ঢাকা, সোমবার 6 August 2018, ২২ শ্রাবণ ১৪২৫, ২৩ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

নগরকান্দায় ৪ মাসের অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর লাশ উদ্ধার

ফরিদপুর থেকে সংবাদদাতা : জেলার নগরকান্দা উপজেলার ফুলসুতি গ্রামে স্বামীর হাতে স্ত্রী খুনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিহত চায়না বেগম (২৫) উপজেলার ফুলসুতি গ্রামের সোহাগ মোল্যার স্ত্রী ও লস্করপুর গ্রামের জালাল মাতুব্বরের মেয়ে। এ ঘটনায় চায়নার ভাই নান্নু মাতুব্বর নগরকান্দা থানায় হত্যার অভিযোগ করেছে। ফুলসুতি গ্রামের মাজেদ মোল্যার ছেলে সোহাগ এর সাথে জালাল মাতুব্বরের মেয়ে চায়না বেগমের ৬ বছর আগে বিয়ে হয়। তাদের সংসারে ৪ বছর বয়সের একটি পুত্র সন্তান রয়েছে এবং চায়না ৪ মাসের অন্ত:সত্ত্বা ছিল। নিহতের স্বামী সোহাগ মাদকাসক্ত ছিলো এবং মাঝে মধ্যেই নেশার টাকা চেয়ে স্ত্রীকে মারপিট করতো। মৃতের ভাই নান্নু মাতুব্বর বলেন, মঙ্গলবার রাত আনুমানিক দেড়টার দিকে সোহাগের বোন কেয়া আক্তার মোবাইল ফোনে আমাদের সংবাদ দেয় চায়না ঘরের সিড়ি থেকে পড়ে অসুস্থ হয়েছে। আমি ও আমাদের পরিবারের লোকজন রাতেই পৌঁছিয়ে চায়নার লাশ ঘরের মেঝেতে পড়ে থাকতে দেখি। এ সময় পরিবারের সদস্যদের বাড়ীতে না পেয়ে থানা পুলিশকে খবর দেই। তিনি অভিযোগ করে বলেন আমার বোনকে ওরা হত্যা করে পালিয়ে গেছে। চায়নার পিতা জালাল মাতুব্বর বলেন, বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের জন্য চাপ দিয়ে আসছে সোহাগ। এ পর্যন্ত সোহাগকে ২ লাখ ২০ হাজার টাকা যৌতুক দিয়েছি। কিছুদিন ধরে সোহাগ আরও টাকার জন্য আমার মেয়েকে চাপ দেয়। আমার মেয়ে আরও টাকা নিয়ে না দেয়ায় তাকে মাঝে মধ্যেই মারধর করত হত্যার হুমকি দিত আর আজ তো মেরেই ফেলল। নগরকান্দা থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ লুৎফর রহমান বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ফরিদপুর মেডিকেল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ