ঢাকা, মঙ্গলবার 7 August 2018, ২৩ শ্রাবণ ১৪২৫, ২৪ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

তাড়াশে ব্যাপকভাবে গরুর ক্ষুরারোগ দেখা দিয়েছে

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা: সিরাজগঞ্জের  তাড়াশে গবাদি পশুর ব্যাপক ক্ষুরারোগ দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে কোরবানীর ঈদ সামনে রেখে যে সকল খামারীরা গরু লালন পালন করছেন তারা গরুর ব্যাপক ক্ষুরারোগের কবলে পড়ে ঝিমিয়ে পড়েছেন। তাড়াশ উপজেলার ৮ ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে ক্ষুরারোগের সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাড়াশের মাগুড়া বিনোদ ইউনিয়নের হামকুড়িয়া গ্রামের আলামিনের ৩টি গরু ক্ষুরা রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়ায় খাবারের রুচি কমে যাওয়ায় শুকিয়ে যাছে। অথচ আর কয়েকদিন পরই কোরবানির হাট। এদিকে ঈদকে সামনে রেখে প্রাণিসম্পদ বিভাগের নিয়মিত প্রাণির হাট মণিটরিং না করায় ক্ষুরারোগে আক্রান্ত গরু দেদারছে বিক্রি হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রত্যন্ত গ্রামের এলাকার ক্ষুদ্র খামারীরা গরুর ক্ষুরারোগে চিকিৎসা করতে স্থানীয় গ্রাম্য চিকিৎসকদের শরনাপন্ন হচ্ছেন।
এ প্রসঙ্গে তাড়াশ উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা মোঃ আবু হানিফ বলেন,গরুর ক্ষুরারোগ সারা বছরই থাকে। এলাকাবাসিরা বলেন উপযুক্ত চিকিৎসা না পেয়ে ক্ষুরারোগে অনেক গরুই মারা গেছে কিছু কিছু গরু ক্ষুরারোগে আক্রান্ত হওয়ার সাথে সাথে বিক্রি করে দেন গরুর ব্যবসায়ীরা  মহিষলুটি তাড়াশবাজার,নওগাসহ বিভিন্ন স্থানে এই সকল গরু জবাই করে গোস্ত বিক্রি করনে। সচেতন ব্যাক্তিরা জানান গরু পরীক্ষা না করেই সব জায়গায় গরু জবাই করে গোস্ত বিক্রি করলেও দেখার কেউ নেই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ