ঢাকা, বুধবার 8 August 2018, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৫, ২৫ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

৯৩ কোটি টাকা আত্মসাতের মামলায় সোনালী ব্যাংকের ৩ কর্মকর্তা গ্রেফতার

 স্টাফ রিপোর্টার : পরস্পর যোগসাজশে একটি প্রতিষ্ঠানকে ঋণ উত্তোলন করে প্রায় ৯৩ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে সোনালী ব্যাংকের সাবেক তিন কর্মকর্তাকে গ্রেফতার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

সোমবার দুপুরে রাজধানীর সেগুনবাগিচা এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- সোনালী ব্যাংকের সাবেক সহকারী মহাব্যবস্থাপক মানিক চন্দ্র মন্ডল, একই ব্যাংকের খুলনা প্রিন্সিপ্যাল অফিসের বর্তমান সহকারী মহাব্যবস্থাপক মো. সিরাজুল ইসলাম ও দৌলতপুর শাখার সাবেক কর্মকর্তা অজিত কুমার সরকার।

দুদকের উপপরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, অভিযোগের প্রেক্ষিতে দৌলতপুর থানায় গত বছর দুদক একটি মামলা করে। ওই মামলায় মোট ৭ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিলের অনুমোদন দিয়েছে দুদক। অভিযোগ থেকে জানা যায়, অভিযুক্তরা পরস্পর যোগসাজশে মেসার্স ইস্টার্ন ট্রেডার্স এর অনুকূলে ১৬ অক্টোবর, ২০০৮ থেকে ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৪ তারিখ পর্যন্ত মোট ৪৯ কোটি ৬২ লাখ ১৪ হাজার ২৩৭ টাকা ব্যাংক থেকে ঋণ উত্তোলন করেছেন। তারা প্রতারণা, জালিয়াতি ও অপরাধজনক বিশ্বাস ভঙ্গের মাধ্যমে সুদাসলে ব্যাংকের মোট ৯২ কোটি ৬৩ লাখ ৩১ হাজার ৭৫২ টাকা দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহার করে আত্মসাত করেছেন।

অন্যরা হলেন- সনজিত কুমার দাস, স্বত্বাধিকারী, মেসার্স ইস্টার্ণ ট্রেডার্স, খুলনা ইন্ডাস্ট্রিজ প্রিমিসেস লি. (ইস্পাহানী), ডিসি রোড, দৌলতপুর, খুলনা। মো. মতিয়ার রহমান, প্রাক্তন গোডাউন কিপার, সোনালী ব্যাংক, দৌলতপুর কর্পোরেট শাখা, খুলনা, বর্তমানে- গোডাউন কিপার, সোনালী ব্যাংক, মহেশপুর শাখা, ঝিনাইদহ। মো. নজরুল ইসলাম, প্রাক্তন এজিএম, সোনালী ব্যাংক, দৌলতপুর কর্পোরেট শাখা, খুলনা, বর্তমানে-এজিএম, সোনালী ব্যাংক লি., জিএম অফিস, খুলনা। মো. রুহুল আমিন, প্রাক্তন সিনিয়র প্রিন্সিপ্যাল অফিসার, সোনালী ব্যাংক, দৌলতপুর শাখা, খুলনা, বর্তমানে অবসরপ্রাপ্ত, পিতা-মৃত নৈমুদ্দিন মোড়ল, গ্রাম-দুর্জনী মহল, থানা-রূপসা, জেলা-খুলনা।

এর আগে, অর্থ আত্মসাতের এ ঘটনায় ২০১৭ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর দুদকের প্রধান কার্যলয়ের উপসহকারী পরিচালক মোশাররফ হোসেন বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ