ঢাকা, শুক্রবার 10 August 2018, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৫, ২৭ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কবিতা

শান্তির পাখিটা 

রওশন মতিন

 

দুঃসময়ের জানালায় খেলা করে ভালবাসার কফিন,

আমাদের দিনগুলো ক্ষয়ে যায় ¤্রয়িমাণু বিবর্ণ লজ্জায়,

আঁস্তাকুড়ের পাশে ক্ষুধার কাঙাল অনাথ শিশুটির মতো

অসুস্থ সমকাল স্ব-কালের ক্ষত-বিক্ষত বিধ্বস্ত প্রতিচ্ছবি হয়ে

অপূর্ণ শিশুর বিকলাঙ্গ হাসির মতো ঝুলে আছে সারাক্ষণ,

চাপ চাপ বরফ বাক্সবন্দী মৃত রক্ত-শীতল মাছেদের মতো।

একদিন হারাবার নিজস্ব তাড়নায় হারিয়ে যাবে সবাই

আমরা কি স্বপ্ন রেখে যাব আমাদের সন্তানের জন্য,

আদিম অরণ্যে, গুহাবাসী আশ্রয়ে ফিরে যাবো শেষ পর্যন্ত-

শুধুই কি শুনব রক্তঝরার গান, অস্ত্রের ঝংকার

অসহায় মৃত্যুর বিলাপ আর মানবতার পরাজিত চিৎকার;

আমরা কি ফিরে যাবনা- নিষ্পাপ শৈশবের উঠোনে

ভোরের ¯িœগ্ধ আলোয় প্রাত্যহিক জাগরণে পাখির ডাকে

আমরা কি জেগে উঠব না শুভ দিনের শুভক্ষণে

আমরা খুলে দেব না সব দরজা-জানালা বিশুদ্ধ বাতাসের জন্য

আমরা কি বুকের ভিতরে পুষে রাখবো না শান্তির পাখিটাকে,

আমরা কি ফিরিয়ে দেব না সেই শিশুটির পরম নিরাপত্তার ঘুম-

যে আজ জেগে আছে অসুস্থ ও উৎকন্ঠা-ব্যাকুল!

 

আজ কোথাও যাবো না 

হাসান নাজমুল

 

আজ কোথাও যাবো না; জানলার পাশে বসে-

বৃষ্টি পড়ার শব্দ শুনবো শুধু;

আজকে আকাশ থেকে মেঘপাখির পাখারা খসে-

পড়ে মিশে যাবে ধূ-ধূ-

জলরাশির সাথে; আজকে স্তব্ধতার সাথে

স্তব্ধতা নীরবে খেলে যাবে,

বৃষ্টি পড়ার শব্দ প্রভাত গড়িয়ে রাতে-

চলে যাবে; গড়াগড়ি খাবে-

কদম ফুলেরা;

আজকে শৈশবে ফিরে গিয়ে

হবে না তো ফুলের পাপড়ি ছেঁড়া,

আজ কোথাও যাবো না; দৃঢ়তা স্থিরতা নিয়ে

কেবলি দেখবো বৃষ্টির শাসন,

জানলার পাশে বসে আছে কী প্রিয় মধুর ক্ষণ!

 

একটি সবুজ উদ্যান

ইয়াসিন মাহমুদ

 

কেউ মানুষ খুন করে আবার কেউ খুন করে স্বপ্ন

মানুষ এবং স্বপ্ন খুনিকে আমি চরম ঘৃণ্যা করি।

কেউ আক্রোশে কিংবা উন্মাদনার বশে খুন করে মানুষ কিন্তু

স্বপ্নকে খুন করা হয় ঠা-া মাথায়..।

যদি কেউ নিজেকে নিজেই হত্যা করে

তার মতো কূপমুন্ডূক আর দ্বিতীয়টি ভাবা যায় না। 

একটি বীজ বপনের অনুভূতির যে চাষির  নেই

সে চাষি পাকা ফসলের মাঠে মই দিতেই পারে !

একজন স্বপ্ন খুনির জন্য নিন্দা আজীবন ;

 ইতিহাসে বেঁচে থাকুক নিন্দিত কাপুরুষ হয়ে

একদিন এই মরু মাঠ আবার সবুজ ঘাসে ভরে উঠবে;

আসবে স্বপ্নচারী মালী

একটি সবুজ উদ্যানই যার দু’ চোখে ভাসে

সেই মালির জন্যই তো এতো অপেক্ষা..

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ