ঢাকা, বৃহস্পতিবার 9 August 2018, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৫, ২৬ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

শিক্ষার্থীদের আন্দোলন রাজনৈতিক হলে এবারই শেখ হাসিনার ক্ষমতা শেষ হয়ে যেত -আবদুল্লাহ আল নোমান

গতকাল বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে বাংলাদেশ ইউথ ফোরাম আয়োজিত প্রতিবাদী যুব সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : বিএনপির ভাইস চেয়ারমন্যান আবদুল্লাহ আল নোমান বলেছেন, শিক্ষার্থীদের আন্দোলন রাজনৈতিক হলে এবারই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ক্ষমতা শেষ হয়ে যেত।
গতকাল বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে বাংলাদেশ ইয়ুথ ফোরাম আয়োজিত এক প্রতিবাদী যুব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তি, তারেক রহমান, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও রুহুল কবির রিজভীর নামে দায়ের করা ষড়যন্ত্রমূলক মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
আবদুল্লাহ আল নোমান বলেন, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে যদি রাজনীতি প্রতিফলিত হতো বা রাজনীতি প্রধান হলে এবারই শেখ হাসিনার ক্ষমতা শেষ হয়ে যেতো। সুতরাং শিক্ষার্থীদের আন্দোলন রাজনৈতিক ছিল না। এটাকে আমরা রাজনৈতিক আন্দোলন হিসেবে দেখতে চাই নাই।
প্রস্তাবিত সড়ক পরিবহন আইনের খসড়ায় বিষয়ে তিনি বলেন, এই আইন আমাদের যথার্থ আশা পূরণ করে নাই। আর শিক্ষার্থী এবং পরিবহণের মালিক এবং শ্রমিকরাও এই আইন গ্রহণ করে নাই। ক্ষমতাসীনরা ফাঁকি দিয়ে আন্দোলনকে ভিন্নখাতে প্রভাবিত করছে বলে মন্তব্য করেন নোমান। এসময় জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে সবাইকে যার যার জায়গায় থেকে ভূমিকা রাখার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।
আব্দুল্লাহ আল নোমান বলেন, শাসকগোষ্ঠী যখন দুর্বল হয়ে পড়ে, তখন তাদের ইন্সস্ট্রুমেন্ট কাজ করে না। তখন তারা স্বৈরাচারী হয়ে যায়। বর্তমান সরকার রাষ্ট্রীয় বাহিনী দিয়ে জনগণকে দমন করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। এই অপচেষ্টা আমাদের রুখে দিতে হবে।
বিএনপির এই সিনিয়র নেতা বলেন, আগামী নির্বাচন হবে খালেদা জিয়ার মুক্তির মধ্য দিয়ে। বর্তমান সরকারের পদত্যাগ ও নির্বাচন কমিশনের পরিবর্তন ছাড়া এই দেশে কোনও নির্বাচন সম্ভব নয়। নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশনের মাধ্যমে জাতীয় নির্বাচন হতে হবে বলেও জোর দাবি জানান তিনি।
দেশ মহাসংকটে রয়েছে মন্তব্য করে বিএনপির এই ভাইস-চেয়ারম্যান বলেন, দেশ পুলিশে রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। যদিও একটি সংবিধান আছে। কিন্তু সংবিধানের কোনো প্রয়োগ নেই।
আয়োজক সংগঠনের উপদেষ্টা কৃষিবিদ মেহেদী হাসান পলাশের সভাপতিত্বে এবং সংগঠনের সভাপতি সাইদুর রহমানের সঞ্চালনায় সমাবেশে বিএনপির আরেক ভাইস-চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আহমদ আযম খান, নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মো. রহমাতুল্লাহ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ