ঢাকা, সোমবার 6 August 2018, ২২ শ্রাবণ ১৪২৫, ২৩ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সরকার জনগণকে দুর্ভোগে ফেলে শিক্ষার্থীদের অরাজনৈতিক আন্দোলন বানচালের ষড়যন্ত্র করছে -মকবুল আহমাদ

নিরাপদ সড়কের দাবিতে দেশের শিক্ষার্থীদের অরাজনৈতিক আন্দোলন বানচাল করার হীন উদ্দেশ্যে নিরপরাধ কোমলমতি ছাত্র-ছাত্রীদের ওপর পুলিশ, ছাত্রলীগ ও শ্রমিক লীগের নির্লজ্জ হামলা, সরকারের ইঙ্গিতে সরকারের মদদপুষ্ট পরিবহণ মালিক ও শ্রমিক কর্তৃক সকল প্রকার গণপরিবহণ বন্ধ এবং বাংলাদেশে নিযুক্ত বিদায়ী মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাটের গাড়িতে ও সুজন সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদারের বাসায় সন্ত্রাসীদের হামলার নিন্দা জানিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীর মকবুল আহমাদ বলেন, নিরাপদ সড়কের দাবিতে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের অরাজনৈতিক আন্দোলন বানচাল করার হীন উদ্দেশ্যে সরকারের সমর্থক পরিবহণ শ্রমিকদের যানবাহন চলাচল বন্ধ রাখার ফলে জনদুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করেছে। এ পরিস্থিতিতে দেশের সর্বস্তরের জনগণের সাথে সাথে আমরাও গভীরভাবে উদ্বিগ্ন।
গতকাল রোববার দেয়া বিবৃতিতে তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের অরাজনৈতিক আন্দোলন বানচাল করার জন্য বাস চলাচল বন্ধ রেখে পরিবহণ শ্রমিকদের মাঠে নামিয়ে সরকার আত্মঘাতি কাজ করছে। দেশবাসী ভালভাবেই জানেন যে, সরকার দেশের জনগণকে দুর্ভোগে ফেলে শিক্ষার্থীদের অরাজনৈতিক আন্দোলন বানচাল করার ষড়যন্ত্র করছে। যানবাহন বন্ধ রাখার ফলে সৃষ্ট জনদুর্ভোগের জন্য সরকারই একশত ভাগ দায়ী। সরকারের চরম ব্যর্থতার কারণেই সড়ক দুর্ঘটনায় প্রতিদিন বহু মানুষ পঙ্গু হচ্ছে এবং গড়ে প্রতিদিনই প্রায় ৬৪ জন লোক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হচ্ছে।
তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শিক্ষার্থীদের দাবি মানার আশ্বাস দেয়া সত্ত্বেও শিক্ষার্থীরা তার কথায় বিশ্বাস স্থাপন করতে পারছে না। কারণ প্রধানমন্ত্রী কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনকারীদের দাবি মেনে নেয়ার ঘোষণা দেয়া সত্ত্বেও আজ পর্যন্ত তাদের দাবি মেনে নেয়া হয়নি। কোনো প্রজ্ঞাপন জারি না করে বরং প্রধানমন্ত্রী নিজেই আদালতের দোহাই দিয়ে ভিত্তিহীন অসত্য বক্তব্য দিয়েছেন। যে কারণে শিক্ষার্থীরা তার কথায় বিশ্বাস স্থাপন করতে পারছে না।
তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী একদিকে শিক্ষার্থীদের সব দাবি মেনে নেয়ার কথা বলছেন, আবার অন্যদিকে ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীদের লেলিয়ে দিয়ে শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালানো হচ্ছে। ৪ জুলাই ঝিগাতলায় ছাত্রলীগের হামলায় শতাধিক শিক্ষার্থী আহত হয়েছে। শুধু তাই নয়, তাদের হাতে ছাত্রীরাও লাঞ্ছিত হয়েছে। গতকাল পুলিশ ছাত্রদের ওপর টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে এবং পুলিশ এবং ছাত্রলীগ যৌথভাবে ছাত্রদের ওপর হামলা চালায়। অবশ্য ছাত্ররা পাল্টা প্রতিরোধ গড়ে তুললে ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।
তিনি বলেন, সুজনের সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদারের বাসা থেকে নৈশভোজ শেষে মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট বের হওয়ার সাথে সাথেই রাষ্ট্রদূতের গাড়িতে এবং বদিউল আলম মজুমদারের বাসায় হামলা চালানো হয়। তিনি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান এবং হামলাকারীদের বিচার দাবি করেন।
তিনি বলেন, এভাবে সন্ত্রাস সৃষ্টি করে শিক্ষার্থীদের অরাজনৈতিক আন্দোলন দমন করা যাবে না। তাই ছাত্র-ছাত্রীদের আস্থায় এনে তাদের দাবি মেনে নিয়ে তাদেরকে স্ব-স্ব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ফিরিয়ে নেয়ার জন্য তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান। সেই সাথে শিক্ষার্থীদের ওপর হামলাকারীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন। অন্যথায় উদ্ভূত পরিস্থিতির জন্য সরকারকেই দায়ী থাকতে হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ