ঢাকা, বৃহস্পতিবার 9 August 2018, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৫, ২৬ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সুন্দরগঞ্জের বামনডাঙ্গা-নলডাঙ্গা সড়কের সংস্কার নেই ॥ যানবাহন চলাচলে ঝুঁকি

সুন্দারগঞ্জ উপজেলার ভাঙাচোরা বামনডাঙ্গা-নলডাঙ্গা সড়কে ঝুঁকি নিয়ে চলছে যানবাহন

গাইবান্ধা সংবাদদাতা: সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ভাঙ্গাচুড়া বামনডাঙ্গা-নলডাঙ্গা সড়কে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে যানবাহন ও পথচারিরা। যার কারণে যাতায়াতে সময় ও ভাড়া দুটোই বেশি লাগছে। এতে করে বিপাকে পড়েছে সাধারণ মানুষ। এ ছাড়া প্রতিনিয়ত ঘটছে ছোটখাটো সড়ক দুর্ঘটনা এবং নষ্ট হচ্ছে যানবাহন। সড়কটির অসংখ্য স্থানের কার্পেটিং (পিচ) উঠে গেছে অনেক দিন আগেই। অনেক স্থানেই ইটের খোঁয়া উঠে গিয়ে তৈরি হয়েছে বড় বড় খানা-খন্দের। ফলে সামান্য বৃষ্টিতেই সে সব গর্তে জমে থাকে পানি। বিশেষ করে নলডাঙ্গায় খাদ্য গোডাউনের সামনের সড়কের অবস্থা একেবারেই বেহাল। ফলে এই পথ দিয়ে ব্যাটারি চালিত রিক্সা-ভ্যান ও অটোরিক্সা চলাচল করছে অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে। স্থানীয়রা জানান, উপজেলার পশ্চিমাঞ্চলের ৫টি ইউনিয়নের জনসাধারণ এই রুটে গাইবান্ধা জেলা শহর হয়ে বগুড়া, রাজশাহী এবং ঢাকা শহরে যাতায়াত করে থাকে। কিন্তু সড়কটির বেহাল দশার কারণে অনেকেই আর এই রুটে চলাচল করছে না। সড়কটির আশেপাশে গড়ে উঠেছিল বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। এই রুটে যানবাহন না চলাচল করায় এসব দোকানে ক্রেতা কম হওয়ায় ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন ব্যবসায়ীরাও। অপরদিকে বামনডাঙ্গা-রংপুর ও বামনডাঙ্গা-সুন্দরগঞ্জ তিন সড়কের মোড়ে জাতীয় পার্টির অফিসের সামনে সড়কটি নিচু থাকায় সেখানে বর্ষা এলে পানি জমে থাকে। অটোরিক্সা চালক সেলিম মিয়া বলেন, সড়কটি এতোটাই বেহাল অবস্থা যে ১০ মিনিটের রাস্তা যেতে সময় লাগছে ২০ মিনিটেরও বেশি। প্রায়ই বিভিন্ন যন্ত্রাংশ নষ্ট হচ্ছে , আবার সেটি মেরামত করতে গিয়ে অতিরিক্ত টাকা ব্যয় করতে হচ্ছে। তাই ভাড়াও নিতে হচ্ছে বেশি। কিন্তু রাস্তাটি ভালো থাকলে ভাড়া কম নেওয়া যেত। এ ছাড়া সড়কটির বেহাল দশার কারণে মানুষ এই পথ দিয়ে চলাচল করতে চাচ্ছে না। উপজেলা প্রকৌশলী মোহাম্মদ আবুল মনছুর বলেন, প্রায় সাত কিলোমিটার দীর্ঘ এই সড়কটি বর্তমানে ১২ ফুট প্রস্থ রয়েছে। সড়কটি ২০১৭ সালে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ হয়, অবকাঠামো মেরামত/সংস্কার প্রকল্পের আওতায় দুইপাশে আরও ৩ ফুট করে মোট ৬ ফুট প্রস্থ বাড়ানোর প্রস্তাবনা অনুমোদন হয়েছে। দরপত্র আহবানের প্রক্রিয়া চলছে। প্রক্রিয়া শেষে কাজ শুরু করা হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ