ঢাকা, সোমবার 6 August 2018, ২২ শ্রাবণ ১৪২৫, ২৩ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

শিক্ষার্থীদের ন্যায্য দাবি না মানলে সরকারকে চরম মূল্য দিতে হবে

চাকরিতে কোটা সংস্কার ও নিরাপদ সড়কের দাবি কোমলমতি ছাত্রসমাজের চলমান আন্দোলন সংগ্রামের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করে বাংলাদেশ ছাত্রমিশন নেতৃবৃন্দ বলেছেন, সরকারই ছাত্রসমাজকে আন্দোলন করতে বাধ্য করেছে। ছাত্রদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে ছাত্রলীগ নামক গুণ্ডাবাহিনীর রক্তক্ষয়ী হামলা ও নিপীড়নের তিব্র নিন্দা জানিয়ে ছাত্রমিশন নেতৃবৃন্দ বলেন, কোটা সংস্কার নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর দ্বিমুখী আচরণ ও ছাত্রলীগ যুবলীগ নামধারী সন্ত্রাসী বাহিনীকে ছাত্রসমাজের প্রতি লেলিয়ে দিয়ে শান্তিপূর্ণ আন্দোলনকে অশান্তিময় করার চেস্টা করেছে।
গতকাল রোববার সকাল ১০ টায় লেবার পার্টির কার্যালয়ে অবিলম্বে চাকরিতে কোটা সংস্কার ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে ছাত্রমিশনের সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ছাত্রমিশন কেন্দ্রীয় সভাপতি সালমান খান বাদশা। এ সময় ছাত্রমিশন সাধারন সম্পাদক সৈয়দ মোঃ মিলন, সমন্বয়কারী এডভোকেট আল আমিন, অর্থসম্পাদক সাইফুল ইসলাম, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, শরিফুল ইসলাম, প্রচার সম্পাদক হাফিজুর রহমান রিফাত, কেন্দ্রীয় সদস্য মোঃ শামিম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। 
নেতৃবৃন্দ বলেন, দেশ আজ চরম ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। লাগামহীন দুর্নীতি ও অনিয়মের কারণে সোনার বাংলাদেশ আজ অকার্যকর ও ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। দুর্নীতি আজ নীতিতে পরিণত হয়েছে। রক্ষক আজ ভক্ষকের ভুমিকায় নেমেছে। সড়কে মৃত্যুর মিছিল থামছে না। বেপরোয়া ও লাইন্সেসবিহীন ও প্রশিক্ষণবিহীন ড্রাইভারদের কারণে সড়ক দুর্ঘটনা নিত্যনৈমত্তিক বিষয়ে পরিণত হয়েছে। সড়ক দুর্ঘটনায় হত্যার শাস্তি মৃত্যুদ- না থাকা ও বিচারে দির্ঘসূত্রীতার কারণে হত্যাকারীরা বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। রাজনৈতিক অশুভ শক্তির পৃষ্টপোষকতায় হত্যাকারী চক্র নিজেদের অসীম ক্ষমতার অধিকারী মনে করে আনন্দ চিত্রে দুর্ঘটনার ক্ষেত্র তৈরি করছে।
ছাত্রসমাজের চলমান আন্দোলন দুর্নীতি ও অনিয়মের বিরুদ্ধে। গত কয়েক দিনে প্রমাণ হয়েছে বিচারপতি, আমলা, এমপি-মন্ত্রী, সাংবাদিক কেউই আইন মানছে না। মনে হচ্ছে যেন বাংলাদেশের জনগণ আজ নিজের মতো করে ইচ্ছেমতো চলছে। এভাবে একটা স্বাধীন সার্বভৌম দেশ চলতে পারে না। তাই অবিলম্বে কোটা সংস্কারে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের ন্যায়সংগত ৯ দফা মেনে নিয়ে ছাত্রসমাজকে ক্লাসে যাওয়ার সুযোগ সৃষ্টি করতে হবে। শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা ও নিপীড়নকারী ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। প্রেসবিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ