  দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন, ছাত্রদলের সহ-সাধারণ সম্পাদক আরিফা সুলতানা রুমা প্রমুখ বক্তব্য দেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ