ঢাকা, বৃহস্পতিবার 9 August 2018, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৫, ২৬ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

দৌলতপুরে পুরুষাঙ্গ কর্তনে যুবকের মৃত্যু ॥ ঘাতক আটক

দৌলতপুর (কুষ্টিয়া) সংবাদদাতা : কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে অনৈতিক কর্মকাণ্ডে লিপ্তকালে পুরুষাঙ্গ (লিঙ্গ) কর্তনে মাহবুব (৩০) নামে এক যুবকের করুণ মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় কুষ্টিয়া হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। নিহত যুবক উপজেলার পিয়ারপুর ইউনিয়নের আল্লারদর্গা হলুদবাড়ীয়া গ্রামের মৃত সাইদ মাষ্টারের ছেলে। ঘটনার সাথে জড়িত ঘাতককে আটক করেছে পুলিশ। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার সদর ইউনিয়নের দাঁড়পাড়া গ্রামের ইয়ার আলির মেয়ে ও মিরপুর গ্রামের আনারুল ইসলামের তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রী মাসুরার সাথে যুবক মাহবুবের পরকীয়া সম্পর্ক ছিল। মাসুরা স্বামীকে তালাক দিয়ে দাঁড়পাড়া গ্রামে তার দোলা ভাই (বোন জামাই) প্রবাসী মওদুদের বাড়িতে বোন জমিলার কাছে থাকতো। বোন জামাই বা দোলা ভায়ের ছোট ভাই রাহাত উল্লা মুন্সির ছেলে সন্ত্রাসী ওদুদ টাইগার স্বামী পরিত্যক্তা মাসুরাকে দিয়ে অনৈতিক ব্যবসা চালিয়ে আসছিল। এ নিয়ে সন্ত্রাসী ওদুদ টাইগারের সাথে মাহবুবের কথা কাটাকাটি হলে পরিকল্পিত ভাবে ওদুদ প্রতিশোধ নিতে মাসুরাকে দিয়ে তার পুরুষাঙ্গ কর্তন করে বলে নিহতের পরিবার সূত্রের দাবি। মঙ্গলবার সন্ধ্যার দিকে মাসুরার ঘরে ঢুকে তার সাথে মাহবুব অনৈতিক কর্মকান্ডে লিপ্ত হলে পরিকল্পিতভাবে মাসুরা তার পুরুষাাঙ্গ কর্তন করে। এসময় মাহবুব চিৎকার দিয়ে উঠলে এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে দ্রুত কুষ্টিয়া হাসপাতালে নিলে অধিক রক্ত ক্ষরণে রাতে তার মৃত্যু হয়।
এ বিষয়ে দৌলতপুর থানার ওসি শাহ দারা খাঁন জানান, ঘটনার পরপরই ভিকটিম বা ঘাতক মাসুরাকে আটক করা হলে জিঞ্জাসাবাদ শেষে গতকাল বুধবার দুপুরে তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।  উল্লেখ্য ঘাতক মাসুরা দৌলতখালী গ্রামের শীর্ষ সন্ত্রাসী আবর ডাকাতের বোন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ