ঢাকা, বুধবার 8 August 2018, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৫, ২৫ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ঢাকা ও চট্টগ্রামের ৫ ছাত্র আটক ॥ পুলিশের অস্বীকার

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীতে টেক্সটাইল ইউনিভার্সিটির ওসমানী হলের ২ ছাত্রকে গ্রেপ্তারের পর অস্বীকার করছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।
জানা যায়, গত সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় টেক্সটাইল ইউনিভার্সিটির ফেব্রিক ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টের ছাত্র আসাদুল্লাহ আল গালিব ও ওয়েট প্রসেস ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টের ছাত্র মোহাম্মদ আখতারুজ্জামানকে ছাত্রলীগের বিশ্ববিদ্যালয়ের সভাপতি নাজমুল আলম সাকিব ও সেক্রেটারি মাইনুল ইসলাম তাদের রুমে থেকে ডেকে নেয়। সেখানে এই দুই ছাত্রকে মারধর করা হয়। পরে ছাত্রলীগ নেতাদের রুমে সারাদিন রেখে থেকে রাত সাড়ে ৯টার দিকে দুই ছাত্রকে নিয়ে যায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। যা হলে অবস্থানরত অনেক ছাত্র দেখেছে। কিন্তু এই ২ ছাত্রকে এখন পর্যন্ত আদালতে তোলা হয়নি এবং গ্রেপ্তারের কথা স্বীকার করছে না আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। ছাত্রদের পরিবারের সদস্যরা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিভিন্ন দফতরে যোগাযোগ করলেও সন্তানদের সন্ধান পাচ্ছেন না।
এ নিয়ে পরিবারের সদস্যরা উদ্বেগ উৎকন্ঠায় রয়েছে।
চট্টগ্রামে ৩ ছাত্রকে গ্রেপ্তার করে পুলিশের অস্বীকার: চট্টগ্রামে ৩ ছাত্রকে গ্রেপ্তারের পর অস্বীকারের অভিযোগ উঠেছে পুলিশের বিরুদ্ধে। এ নিয়ে উদ্ধিগ্ন ও আতঙ্কে আছে ছাত্রদের অভিভাবকরা।
জানা যায়, গত ৫ জুলাই দুপুরে রিক্সা করে কাজির দেওরির দিকে যাওয়ার পথে হোমিওপ্যাথিক প্রথম বর্ষের ছাত্র আনোয়ার ও চট্টগ্রাম কলেজের ডিগ্রী ফাইনাল ইয়ারের ছাত্র আব্দুর রহিমকে গ্রেপ্তার করে ডিবি পুলিশ। একই সময় এলাকার ওয়াসার মোড় থেকে চট্টগ্রাম কলেজের ছাত্র এহসানুল হক মিলনকেও আটক করে পুলিশ। কিন্তু পরিবারের সদস্যরা খোজ নিতে গেলে পুলিশ তাদের গ্রেপ্তারের কথা অস্বীকার করে।
এদিকে পরিবারের অভিযোগ গ্রেপ্তারকৃত ছাত্রদের ফেসবুক আইডি থেকে বিভিন্ন রকম বিভ্রান্তিকর পোষ্ট দেয়া হচ্ছে। ছাত্রদেরকে মিথ্যা মামলায় জড়াতে গ্রেপ্তারের পর জোর করে ফেসবুক পাসওয়ার্ড নিয়ে পুলিশই বিভ্রান্তিকর পোষ্ট দিচ্ছে বলে মনে করছে তাদের পরিবার।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ