ঢাকা, সোমবার 6 August 2018, ২২ শ্রাবণ ১৪২৫, ২৩ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

দেশের জন্যে এক মহাবিপদ ডেকে আনবে -অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ

চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে সুধী সমাবেশে প্রফেসর আনু মুহাম্মদ -সংগ্রাম

চট্টগ্রাম ব্যুরো : তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ বলেছেন, কর্পোরেট ও বিদেশী পুঁজির স্বার্থে সরকারের বিদ্যুৎ উৎপাদনের মহাপরিকল্পনা অবিলম্বে পরিত্যাগ না করলে তা বাংলাদেশের জন্যে এক মহাবিপদ ডেকে আনবে। গত ১ আগস্ট বুধবার ৪টায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব আবদুল খালেক মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সুধী সমাবেশে তিনি বলেন, ইউনেস্কো আপত্তি জানিয়েছে, ভারত-বাংলাদেশ উভয় দেশের মানুষ বাতিল করার দাবী জানিয়েছে। তবুও জনমত উপেক্ষা করে ভারতের এনটিপিসি কোম্পানীকে দিয়ে সুন্দরবন বিধ্বংসী রামপাল বিদ্যুৎ বাস্তবায়ন করছে সরকার।
তিনি বলেন, সরকার কোন দুর্বলতা ঘটনাকে অস্বীকার করার যে প্রবণতা দেখচ্ছেন তা ভয়ানক বিপজ্জনক। দিনদুপুরের বড়পুকুরিয়া বিদ্যুৎপ্রকল্প বন্ধ না হয়ে গেলে হয়তো কয়লা চুরির ঘটনা ধামাচাপ দেয়া হতো। তিনি আরো বলেন চীন ও ভারতে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে। তাদের মজুদ হয়ে থাকা পরিত্যক্ত কয়লা বাজার বানানো হয়েছে বাংলাদেশকে। সুন্দরবন একবার বিলুপ্ত হলে আর ফেরত আনা সম্ভব নয়। কিন্তু বিদ্যুৎ উৎপাদনের ভিন্নপথ খোলা আছে বহু। আনু মুহাম্মদ বলেন, সরকার যে বিদ্যুৎ মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করেছে তার সাথে সম্পৃক্ত হয়েছেন বহুজাতিক কোম্পানীর বিশেষজ্ঞরা। এখানে নেই কোন বাংলাদেশের বিশেষজ্ঞ। সহজলভ্যতার কথা বলে কয়লাকে মূল কাঁচামাল হিসাবে জারী রাখার অপচেষ্টা চলছে।
এর বিকল্প প্রস্তাব হিসাবে সর্বাধিক নিরাপদ, সাশ্রয়ী ও পরিবেশবান্ধব বিকল্প মহাপরিকল্পনা জাতীয় কমিটি বিবেচনার জন্য সংসদীয় কমিটি, মন্ত্রী ও সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ে পেশ করেছে এবং আন্দোলনও করে যাচ্ছে। দেশের ভবিষ্যৎকে বাঁচাতেই এ আন্দোলনকে জয়যুক্ত করতে হবে। চট্টগ্রাম কমিটির আহ্বায়ক কবি ও সাংবাদিক জনাব আবুল মোমেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সুধী সমাবেশে আলোচনা উপস্থাপন করেন ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটির উপাচার্য্য প্রফেসর সিকান্দর খান, আইইবি চট্টগ্রামের সাবেক চেয়ারম্যান এবিএম আবুল বাসেত, পরিকল্পিত চট্টগ্রাম ফোরামের সাধারণ সম্পাদক স্থপতি জেরিনা হোসেন, সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) এর সহ সভাপতি প্রকৌশলী সুভাষ বড়–য়া, জাতীয় কমিটি চট্টগ্রামের সদস্য সচিব প্রকৌশলী দেলোয়ার মজুমদার। উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক মুক্তিযোদ্ধা জনাব বালাকাত উল্লাহ্, রাজনৈতিক নেতাদের জনমুক্তি ইউনিয়ন নেতা কমরেড রাজা মিয়া, সিপিবি নেতা কমরেড অমৃত বড়ুয়া, বাসদ (মার্কসবাদী) নেতা অপুদাগুপ্ত, গণসংহতি আন্দোলনের হাসান মারুফ রুমি, বাসদ নেতা আল-কাদেরী জয়, খেলাঘরের নেতা রেজাউল কবির প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন জাতীয় কমিটির নির্বাহী সদস্য রাহাত উল্লাহ জাহিদ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ